৪ মাঘ  ১৪২৫  শনিবার ১৯ জানুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফিরে দেখা ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুকুমার সরকার, ঢাকা: টানা তৃতীয়বার সরকার গঠন করতে চলেছে আওয়ামি লিগ। রবিবার বাংলাদেশের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন হয়ে যাওয়ার পর নতুন মন্ত্রিসভা গঠন করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। নির্বাচন কমিশন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের গেজেট প্রকাশিত হওয়ার পরই হবে শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান৷ 

বাংলাদেশে রবিবার ছিল নির্বাচন৷ উঠেছে একাধিক অনিয়মের অভিযোগ৷তবে তা সরকারের গ্রহণযোগ্যতায় কোন প্রভাব ফেলবে না বলে জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম। আগামী দু-একদিনের মধ্যে নতুন সরকার গঠিত হতে পারে বলেও জানান তিনি৷ তবে মহাজোটের শরিক হলেও বিরোধী দল হিসেবে থাকছে জাতীয় পার্টি। সংবিধানের ৫৬ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, মন্ত্রিসভায় একজন প্রধানমন্ত্রী থাকবেন৷ রাষ্ট্রপতি তাঁকে নির্বাচন করবেন৷ সংসদের সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের মধ্যে কাউকে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে নির্বাচন করা হবে৷ এছাড়াও মন্ত্রিসভায় থাকা অন্যান্য মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী এবং উপমন্ত্রীও নির্বাচন করবেন রাষ্ট্রপতি৷ রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবি, আওয়ামি লিগ সভাপতি শেখ হাসিনাই নতুন সরকারের প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন, তা নিশ্চিত।

[দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসন, বেকারত্ব কমানো হাসিনার নয়া চ্যালেঞ্জ]

সংসদের ৩০০ আসনের মধ্যে ২৯৮টির ফল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। ঘোষিত ফল অনুযায়ী আওয়ামি লিগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট ২৮৮টি আসনে জয়ী হয়েছে৷মহাজোটে থাকা আওয়ামি জোট পেয়েছে ২৫৯টি ভোট৷ ২০ টি আসন পেয়েছে এরশাদের জাতীয় পার্টি৷ ওয়ার্কার্স পার্টি পেয়েছে ৩টি এবং জাসদ পেয়েছে ২টি ভোট৷ বিকল্পধারা ২, তরিকত ফেডারেশন  ওবং জেপি ১টি করে আসন পেয়েছে৷ বিএনপি-সহ জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট পেয়েছে মাত্র ৭টি আসন৷ ওই জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে থাকা বিএনপি পেয়েছে ৫টি এবং গণফোরাম ও ঐক্যপ্রক্রিয়া  পেয়েছে ১টি করে মোট ২টি আসন৷  তিনটি আসনে নির্দল প্রার্থীরা জয়ী  হয়েছেন। আর স্থগিত একটি আসনে বিএনপি-র প্রার্থী এগিয়ে রয়েছেন। 

[ঐতিহাসিক জয়ের পর মোদির শুভেচ্ছা বার্তায় আপ্লুত হাসিনা]

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি দশম জাতীয় সংসদের নির্বাচন হয়েছিল। ১২ জানুয়ারি গঠিত হয়েছিল নতুন মন্ত্রিসভা। তখন শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী করে ৪৮ সদস্যের মন্ত্রিসভা গঠন করা হয়েছিল। পরে কয়েক দফায় মন্ত্রিসভায় রদবদল করা হয়৷ শেষ পর্যন্ত মন্ত্রিসভায় ৫২ জন সদস্যকে রাখা হয়। ফের এরশাদের জাতীয় পার্টি (জাপ) বিরোধী দলের আসনে বসতে চলেছে। অবশ্য বর্তমান সংসদে বিরোধী দলের পাশাপাশি মন্ত্রিসভায়ও আছেন জাপা-র তিনজন সদস্য। আগের নির্বাচনে জাতীয় পার্টি ৩৪টি আসনে জয়ী হলেও এবার পেয়েছে ২২টি। বর্তমানে বিরোধী দলীয় নেতা হিসেবে আছেন এরশাদ পত্নী জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং