১৬ ফাল্গুন  ১৪২৬  শনিবার ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

স্ত্রীর মদতে কিশোরী মেয়েকে লাগাতার ধর্ষণের অভিযোগ বাবার বিরুদ্ধে

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: July 19, 2019 9:19 pm|    Updated: July 19, 2019 9:19 pm

An Images

ছবিটি প্রতীকী

সুকুমার সরকার, ঢাকা: কিশোরী মেয়েকে লাগাতার ধর্ষণের অভিযোগ উঠল তারই বাবার বিরুদ্ধে। এই কুকর্মে অভিযুক্তের স্ত্রী মদত দিয়েছে বলেও অভিযোগ। ঘটনাটি ঘটেছে বাংলাদেশের পার্বত্য অঞ্চল খাগড়াছড়ি জেলার রামগড় এলাকায়। গত বৃহস্পতিবার এই বিষয়ে রামগড় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে কিশোরী। আর তারপর থেকেই পলাতক অভিযুক্ত আবুল কাশেম(৪৩)। তার খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন- রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিবের]

স্থানীয় মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী ওই কিশোরীর অভিযোগ, একটি ঘরে বাবা-মা আর অন্য ঘরে ছোট ভাইবোনদের সঙ্গে সে থাকত। গত ২ জুলাই রাতে সেই ঘরে ঢুকে জোর করে তাকে ধর্ষণ করে আবুল। এরপর থেকে প্রায় প্রতিদিনই ধর্ষণ করতে থাকে। বিষয়টি মাকে জানিয়েও কোনও লাভ হয়নি। বরং চেঁচামেচি যাতে না করে সেজন্য ধর্ষণের সময় মেয়েটির মুখ চেপে ধরত সে। এমনকী এই ঘটনার কথা কাউকে জানালে প্রাণে মারার হুমকিও দেয়। বাধ্য হয়ে এই ঘটনার কথা দিদিমাকে জানায় সে। কিন্তু, তাতেও কোনও লাভ হয়নি। তখন সমস্ত কথা কাকাকে জানায় কিশোরীটি। আর তার কাকা জানান স্থানীয় জনপ্রতিনিধিকে। এরপরই বৈঠক বসে ওই এলাকায়। সেই আলোচনায় নেওয়া সিদ্ধান্ত অনুযায়ী থানায় গিয়ে অভিযুক্তের নামে এফআইআর করে কিশোরী ও তার মা।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধি আবদুল হান্নান জানান, বৃহস্পতিবার মেয়েটির কাকা ওমর ফারুক স্থানীয় অঞ্চল সভাপতি কামালউদ্দিনকে সব কথা খুলে বলেন। এরপরই আলোচনায় বসেন গ্রামের লোকেরা। মেয়ের মাও অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করেন তাঁদের কাছে। পরে সেখান থেকে নেওয়া সিদ্ধান্ত অনুযায়ী থানায় অভিযোগ জানানো হয়।

[আরও পড়ুন- রোহিঙ্গা নির্যাতন ইস্যুতে বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক ফৌজদারি আদালতের প্রতিনিধি দল]

এপ্রসঙ্গে রামগড় থানার ওসি (তদন্ত) মহম্মদ মনির হোসেন বলেন, নির্যাতিতা ও তার মাকে আলাদাভাবে এবং সামনাসামনি জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এইসময় ওই কিশোরীটি একাধিকবার বাবার দ্বারা ধর্ষিতা হওয়ার কথা জানিয়েছে। তার ভিত্তিতে অভিযুক্ত আবুলকে গ্রেপ্তার করার চেষ্টা চলছে।

An Images
An Images
An Images An Images