৩১ ভাদ্র  ১৪২৬  বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

আকাশনীল ভট্টাচার্য, বারাকপুর: শান্তির আরজি নিয়ে ভাটপাড়া পরিদর্শনে গেলেন বিশিষ্টজনেরা৷ বৃহস্পতিবার অপর্ণা সেন, কৌশিক সেন এবং চন্দন সেনরা সন্ত্রাসকবলিত এলাকায় যান৷ সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথাও বলেন তাঁরা৷ পরিস্থিতি সরেজমিনে খতিয়ে দেখার পর অপর্ণা সেনের আক্ষেপ, ‘রাজনৈতিক দলগুলি শকুনের মতো খেয়োখেয়ি করছে৷’

[ আরও পড়ুন: সামাজিক মতে বিয়ে করতে হবে, প্রেমিকের বাড়ির সামনে আমরণ অনশনে তরুণী]

গত বৃহস্পতিবার তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষের দিনই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ভাটপাড়া৷ মৃত্যু হয় ধরমবীর সাউ এবং রামবাবু সাউ নামে দুজনের৷ ওই ঘটনার পর সপ্তাহখানেক কেটে গিয়েছে৷ তবে উত্তপ্ত ভাটপাড়া এখনও পুরোপুরি স্বাভাবিক ছন্দে ফিরতে পারেনি৷ এই পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বিগ্ন রাজ্যের বুদ্ধিজীবীরা৷ তাই শান্তি ফেরানোর আরজি নিয়ে বৃহস্পতিবার অপর্ণা সেন, কৌশিক সেন এবং চন্দন সেনেরা ঘটনাস্থলে যান৷ কাঁকিনাড়া বাজার ঘুরে দেখেন তাঁরা৷ মাঝে সাংবাদিকদের উপর খানিকটা মেজাজও হারিয়ে ফেলেন অপর্ণা সেন৷ ওইদিনের ঘটনা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্যের খোঁজে বাড়ি বাড়ি ঘুরে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলেন বুদ্ধিজীবীরা৷ ভোটের পর থেকে সংঘর্ষ লেগেই রয়েছে৷ পরিস্থিতি অশান্ত৷ গুলি-বোমার শব্দে রীতিমতো সন্ত্রস্ত এলাকাবাসী৷

তবে বৃহস্পতিবার বুদ্ধিজীবীদের দেখে কিছুটা হলেও যেন আশ্বস্ত হয়েছেন তাঁরা৷ নিজেদের পরিস্থিতির কথা বলতে গিয়ে অপর্ণা সেনের সামনে রীতিমতো হাউহাউ করে কেঁদে ফেলেন সন্ত্রাসকবলিত এলাকার এক বাসিন্দা৷ রাজনৈতিক নেতাকর্মীরা অত্যাচার করছে বলেই অভিযোগ করেন ওই মহিলা৷

[ আরও পড়ুন: মাদক বিরোধী দিবসের মিছিলে মদ্যপ অবস্থায় তাণ্ডব! বরখাস্ত সোনারপুরের আইসি]

ভাটপাড়ার বিধায়ক ছিলেন তৃণমূলের অর্জুন সিং৷ তাঁর আমলে এলাকার এতটুকু উন্নতি হয়নি বলেই অভিযোগ অপর্ণা সেনের৷ তিনি বলেন, ‘‘তৃণমূল এবং বিজেপি সংঘর্ষ বাঁধিয়েছে৷ তবে বর্তমানে সেটিকে হিন্দু-মুসলমান সংঘাত বলে ব্যাখ্যা করার চেষ্টা হচ্ছে৷ এলাকায় দোকানপাট বন্ধ৷ স্কুল খুলছে না৷ তা সত্ত্বেও রাজনৈতিক দলগুলি শকুনের মতো খেয়োখেয়ি করছে৷’’ যেভাবেই হোক এলাকায় শান্তি ফেরানোর আরজি জানিয়েছেন নাট্যকার চন্দন সেন৷ভাটপাড়া পরিদর্শনের পর বারাকপুর কমিশনারেটের কমিশনার মনোজ ভার্মার সঙ্গে দেখা করে স্মারকলিপি জমা দেন বুদ্ধিজীবীরা৷ এ বিষয়ে রাজ্যপাল এবং মুখ্যমন্ত্রীর কাছে রিপোর্ট পেশের কথাও জানিয়েছেন তাঁরা৷ 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং