BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৮  মঙ্গলবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

মুক্তিপণের টাকা আদায়ের পন্থাই কাল হল, চিনিয়ে দিল বর্ধমানের শিশু অপহরণকারীদের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: October 14, 2019 11:52 am|    Updated: October 14, 2019 1:01 pm

Child kidnapped from Burdwan's Shaktigarh rescued

সৌরভ মাজি, বর্ধমান: দোকানের সামনে থেকেই দিনেদুপুরে শিশুকে অপহরণ করে নিয়ে গেল দুষ্কৃতীরা। বিকেলের দিকে ৫ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ চেয়ে শিশুর বাবাকে ফোন। এপর্যন্ত চিত্রনাট্য ঠিকই ছিল। কিন্তু মুক্তিপণের টাকা গাড়ির চালকের মাধ্যমে পাঠাতে বলাই কাল হল। অপহরণকারীদের কীর্তি ধরা পড়ে গেল। রবিবার রাতে বর্ধমানের শক্তিগড়ের কাছে দোকানের কিছুটা দূরে জঙ্গল থেকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে ওই শিশুকে। অসুস্থ হয়ে পড়ায় আপাতত হাসপাতালে ভরতি সে। গাড়ির চালককে আটক করে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। রাতেই বর্ধমানের পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায় নিজে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন বলে খবর।

[আরও পড়ুন: চুরি করতে নেমে অবৈধ খনিতে আটকে ৩, উদ্ধারে বাধা বিষাক্ত মিথেন গ্যাস]

পূর্ব বর্ধমানের শক্তিগড় থানার আমড়াই। ২ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে শক্তিগড়ের এই এলাকায় রয়েছে সারি সারি ল্যাংচার দোকান। সেখানকারই ল্যাংচা ব্যবসায়ী বলিরাম ওঝা। আমড়াই গ্রামে বাড়ি তাঁর। রবিবার সকালে ছেলে রাজেন ওঝাকে নিয়েই তিনি দোকানে গিয়েছিলেন। সকাল ১১ টা নাগাদ আচমকাই দোকান থেকে নিখোঁজ হয়ে যায় রাজেন। তন্নতন্ন করে খুঁজেও হদিশ মেলে না তার। দুপুরের দিকে দোকানের সামনে থাকা সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখেন বলিরামবাবু। যদি তাতে কিছু ধরা পড়ে। ফুটেজ পরীক্ষা করে তাঁরা দেখেন, ১১ টা নাগাদ দোকানের সামনে থেকেই দুটি গাড়ি করে কয়েকজন এসে রাজেনকে একটি গাড়িতে তুলে নিয়ে চলে যাচ্ছে। তাঁরা ঘটনার বিষয়ে পুলিশকে জানান। ওই শিশুর নিখোঁজ ডায়েরির পাশাপাশি অপহরণের অভিযোগও করে বলিরামবাবু। পুলিশ প্রাথমিক তদন্ত শুরু করে।
বিকেলের দিকে বলিরামবাবুর কাছে একটি ফোন আসে। জানানো হয়, তাঁর ছেলেকে অপহরণ করা হয়েছে। ৫ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দিলে তবেই ছেলেক ফিরে পাবেন বলিরাম। তাঁকে এও বলা হয় যে মুক্তিপণের টাকা গাড়ির চালকের মাধ্যমেই পাঠাতে হবে। ফোনের বিষয়টি সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকে জানান বলিরামবাবু। এদিকে, সন্ধের মুখে আমড়াইয়ের অদূরে কান্দরসোনা এলাকায় জঙ্গলের মধ্যে থেকে ওই শিশুটিকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। তাকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে চিকিৎসার জন্য। গাড়ির চালককে আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদ করে এর কিনারা করতে চাইছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: পুজোর মরশুমে রাস্তায় রাণুর প্রাণখোলা নাচ! ভাইরাল ভিডিও]

প্রাথমিকভাবে পুলিশের অনুমান, গাড়ির চালকই যুক্ত এই অপহরণকাণ্ডে। তাকে জেরা করে বাকিদের সন্ধান করছেন তদন্তকারীরা। কী কারণে অপহরণ, ঘটনার পিছনে কে বা কারা রয়েছে, সেসব খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

×