BREAKING NEWS

২১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ৪ জুন ২০২০ 

Advertisement

সন্তান প্রসব করতে ৪ ঘণ্টা কাঁধে চেপে সমতলে, আলিপুরদুয়ারের মেয়েকে কুর্নিশ নেটিজেনদের

Published by: Bishakha Pal |    Posted: August 24, 2019 9:33 am|    Updated: August 24, 2019 9:36 am

An Images

রাজকুমার, আলিপুরদুয়ার: রীতিমতো গায়ে কাঁটা দেওয়ার মতো ঘটনা। বক্সা পাহাড় থেকে ৪ ঘণ্টা কাঁধে বয়ে গর্ভবতী মাকে নামানো হল সমতলের হাসপাতালে। পরে কালচিনির লতাবাড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে শিশুর স্বাভাবিক প্রসব করেন সেই মহিলা। নবজাতকের ওজন হয় ৩ কেজি ৪০০ গ্রাম। ৩০ বছরের দেমকান দুকপা ও তাঁর সন্তান দু’জনেই এখন সুস্থ। এই ঘটনায় খুশিতে সোশ্যাল মিডিয়াতে ছবি পোস্ট করেন আলিপুরদুয়ার জেলার উপমুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক-২ সুবর্ণ গোস্বামী। আর বক্সা পাহাড় চূড়ার আদমা গ্রাম থেকে গর্ভবতী মাকে কাধে বয়ে নামিয়ে আনার সেই ছবি এখন নেট দুনিয়ায় ভাইরাল।

আলিপুরদুয়ার জেলার উপমুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক-২ সুবর্ণ গোস্বামি বলেন, “ফ্যামিলি প্ল্যানিং অ্যাসোসিয়েশন নামে একটি সংস্থা স্বাস্থ্য দপ্তরের সাহায্যে বক্সা পাহাড়ে স্বাস্থ্য ও চিকিৎসার কাজ করে। তাদের প্রচেষ্টাতেই এই গর্ভবতী মাকে প্রত্যন্ত গ্রাম আদমা থেকে সমতলের হাসপাতালে নামানো সম্ভব হয়েছে। তাদের আমি কুর্নিশ জানাচ্ছি। প্রত্যন্ত এলাকার জন্য সেই সব এলাকা থেকে মায়েরা হাসপাতালে এসে প্রসব করাতে চান না। এই ঘটনা প্রতিষ্ঠানিক প্রসবে অন্যতম মাত্রা যোগ করল।”

[ আরও পড়ুন: ১১ বছর নিখোঁজ, তামিল যুবককে বাড়ি ফেরালেন হ্যাম রেডিও অপারেটররা ]

উল্লেখ্য আলিপুরদুয়ার জেলার কালচিনি ব্লকে ভুটান সীমান্তে বক্সা পাহাড় অবস্থিত। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২৬০০ ফুট উঁচুতে বক্সা পাহাড়ের বিভিন্ন এলাকায় ১৩ টি গ্রাম রয়েছে। বক্সা পাহাড়ের নিচে সান্তালাবাড়ি থেকে ওপরের রাস্তায় কোনও যানবাহন যায় না। ফলে সেখানে পৌছানোর একমাত্র উপায় পায়ে হেটে পাহাড় ডিঙিয়ে চলা। আদমা বক্সা পাহাড়ের একেবারে চূড়ায় অবস্থিত। ফলে এই দুর্গম এলাকা থেকে মহিলাকে প্রতিষ্ঠানিক প্রসব করানোয় এখন প্রশংসা কুড়োচ্ছে ফ্যামিলি প্ল্যানিং অ্যাসোসিয়েশন অফ ইন্ডিয়া নামে সংস্থাটি।

এই সংস্থার কালচিনি ব্রাঞ্চের জেনারেল ম্যানেজার তুষার চক্রবর্তী বলেন, “আমরা দীর্ঘদিন থেকে বক্সা পাহাড়ের প্রত্যন্ত এলাকায় এই কাজ করছি। আমরা চাইছি বক্সা পাহাড়ে ১০০ শতাংশ প্রতিষ্ঠানিক ডেলিভারি। এখানকার সকল মায়েরা যাতে হাসপাতালে এসে প্রসব করেন। এছাড়া এই গ্রামের সব শিশুদের টিকাকরণের আওতায় আনা আমাদের লক্ষ্য। আমরা আমাদের কাজ করছি। এই মা যিনি ৪ ঘণ্টা এভাবে কাধে চেপে হাসপাতালে এসে নর্মালভাবে শিশুর জন্ম দিয়েছেন তার সাহসিকতাকে কুর্নিশ না জানিয়ে পারছি না।”

[ আরও পড়ুন: দুয়ারে এসেছে গোপাল, জন্মাষ্টমীর দিন বহুরূপীতেই মজল ভক্তদের মন ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement