BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

রবিবারের মধ্যেই ফাঁসি বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদের! প্রস্তুত ১০ জন জল্লাদ

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: April 11, 2020 2:40 pm|    Updated: April 11, 2020 2:40 pm

An Images

ফাইল ফটো

সুকুমার সরকার, ঢাকা: শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার (দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা বাদে) মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আবদুল মাজেদকে রবিবারই সম্ভবত ফাঁসিতে ঝোলানো হবে। ফাঁসি কার্যকরের প্রস্তুতি নিয়েছে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার। এর জন্য ১০ জন জল্লাদের একটি দল রেডি রয়েছে বলেও জানা গিয়েছে।

ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগার সূত্রে খবর, জাতির জনক তথা বঙ্গবন্ধুর খুনি আবদুল মাজেদের ফাঁসি কার্যকর করতে জল্লাদ শাহজাহানের নেতৃত্বে মহম্মদ আবুল, তরিকুল ও সোহেল-সহ ১০ জন জল্লাদের একটি দলকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। তাঁরা ইতিমধ্যেই কারাগারের মধ্যে ফাঁসির ট্রায়াল সম্পন্ন করেছে। যেকোনও সময় মাজেদের ফাঁসির রায় কার্যকর হতে পারে। আজ শনিবার অথবা আগামীকাল রবিবার ফাঁসি কার্যকরের সম্ভাবনা বেশি বলেও সূত্রটি জানিয়েছে।

[আর পড়ুন: বাংলাদেশে বাড়ছে করোনা মহামারির প্রকোপ, একদিনে মৃত ৬ ]

এদিকে শুক্রবার সন্ধেয় কারা কর্তৃপক্ষের নির্দেশে কেরানীগঞ্জে অবস্থিত ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে যান আবদুল মাজেদের সঙ্গে শেষ দেখা করতে যান তার আত্মীয়রা। বঙ্গবন্ধুকে হত্যায় জড়িত থাকা আবদুল মাজেদ গত ২৩ বছর ধরে পলাতক ছিল। এই সময়টা সে কলকাতায় ছিল বলেও জানা গিয়েছে।

গত ৬ এপ্রিল মধ্যরাতে ঢাকার গাবতলী এলাকা থেকে মাজেদকে গ্রেপ্তার করে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (CTTC) ইউনিট। পরে তাকে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (CMM) আদালতে হাজির করে সিটিটিসি। এরপরই মাজেদকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। গত ৮ এপ্রিল মৃত্যুর পরোয়ানা পড়ে শোনানোর পর সব দোষ স্বীকার করে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন জানায় আবদুল মাজেদ। কিন্তু, সঙ্গে সঙ্গে তা নাকচ করে দেন রাষ্ট্রপতি মহম্মদ আবদুল হামিদ। সেই চিঠিটি কেন্দ্রীয় কারাগারে পৌঁছনোর পরেই কারাবিধি অনুযায়ী পরবর্তী কাজগুলি শুরু হয়।

[আর পড়ুন: জুম্মার নমাজে লোকসমাগম বেশি হওয়ার জেরে মারামারি, বাংলাদেশে জখম ৭]

এপ্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছিলেন, ‘আবদুল মাজেদের প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ করে দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি। এর ফলে ফাঁসির আদেশ কার্যকর করতে আর কোনও বাঁধা থাকল না। এখন পরবর্তী প্রক্রিয়া অনুসরণ করে তার ফাঁসির বিষয়টি কার্যকর করা হবে।’

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement