BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বুধবার ২ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

দৈনিক করোনা সংক্রমণে কলকাতাকে টেক্কা উত্তর ২৪ পরগনার, রাজ্যে ঊর্ধ্বমুখী সুস্থতার হার

Published by: Sayani Sen |    Posted: November 13, 2020 8:14 pm|    Updated: November 13, 2020 8:31 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গত কয়েকদিন ধরে ধারাবাহিকভাবে দৈনিক করোনা (Coronavirus) সংক্রমণের নিরিখে এগিয়ে ছিল কলকাতা। ঠিক তার পরেই ছিল উত্তর ২৪ পরগনা। তবে শুক্রবার ভাঙল সেই রেকর্ড। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্তের হিসাবে তিলোত্তমাকে পিছনে ফেলে দিল দক্ষিণবঙ্গের এই জেলা। স্বস্তি একটাই। বাংলায় একদিনে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা যেমন কমেছে তেমনই বেড়েছে সুস্থতার হারও। যা কঠিন পরিস্থিতিতে বিশেষজ্ঞ থেকে সাধারণ মানুষ সকলকেই অক্সিজেন জোগাচ্ছে।

রাজ্য স্বাস্থ্যদপ্তরের শুক্রবারের বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৮৩৫ জন। যা বৃহস্পতিবারের তুলনায় সামান্য কম। কলকাতাতেও (Kolkata) কমেছে দৈনিক সংক্রমিতের সংখ্যা। সেখানে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৩৯ জন। তবে উত্তর ২৪ পরগনার (North 24 Pargana) গ্রাফ ঊর্ধ্বমুখী। দক্ষিণবঙ্গের জেলায় একদিনে সংক্রমিত ৮৬০ জন। যার ফলে বাংলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৪ লক্ষ ২৪ হাজার ৬৭৫ জন। সংখ্যাতত্ত্বের বিচারে কোভিডে প্রাণহানির সংখ্যা নিতান্তই কম। তবে একেবারে কারও মৃত্যু হয়নি তা বলা যাবে না। একদিনে কোভিডের বলি হয়েছেন ৫১ জন। তার ফলে রাজ্যে মোট করোনায় প্রাণহানির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৭ হাজার ৫৫৭ জন।

[আরও পড়ুন: বীরভূম-মুর্শিদাবাদে এখনও বন্ধ লোকাল ট্রেন, ক্ষোভে ফুঁসছে আমজনতা]

এই কঠিন পরিস্থিতিতে স্বস্তি জোগাচ্ছে রাজ্যের সুস্থতার হার। প্রায় প্রতিদিনই একটু একটু করে বাড়ছে সুস্থতা। গত ২৪ ঘণ্টাতে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯০.৮০ শতাংশ। যা বৃহস্পতিবারের তুলনাতেও খানিকটা বেশি। একদিনে সুস্থ হয়েছেন ৪ হাজার ৪৬৮ জন। যা দৈনিক আক্রান্তের তুলনায় অনেকটাই বেশি। বর্তমানে বঙ্গে করোনা জয়ীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৩ লক্ষ ৮৫ হাজার ৬১৭ জন। একদিনে রাজ্যে কোভিড টেস্ট (Covid Test) হয়েছে ৪৪ হাজার ৩১২ জনের। এখনও পর্যন্ত মোট পরীক্ষা হয়েছে ৫১ লক্ষ ৩৬ হাজার ১২ জনের। তার মধ্যে ৮.২৭ শতাংশ রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।

করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা কমাতে যতটা প্রয়োজন বাড়িতে থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে মাসের পর মাস বাড়িতে থাকা কার্যত অসম্ভব। তাই বাধ্য হয়ে সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়ে বাড়ি থেকে বেরতে হচ্ছে সকলকে। এই পরিস্থিতিতে মাস্ক এবং স্যানিটাইজার ব্যবহারের মতো কোভিড সতর্কতার দিকে আমজনতাকে বিশেষ নজর দেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।  

[আরও পড়ুন: আয়ুর্বেদের গবেষণায় দেশে গ্লোবাল সেন্টার খুলছে WHO, খুশি বাংলার গবেষকরা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement