BREAKING NEWS

১৯  আষাঢ়  ১৪২৯  সোমবার ৪ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

রঘুনাথপুরে ঘোরাঘুরি সশস্ত্র দুষ্কৃতীদের! ভাইরাল ভিডিও ঘিরে তুঙ্গে উত্তেজনা

Published by: Tanujit Das |    Posted: May 12, 2019 4:10 pm|    Updated: May 12, 2019 4:10 pm

armed persons showing in Purulia, video goes viral

সুমিত বিশ্বাস, পুরুলিয়া: মুখ ঢাকা অবস্থায়, হাতে অত্যাধুনিক আগ্নেয়াস্ত্র-সহ দাঁড়িয়ে রয়েছে একদল লোক৷ এক ঝলক দেখে বোঝার উপায় নেই জায়গাটা কোনও জঙ্গি ঘাঁটি নাকি পশ্চিমবঙ্গ৷ রবিবার সকাল থেকে এমনই একটি বিতর্কিত ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়৷ যাকে ঘিরে তুঙ্গে পুরুলিয়ার রাজনৈতিক তরজা৷ সূত্রের খবর, ভিডিওটি বাঁকুড়া লোকসভার কেন্দ্রের অন্তর্গত পুরুলিয়ার রঘুনাথপুরের৷ অভিযোগ, আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র তেওয়ারির নেতৃত্বে একদল বহিরাগত দুষ্কৃতী সেখান থেকে বাঁকুড়ায় ঢোকার প্রস্তুতি নিচ্ছিল৷ যদিও এই ভিডিওকে ভুঁয়ো বলেই দাবি করেছেন পুরুলিয়ার পুলিশ সুপার৷

[আরও পড়ুন: বুথ পরিদর্শনে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে দিলীপ ঘোষ, কাঠগড়ায় তৃণমূল ]

জানা গিয়েছে, শনিবারই সোশ্যাল মিডিয়ায় এমন আশঙ্কা প্রকাশ করে অভিযোগ করেছিলেন আসানসোলের বিদায়ী সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়৷ তিনি জানিয়েছিলেন, আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র তেওয়ারির নেতৃত্বে একদল দুষ্কৃতী প্রচুর অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে আসানসোলে ঘাঁটি গেড়েছে৷ ভোটের দিন এলাকায় সন্ত্রাস তৈরি করতে তাঁদের রঘুনাথপুরে ভোট করতে পাঠানো হবে৷ সূত্রে খবর, এবিষয়ে শনিবার নির্বাচন কমিশনের কাছেও অভিযোগ দায়ের করে বিজেপি৷ রাজ্যের বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবের কাছে অভিযোগ জানানো হয়৷ সেই অভিযোগের ভিত্তিতে ওইদিন রাতেই পুরুলিয়ার একাধিক হোটেল, লজে তল্লাশি চালায় পুলিশ৷ কিন্তু রবিবার সকালেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে এই আতঙ্কের ভিডিও৷ যেখানে দেখা যায় একদল মানুষ কার্বাইনের মতো অত্যাধুনিক অস্ত্র নিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে৷ প্রশ্নের উত্তরে তাঁরা জানায়, ভোট করাতে বাইরে থেকে তাঁদের এরাজ্যে নিয়ে আসা হয়েছে৷ ভোট করাতে তাঁরা রঘুনাথপুরে যাবে৷ তবে কোন দলের তরফে তাঁদের নিয়ে আসা হয়েছে তা জানায়নি ওই অজ্ঞাত পরিচয়ের দুষ্কৃতীরা৷

[আরও পড়ুন: কেশপুরে বাজেয়াপ্ত ভারতী ঘোষের গাড়ি, প্রতিবাদে মন্দিরে অবস্থান বিক্ষোভ বিজেপি প্রার্থীর ]

কেবল জানা গিয়েছে, ভিডিওটি আসানসোলের খনি এলাকার নিতুরিয়া অঞ্চলে শুট করা হয়েছে৷ প্রশাসন সূত্রে খবর, ঘটনার খবর পেয়েই এলাকায়, বিশেষ করে সীমান্তবর্তী এলাকায় নাকা চেকিংয়ের প্রক্রিয়া বাড়িয়েছে পুলিশ৷ বিশেষ নজর দেওয়া হচ্ছে পুরুলিয়া-বর্ধমান, দামোদরের পাশে সুভাষ সেতুতে৷ যদিও তাঁদের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ, অস্বীকার করেছে তৃণমূল৷ দলের জেলা সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী জানান, এই ঘটনার সঙ্গে তৃণমূলের কোনও যোগ নেই৷ তাঁর বিরুদ্ধে বাবুল সুপ্রিয় যে অভিযোগ করেছে তা উড়িয়ে দিয়েছেন আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র তেওয়ারিও৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে