BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

পরকীয়ায় বাধা দেওয়ায় স্ত্রীকে খাদে ফেলে খুনের পর দুর্ঘটনার গল্প! কী পরিণতি হল অভিযুক্তের?

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: September 12, 2020 2:12 pm|    Updated: September 12, 2020 4:32 pm

An Images

শান্তনু কর, জলপাইগুড়ি: পরকীয়ায় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন স্ত্রী। সেই কারণেই ঘুরতে গিয়ে স্ত্রীকে খাদে ফেলে হত্যার অভিযোগ উঠল স্বামীর বিরুদ্ধে। ওই বধূর মৃত্যুর খবর প্রকাশ্যে আসতেই অভিযুক্ত প্রদীপ বিশ্বাসকে গণপিটুনি দেয় স্থানীয়রা। গুরুতর জখম অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অভিযুক্ত। ঘটনাটি ঘটেছে জলপাইগুড়ির (Jalpaiguri) ময়নাগুড়ি লক্ষ্মীরহাট সংলগ্ন পাইটকাখোঁচা এলাকায়।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, অভিযুক্ত প্রদীপের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে অন্য এক মহিলার সম্পর্ক রয়েছে। ফলে স্ত্রী রেণুর সঙ্গে দাম্পত্য জীবনে সমস্যা লেগেই ছিল। এই পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার স্ত্রীকে নিয়ে ঘুরতে যায় প্রদীপ। অভিযোগ, সেবকের কাছে পাহাড় থেকে স্ত্রীকে খাদে ফেলে দেয় সে। বাড়ি ফিরে সকলকে জানায় গাড়ি দুর্ঘটনায় তার স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে। এই খবর পেতেই ক্ষোভে ফেটে পড়ে গোটা গ্রাম। শুক্রবার রাতে এলাকার বাসিন্দারা অভিযুক্তের বাড়িতে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়। বেধড়ক মারধর করা হয় প্রদীপকে।

[আরও পড়ুন: আসানসোল পুরনিগম নিয়ে ভুয়ো পোস্ট, ধৃত বিজেপি নেতা, প্রতিবাদ করে গ্রেপ্তার সাংসদ সৌমিত্র]

খবর পেয়ে ময়নাগুড়ি থানার আইসি অসীম গোপের নেতৃত্বে বিশাল পুলিশ বাহিনী যায় ওই গ্রামে। পুলিশের সামনেও মারধর করা হয় অভিযুক্তকে। দীর্ঘক্ষণ পর কোনওক্রমে আহত ওই যুবককে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায় পুলিশ। বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসা চলছে তার। ঘটনার পর দীর্ঘক্ষণ পেরিয়ে গেলেও এখনও থমথমে এলাকা। গ্রামে মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী।

[আরও পড়ুন: পুলিশ হেফাজতে ইটাহারের বিজেপি কর্মীর মৃত্যুর তদন্তে সিআইডি, CBI তদন্তের দাবি নিহতের মায়ের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement