BREAKING NEWS

১১ কার্তিক  ১৪২৭  বুধবার ২৮ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে বাধা, পথের কাঁটা সরাতে বাপের বাড়িতে ডেকে স্বামীকে ‘খুন’ স্ত্রীর

Published by: Sayani Sen |    Posted: September 21, 2020 9:04 pm|    Updated: September 21, 2020 9:04 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ব্যুরো: কন্যাসন্তান অসুস্থ বলে ডেকে পাঠিয়ে গুন্ডাবাহিনী দিয়ে যুবককে তুলে নিয়ে যায় শ্বশুরবাড়ির লোকজন। শ্বশুরবাড়িতে নিয়ে গিয়ে ব্যাপক মারধর করা হয়। তারপর বিষ খাইয়ে দেওয়া হয়। কয়েকদিন যমে মানুষে লড়াইয়ের পর রবিবার বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (Burdwan Medical College & Hospital) মৃত্যু হয় শাহজাহান শেখ নামে ওই যুবকের। তাঁর বাড়ি পূর্ব বর্ধমানের আউশগ্রাম থানার উক্তা গ্রামে। মৃতের দাদা গোলাম মোর্তুজা শেখ ঘটনার বিষয়ে বীরভূমের বোলপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। বোলপুর থানার ঘিদহ গ্রামের বাসিন্দা মৃতের শ্বশুর-সহ ৭ জনের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করা হয়। অভিযুক্তদের মধ্যে মৃতের স্ত্রী ফারজানা বিবির নামও রয়েছে।

শাহজাহানের সঙ্গে বছর সাতেক আগে ফারজানার বিয়ে হয়। তাঁদের একটি কন্যাসন্তানও রয়েছে। গোলাম মোর্তুজা জানিয়েছেন, কিছুদিন আগে ফারজানার বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের (Extra Marital Affair) কথা জেনে ফেলে তাঁর ভাই। এই নিয়ে গোলমালের সূত্রপাত। ফারজানা বাপের বাড়ি চলে যায়। বিবাহবিচ্ছেদ ঘটাতে কয়েকবার সালিশি সভাও হয়। মোটা অঙ্কের টাকা দিতেও রাজি হয়ে যান তাঁরা। কিন্তু ফারজানার বাপের বাড়ির লোকজন তা মানেনি।

মৃতের পরিজনদের দাবি, গত ১৫ সেপ্টেম্বর মেয়ে অসুস্থ বলে শাহজাহানকে বোলপুরে ডেকে পাঠায় ফারজানা। তারপর সেখান থেকে তাকে গুন্ডাবাহিনী দিয়ে অপহরণ করে ঘিদহ গ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাকে ব্যাপক মারধর করা হয়। এমনকী কোনও কাগজে তাকে দিয়ে জোর করে সই করিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করা হলে শাহজাহান তা করতে চাননি। সেই কারণে তার মুখে বিষ ঢেলে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয় বলে মোর্তুজা জানান। কোনওক্রমে শাহজাহান আত্মীয়দের ফোন করলে তাঁরা তাঁকে উদ্ধার করে প্রথমে বোলপুরের সিয়ান হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখান থেকে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়। রবিবার সেখানে মারা যান শাহজাহান।

[আরও পড়ুন: স্বস্তি দিয়ে রাজ্যে বাড়ছে সুস্থতার হার, মোট করোনা জয়ীর সংখ্যা ২ লক্ষের কাছাকাছি]

সোমবার বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মৃতদেহের ময়নাতদন্ত হয়। অভিযুক্তদের সকলকে গ্রেপ্তারের দাবিতে এদিন বিকেলে আউশগ্রামের গোবিন্দপুর বাসস্ট্যান্ডে ২বি জাতীয় সড়ক অবরোধ করেন মৃতের আত্মীয়রা। তাঁদের আরও অভিযোগ, ময়নাতদন্তের পর দেহ ছাড়তেও দেরি করা হয়েছে মর্গ থেকে। রাস্তার উপর ট্রাক্টরকে আড়াআড়িভাবে দাঁড় করিয়ে দিয়ে প্রায় ২ ঘণ্টা অবরোধ চলে। পুলিশ অবরোধ তুলতে গেলে বিক্ষোভের মুখে পড়ে। সন্ধেয় মৃতদেহ নিয়ে এলাকায় পৌঁছনোর পর পুলিশি আশ্বাসে অবরোধ ওঠে। বর্ধমান-সিউড়ি (২বি জাতীয় সড়ক) রোডের মতো ব্যস্ততম রাস্তায় দীর্ঘক্ষণ অবরোধের জেরে প্রচুর যানবাহন আটকে পড়েছিল। বীরভূম জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ১৬ সেপ্টেম্বর বোলপুর থানায় লিখিত অভিযোগ হয়েছে। তখন খুনের চেষ্টার ধারা-সহ অন্যান্য ধারায় মামলা রুজু হয়। অভিযোগের ভিত্তিতে শাহজাহানের শ্বশুরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকিরা পলাতক বলে পুলিশ জানিয়েছে। এদিকে শাহজাহানের মৃত্যু হওয়ায় ওই মামলায় খুনের ধারাও যুক্ত করা হবে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: ‘বাংলাকে দু’টুকরো করতে চাইছে বিজেপি’, সাংসদ রাজু বিস্তার মন্তব্যের বিরুদ্ধে সরব বিরোধীরা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement