২৭ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  শনিবার ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

গৌতম ব্রহ্ম: ফের ডেঙ্গুতে আক্রান্ত মৃত্যু হল এক ব্যক্তির। নাম সেবাব্রত সাহা। বয়স ৩৯ বছর। কয়েকদিন ধরে ডেঙ্গুর উপসর্গ নিয়ে তিনি কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি ছিলেন। শুক্রবার বিকেলে তাঁর মৃত্যু হয়।

উত্তর ২৪ পরগনার রহড়ার বাসিন্দা সেবব্রতবাবু। বেশ কিছুদিন ধরে জ্বরে ভুগছিলেন তিনি। বৃহস্পতিবার জ্বর নিয়েই হাসপাতালে ভরতি হন। কিন্তু হাসপাতালের শুশ্রুষার পরও শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়নি। শুক্রবার সকাল ৭টা নাগাদ হাসপাতালেই তাঁর মৃত্যু হয়। ডেথ সার্টিফিকেটে লেখা হয়েছে, ডেঙ্গুর শকের কারণে মৃত্যু হয়েছে রহড়ার সেবব্রত সাহার। তাঁর মৃত্যুতে পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। এই নিয়ে রাজ্যে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে প্রায় কুড়িরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যাও বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে।

[ আরও পড়ুন: বারাণসীকে পথ দেখাচ্ছে বাংলা, বেলুড়ের কলেজে বেদান্ত পড়াচ্ছেন শামিম আর সংস্কৃত রমজান ]

এ বছর ডেঙ্গু অদ্ভুত উপসর্গ নিয়ে হাজির হয়েছে। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে প্লেটলেট কমছে না। কিন্তু রোগীর সেপসিস হয়ে যাচ্ছে। বিশেষজ্ঞদের পর্যবেক্ষণ, অনেক সময় ভাইরাস কিছু ব্যাকটেরিয়াকে দোসর করে। যাকে বলে সুপার অ্যাডেড ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন বলে। এক্ষেত্রে সেই ব্যাকটেরিয়াকে রক্ত পরীক্ষা বা সোয়াব টেস্টের মাধ্যমে চিহ্নিত করে অ্যান্টিবায়োটিক দিতে হবে। না হলে সংক্রমণ বিভিন্ন অঙ্গকে বিকল করে দিতে পারে। বিশিষ্ট মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ড. অরিন্দম বিশ্বাস জানিয়েছেন, ডেঙ্গু রোগীর শরীরে অনেক সময় এই ব্যাকটেরিয়া বা জীবাণু হাসপাতাল থেকে প্রবেশ করে। এই জীবাণু ভেন্টিলেটর, নেবুলাইজারের জলে থাকতে পারে। অর্থাৎ একটা রোগের মোকাবিলা করতে গিয়ে অন্য রোগের শিকার হতে পারে রোগী। তাই ডাক্তার না বললে ডেঙ্গু রোগীকে হাসপাতালে ভরতি করানো উচিত নয়। সেবাব্রত সাহার ক্ষেত্রে কোনও সেকেন্ডারি ইনফেকশন বা সুপার অ্যাডেড ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন হয়েছে কিনা, তা অবশ্য রাত পর্যন্ত ডাক্তাররা পরিষ্কার করে বলতে পারেননি।

[ আরও পড়ুন: লেগিংস বিতর্কের জেরে বন্ধ হয়ে গেল বোলপুরের স্কুল, কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে হুমকির অভিযোগ ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং