৭ মাঘ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২১ জানুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

গরু ও কয়লা পাচার কাণ্ডে রাজ্যে সিবিআই হানা, তল্লাশি ৩ ব্যবসায়ীর বাড়িতে

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: December 31, 2020 10:06 am|    Updated: December 31, 2020 1:31 pm

An Images

সুব্রত বিশ্বাস: কয়লা ও গরু পাচার নিয়ে সরগরম রাজ্য রাজনীতি। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের আগে এই দুই মামলার তদন্তে অত্যন্ত সক্রিয় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাগুলি। গরু পাচারচক্রের রাঘব বোয়ালদের কাবু করতে বৃহস্পতিবার ব্যবসায়ী বিনয় মিশ্রর বাড়িতে তল্লাশি অভিযান চালায় সিবিআই। রাসবিহারী ও চেতলায় ওই ব্যবসায়ীর ২টি বাড়িতে হানা দেন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাটির গোয়েন্দারা।

[আরও পড়ুন: ‘শুভেন্দুর জন্য গঙ্গাপারের একটি ভোটও পাবে না তৃণমূল’, আশাবাদী দিলীপ]

সিবিআই সূত্রে খবর, গরু পাচারের বেআইনি কারবারের টাকা নির্দিষ্ট কয়েকজন প্রভাবশালীর কাছে পৌঁছে দিতেন বিনয় মিশ্র। এই অভিযোগের সপক্ষে একাধিক সাক্ষীর বয়ানও রয়েছে বলে দাবি তদন্তকারীদের। এদিকে, আজ তল্লাশি অভিযানের সময় বিনয়কে বাড়িতে পাওয়া যায়নি। কেন্দ্র-রাজ্য সংঘাতের আবহে কোনও আইনি জটিলতা এড়াতে রীতিমতো আদালতের পরোয়ানা নিয়ে এই তল্লাশি অভিযান চালাচ্ছে সিবিআই। এছাড়া, এদিন কয়লা পাচারকাণ্ডে আজ হুগলির কোন্নগরের ২ ব্যবসায়ীর বাড়িতে তল্লাশি অভিযান করে সিবিআই। অমিত সিং ও নবীন সিং নামে ওই দুই ব্যবসায়ীর বাড়ি হানা দিয়েছেন সিবিআইয়ের অফিসাররা। ওই দুই ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে হাওয়ালার মাধ্যমে টাকা পাচারের অভিযোগ রয়েছে বলে সিবিআই সূত্রে দাবি।

উল্লেখ্য, গোটা রাজ্যে গরু পাচারের জাল ছড়িয়ে রয়েছে। এনামুল ছাড়াও ইতিমধ্যেই বিএসএফ কমান্ডেন্ট সতীশ কুমারকেও গ্রেপ্তার করেছে সিবিআই। এবার দুজনকে মুখোমুখি বসিয়ে দেয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। দিল্লি থেকে এনামুলকে গ্রেফতারের পরই জানা যায়, এই পাচার চক্রের সঙ্গে রাঘব বোয়ালরা যুক্ত। বিএসএফ ও শুল্ক দপ্তরের একাধিক কর্তাব্যক্তির মদতে সীমান্তে গরু পাচার চলত। ব্যবসায়ী রাজেন পোদ্দার ও বিএসএফ কমান্ডেন্ট সতীশ কুমারের থেকে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ নথিও পেয়েছেন সিবিআই কর্তারা। এছাড়া, কয়েকদিন আগেই লালা ওরফে অনুপ মাজির ঘনিষ্ঠদের বাড়িতে তল্লাশি চালান কেন্দ্রীয় তদন্তকারী আধিকারিকরা। ৩১৩/৩, বাঙ্গুর অ্যাভিনিউয়ে গণেশ বাগাড়িয়া নামে এক ব্যবসায়ীর বাড়িতে হানা দেয় সিবিআইয়ের একটি দল। পরিবারের লোকজনদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এই ফ্ল্যাট ছাড়াও কলকাতায় লালার ঘনিষ্ঠদের আরও পাঁচটি বাড়ি, অফিসে তল্লাশি হয়। গরুপাচার কাণ্ডেও তদন্তের সূত্রে উঠে এসেছে লালা ওরফে পুরুলিয়ার ব্যবসায়ী অনুপ মাজির নাম।

[আরও পড়ুন: ভাইরাসের নয়া স্ট্রেনের আতঙ্কের মধ্যেই রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়াল সাড়ে ৫ লক্ষ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement