BREAKING NEWS

২৬  শ্রাবণ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ১৬ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

স্নানের গোপন ভিডিও ভাইরাল করার হুমকি, অপমানে আত্মঘাতী তরুণী, গ্রেপ্তার প্রেমিক

Published by: Sayani Sen |    Posted: April 28, 2022 11:48 am|    Updated: April 28, 2022 11:50 am

A woman committed suicide in Bagdah । Sangbad Pratidin

জ্যোতি চক্রবর্তী, বনগাঁ: স্নানের গোপন ভিডিও ভাইরাল করার হুমকি। প্রতিবাদ করলে কপালে জুটত মারধর। অপমানে আত্মঘাতী তরুণী। নিজের ঘর থেকে গলায় ওড়না জড়ানো অবস্থায় তরুণীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করা হয়। উত্তর ২৪ পরগনার বাগদা থানার পাথুরিয়া গির্জার ঘটনা। পুলিশ দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে। তরুণীর ঘর থেকে সুইসাইড নোট উদ্ধার হয়েছে। তরুণীর পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে প্রেমিক সাউমিন খানকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বছর বাইশের মৌসুমী সরকারের সঙ্গে সাউমিন খানের সম্পর্ক তৈরি হয়। সাউমিন ও মৌসুমীর বাবা কর্মসূত্রে বিদেশে থাকেন৷ দুই পরিবারের মধ্যে দীর্ঘদিনের পরিচয়। মৌসুমীর দুই দিদি বিবাহিত। বর্তমানে মৌসুমী মায়ের সঙ্গে পাথুরিয়ার বাড়িতে থাকতেন। গোপালনগর থানার সুন্দরপুর এলাকায় বাস সাউমিনের। অভিযুক্ত যুবকের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয়৷ বেশিদিন সে কথা গোপন ছিল না। তাদের সম্পর্কের কথা দুটি পরিবারের সদস্যরা জানতে পারেন। তরুণীর পরিবারের অভিযোগ, ওই যুবকের পরিবারের লোকেরা মৌসুমীর উপর মানসিক অত্যাচার করত। সে কারণে দিনকয়েক মানসিক অবসাদেও ভুগছিলেন মৌসুমী। মৌসুমীর দিদির দাবি, বোনের স্নান করার গোপন ভিডিও তুলে রেখেছিল সাউমিন। তা দেখিয়েই জোর করে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি করে সে। বোন সম্পর্কে জড়াতে না চাওয়ায় অত্যাচার করত। মারধর করত সে। স্নানের ভিডিও ভাইরাল করার হুমকিও দিত সাউমিন।

[আরও পড়ুন: যৌন নির্যাতনের বিচার না পেয়ে আত্মঘাতী নাবালিকা! মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারস্থ বারাসতের পরিবার]

সোমবার দুপুরে মৌসুমীর মা রান্না করছিলেন। সে সময় মৌসুমী ঘরে একাই ছিল। হঠাৎ বাড়িতে কর্মরত রাজমিস্ত্রী তরুণী ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান। চিৎকার করতে শুরু করেন৷ প্রতিবেশীরা দৌড়ে আসে। তরুণীকে উদ্ধার করা হয়। তাঁকে বনগাঁ মহাকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসকরা জানান মৃত্যু হয়েছে তাঁর। এরপর পুলিশ তরুণীর বাড়িতে যায়। তরুণীর ঘর থেকে উদ্ধার হওয়া একটি সুইসাইড নোট পুলিশের হাতে তুলে নেন আত্মঘাতীর মা। তিনি বলেন, “আমার মেয়ের সঙ্গে সুন্দরপুরের ওই যুবক প্রেমের সম্পর্ক তৈরি করে। যুবকের বাবা-মা নিয়মিত অপমান করত মেয়েকে। দিনকয়েক আগে ওই যুবক আমার মেয়েকে মারধর করেছিল। সুইসাইড নোটে তার মৃত্যুর কারণ হিসাবে যুবকের বাবা-মাকেই দায়ী করেছে মেয়ে।”

মঙ্গলবার বাগদা থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করে। বুধবার গভীর রাতে অভিযুক্ত প্রেমিক সাউমিন খানকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, প্রেমঘটিত কারণে আত্মহত্যা করেছেন তরুণী। দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন মৃতার পরিজনেরা।

[আরও পড়ুন: যাদুঘরে মহিলা কর্মীর ‘শ্লীলতাহানি’! সহকর্মীর বিরুদ্ধে নিউ মার্কেট থানায় অভিযোগ দায়ের]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে