BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভারচুয়াল সভার পরই বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষে উত্তপ্ত পূর্ব বর্ধমান, জখম ৪

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: June 10, 2020 5:29 pm|    Updated: June 10, 2020 5:32 pm

An Images

ফাইল ছবি।

ধীমান রায়, কাটোয়া: গেরুয়া শিবিরের ভারচুয়াল সভার পরের দিনই তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠল পূর্ব বর্ধমানের মঙ্গলকোটের রামনগর গ্রাম। সংঘর্ষে আহত হয়েছেন দু’পক্ষের মোট চারজন। তাঁদের মধ্যে এক বিজেপি কর্মীর অবস্থার ক্রমশ অবনতি হওয়ায় তাঁকে মঙ্গলকোট ব্লক হাসপাতাল থেকে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় বসানো হয়েছে পুলিশ পিকেট। দু’পক্ষই থানায় অভিযোগ দায়ের করলেও শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী এখনও গ্রেপ্তার হয়নি কেউ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলকোটের চানক অঞ্চলের রামনগর গ্রামের নাপিত পাড়ায় সম্প্রতি ঢালাই রাস্তা নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। এদিন ওই রাস্তাটি মাপা হচ্ছিল। এই সময়ই রামনগর গ্রামে বিজেপি ও তৃণমূল কর্মীদের মধ্যে বচসা বাঁধে। মুহুর্তে তা সংঘর্ষের চেহারা নেয়। আহত হন ৪ জন। আহত বিজেপি নেতা কার্তিক বাগের অভিযোগ, “আমরা অমিত শাহের সভায় যোগ দিয়েছিলাম বলেই এদিন সকালে আমাদের সক্রিয় কর্মী প্রদীপ ঘোষকে রাস্তায় আটকে ৭-৮ জন তৃণমূল কর্মী ব্যাপক মারধর করে। আমি কয়েকজনের সঙ্গে সেখানে গেলে আমাদেরও মারধর করে তৃণমূলের লোকরা।”

[আরও পড়ুন: শিকেয় সামাজিক দূরত্ব! লঞ্চ পরিষেবা শুরুর দিনেই গায়ে গা ঘেঁষে অফিসমুখো যাত্রীরা]

এ প্রসঙ্গে চাণক অঞ্চল তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি রমজান শেখ বলেন, “অভিযোগ ভিত্তিহীন। রামনগর গ্রামে রাস্তার কাজ হচ্ছে। বিজেপি উন্নয়নের কাজে বাধা দিচ্ছিল। গ্রামবাসীরা প্রতিবাদ করেন। এরপরই বিজেপি কর্মীরা আমাদের কর্মীদের ওপর হামলা করে।” তৃণমূল নেতৃত্বের অভিযোগ, বিজেপি এলাকায় অপপ্রচার চালাচ্ছে। তবে এদিনের ঘটনায় রীতিমতো আতঙ্কিত এলাকার বাসিন্দারা। 

[আরও পড়ুন: পঞ্চায়েতের ব্যর্থতা তুলে ধরে দলের মধ্যেই চক্ষুশূল মহুয়া, অসন্তুষ্ট নেতা-কর্মীরা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement