BREAKING NEWS

১২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

জ্বালানির ভ্যাট না কমায় বিরক্ত, একজোড়া ঘোড়া কিনলেন বাংলার যুবক

Published by: Sayani Sen |    Posted: November 25, 2021 10:39 pm|    Updated: November 25, 2021 10:39 pm

Bengal youth buys two horses as ther protest of petrol & diesel price hike । Sangbad Pratidin

দিব্যেন্দু মজুমদার, হুগলি: কেন্দ্র পেট্রল-ডিজেলের শুল্কে ছাড় দিয়েছে। তবে এখনও ভ্যাট কমায়নি রাজ্য। তার ফলে বিপাকে আমজনতা। এবার পেট্রলের খরচ বাঁচাতে দু’টি ঘোড়া কিনে ফেললেন ব্যান্ডেলের যুবক অলোক কুমার রায়। নিত্যদিনের যাতায়াতের সঙ্গী হিসেবে ঘোড়াকেই বেছে নিয়েছেন তিনি। পেট্রলের খরচ বাঁচানোর পাশাপাশি বিশ্ব উষ্ণায়নের হাত থেকে পৃথিবীকে বাঁচানোরও বার্তা দিয়েছেন তিনি। আর এই যুবককে দেখেই স্থানীয়রা অত্যন্ত উৎসাহী। তাঁর কাছে অশ্বারোহণের প্রশিক্ষণ নিতে ছুটে আসছেন প্রত্যেকে।

হুগলির চুঁচুড়া থানার ব্যান্ডেলের বলগড় রোডের বাসিন্দা অলোক। প্রাক্তন সেনা কর্মী দীপক কুমার রায় ও মিনতি রায়ের ছেলে তিনি। অলোক প্রায় আট বছর কর্মসূত্রে সৌদি আরবে থাকতেন। সেখানে একটি নাম করা কোম্পানির হেভি ইকুইপমেন্ট অপারেটর ছিলেন তিনি। করোনাকালে গত বছর ব্যান্ডেলের বাড়িতে ফিরে আসেন। কিন্তু সৌদি আরবে থাকাকালীন ঘোড়ায় চড়া শিখেছিলেন। মোটরবাইকপ্রেমী অলোকের একাধিক বাইক রয়েছে। তাই  জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধিতে কার্যত নাকাল যুবক।

[আরও পড়ুন: সেক্সটরশনের ফাঁদে পা দিলেই খোয়াতে হচ্ছে টাকা! ব্যাপারটা কী?]

এই পরিস্থিতিতে মাথায় অন্য ভাবনা আসে তাঁর। পরিবেশ সচেতন অলোক ঘোড়া কেনার কথা ভাবেন। সেই চিন্তাভাবনার ফলশ্রুতি হিসেবে চলতি বছরের জন্মাষ্টমীর দিন কলকাতার হেস্টিংস থেকে কাটিয়াওয়ারা প্রজাতির ঘোড়া কেনেন। খরচ পড়ে ২ লক্ষ ২০ হাজার টাকা। আদর করে ঘোড়ার নাম রাখেন রাজু। চলতি মাসের কালীপুজোর দিন হেস্টিংস থেকে সাড়ে ৩ লক্ষ টাকা দিয়ে আরও একটি ঘোড়া কেনেন। তার পোশাকি নাম রাখেন মুসকান। পেট্রলের কিনতে যে টাকা খরচ হত সেই টাকা প্রিয় ঘোড়াদের খাওয়া খরচ হিসাবে ব্যয় করেন অলোক। রাজুর পিঠে চড়ে ব্যান্ডেলের বিভিন্ন এলাকায় যান। প্রয়োজনীয় কাজ সারেন।

ব্যান্ডেলের রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় অলোকের ঘোড়ার টগবগ শব্দ শুনে অনেকেই রীতিমতো অবাক হয়ে যান। ঘোড়া চড়ার প্রশিক্ষণ নিতে আসছেন অনেকেই। অলোক জানান, “রোজ বাইকের তেলের খরচ লাগত ২৫০ টাকা। শুধু তাই নয় এই বাইক থেকে পরিবেশের দূষণ হত। তাই ভাবলাম একটা সুস্থ ঘোড়ার পিছনে যদি খাওয়ার খরচ হিসেবে ওই টাকা খরচ করা যায় তাহলে পরিবেশ দূষণ এবং উষ্ণায়নের হাত থেকে বাঁচবে পৃথিবী।” তাই শেষমেশ এই সিদ্ধান্ত নেন অলোক। বর্তমানে অনেকেই অলোকের কাছে ঘোড়ায় চড়ার প্রশিক্ষণ নেওয়ার আবদার জানাতে শুরু করেছেন। আবদার শুনে বেজায় খুশি অলোকও।

[আরও পড়ুন: ‘অন্যের রান্নাঘরে যৌন মিলন করেছিলাম’, নুসরতের শোয়ে গোপন কথা ফাঁস ঋতাভরীর]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে