BREAKING NEWS

১৩  আষাঢ়  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

পেটের দায়ে কাঁকড়া ধরতে যাওয়াই কাল! সুন্দরবনে বাঘের হামলায় ফের প্রাণ গেল মৎস্যজীবীর

Published by: Sayani Sen |    Posted: May 29, 2022 5:20 pm|    Updated: May 29, 2022 5:20 pm

A fisherman killed by the attack of tiger in Sundarbans । Sangbad Pratidin

দেবব্রত মণ্ডল, বারুইপুর: ফের বাঘের হামলায় প্রাণ গেল মৎস্যজীবীর (Fisherman)। দক্ষিণ ২৪ পরগনার গোসাবা ব্লকের সুন্দরবন কোস্টাল থানার ঝিলা ৫ নম্বর জঙ্গলের বলখালির ঘটনা। ওই মৎস্যজীবীর কাছে বৈধ অনুমতি পত্র ছিল না বলেই জানা গিয়েছে।

বুধবারের বাজার থেকে চারজন মৎসজীবী ঝিলা ৫ নম্বর জঙ্গলের বলখালিতে কাঁকড়া ধরতে যান। সেই সময় একটি বাঘ হঠাৎ নৌকার সামনে ঝাঁপিয়ে পড়ে। সন্ন্যাসী মণ্ডল নামে এক মৎসজীবীকে ধরে নিয়ে জঙ্গলে ভিতরে চলে যায় বাঘটি (Royal Bengal Tiger)। সঙ্গে থাকা অপর তিন মৎসজীবী বাঘের সঙ্গে লড়াই করতে শুরু করেন। লাঠি, নৌকার হালই তাঁদের হাতিয়ার। মৎস্যজীবীদের হামলায় বাঘটি সন্ন্যাসীকে ছেড়ে পালিয়ে যায়। তবে শেষরক্ষা হয়নি। ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়।

[আরও পড়ুন: যেখানে সেখানে আধার কার্ডের জেরক্স জমা দেবেন না! নির্দেশিকা দিয়েও প্রত্যাহার কেন্দ্রের]

মৎস্যজীবীর দেহটি উদ্ধার করে গ্রামে নিয়ে যায়। মৎস্যজীবীর পরিবারের সকলে কান্নায় ভেঙে পড়েন। সন্ন্যাসী মণ্ডলের মৃত্যুর খবরে এলাকায় নামে শোকের ছায়া। সুন্দরবন টাইগার রিজার্ভের অধিকর্তা তাপস মণ্ডল বলেন, “ঘটনার খবর পেয়েছি। বাঘের আক্রমণে একজনের মৃত্যু হয়েছে। তবে ঠিক নির্দিষ্ট কোন জায়গায় হয়েছে সেটা এখনও পুরোপুরি পরিষ্কার নয়। তবে যাঁরা কাঁকড়া ধরতে গিয়েছিলেন, তাঁদের বৈধ কোন কাগজপত্র ছিল না। এমনিতেই এখন মাছ কাঁকড়া ধরার নিষেধ রয়েছে। আমরা পুরো বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি।”

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতেও বাঘের হামলায় প্রাণ হারান বেশ কয়েকজন মৎস্যজীবী। নদীর চরে কাঁকড়া ধরতে গিয়ে প্রাণহানি হয় তাঁদের। পেটের দায়ে জঙ্গলে হানা দিয়ে বারবার প্রাণহানির ঘটনায় একাধিক প্রশ্ন উঠছে। বনদপ্তরের গাফিলতি নাকি জীবিকার অভাবে এই ধরনের ঘটনা বারবার ঘটছে, তা নিয়ে চলছে জোর আলোচনা।

[আরও পড়ুন: কেরিয়ারে হোঁচট খাওয়ার ভয়? বিয়ের কথা ৩ মাস গোপনে রেখেছিলেন প্রয়াত মডেল মঞ্জুষা]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে