Advertisement
Advertisement
জাহাজ ডুবল

মাঝ নদীতে ২ জাহাজের মুখোমুখি সংঘর্ষ, বজবজে সলিলসমাধি ‘মমতাময়ী মা’য়ের

দুর্ঘটনার কবলে পড়া পোর্ট ট্রাস্টের জাহাজটিকে উদ্ধার করা হয়েছে।

Clash into Hooghly River, a Bangladeshi ship sinks
Published by: Sucheta Sengupta
  • Posted:March 12, 2020 12:50 pm
  • Updated:March 12, 2020 1:39 pm

সুরজিৎ দেব, ডায়মন্ড হারবার: মাঝনদীতে কলকাতা পোর্ট ট্রাস্টের একটি জাহাজের সঙ্গে বাংলাদেশি জাহাজের সংঘর্ষ। হুগলি নদীতে ডুবে গেল বাংলাদেশের পণ্যবাহী জাহাজ ‘এমভি মমতাময়ী মা’। বজবজ থেকে রওনা হওয়ার পর মহেশতলার আক্রার কাছে আজ দুপুরে দুর্ঘটনাটি ঘটে। জাহাজটি ফ্লাই অ্যাশ ভরতি থাকায় জলে ডোবার পর অগ্নিসংযোগের ফলে আগুন ও ধোঁয়া বেরতে দেখা যায়। এই সংঘর্ষের জেরে বাংলাদেশির জাহাজের উপর পড়ে আহত হয়েছেন একজন। তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। জাহাজের বাকিদের লাইফ জ্যাকেট দিয়ে উদ্ধার করে আরেকটি বাংলাদেশি জাহাজ।

সূত্রের খবর, বাংলাদেশের জাহাজ এমভি মমতাময়ী এবং এমভি সানি-১ CESC’র ফ্লাই অ্যাশ নিয়ে বজবজ থেকে বাংলাদেশের উদ্দেশে রওনা হয়েছিল আজ সকালে। উলটোদিক থেকে কলকাতা বন্দরের দিকে ঢুকছিল পোর্ট ট্রাস্টের একটি জাহাজ।  মহেশতলার আক্রার কাছে  পোর্ট ট্রাস্টের জাহাজটির সঙ্গে এমভি মমতাময়ী মা জাহাজটির ধাক্কা লাগে। পোর্ট ট্রাস্টের জাহাজটির তুলনায় বাংলাদেশি জাহাজ বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

Advertisement
port-trust-ship
দুর্ঘটনাগ্রস্ত পোর্ট ট্রাস্টের জাহাজ

ডুবন্ত অবস্থাতেই সেটি পাড়ের দিকে আসার চেষ্টা করে। কিন্তু স্রোতের টানে বেশি দূর আসতে ব্যর্থ হয়। বাটানগরের কাছে পাড়ে দাঁড়িয়ে পড়ে সেটি। উদ্ধারকারী দল সেখানে গিয়ে জাহাজ দুটিকে বাঁচানোর চেষ্টা করা হলেও, এমভি মমতাময়ী মা ধীরে ধীরে ডুবতে থাকে। কিছুক্ষণের মধ্যে সেটি ডুবে যায়।

Advertisement

[আরও পড়ুন: পুরভোটে প্রার্থী হতে দেড় হাজার বায়োডেটা জমা, তালিকা চূড়ান্ত করতে হিমশিম বিজেপি]

অন্যদিকে, হুগলি নদীর একেবারে মাঝখান থেকে পোর্ট ট্রাস্টের জাহাজটিকে উদ্ধার করে ডায়মন্ড হারবারের দিকে নিয়ে আসা হয়। এমভি সানি-১ জাহাজটিও বাংলাদেশের ফ্লাইঅ্যাশ নিয়ে যাচ্ছিল। সংঘর্ষের পর এই এমভি সানি-১ জাহাজটি এমভি মা মমতাময়ীর কাছে চলে আসে এবং মমতাময়ী বাংলাদেশি জাহাজের ১৩ জন ক্রু-কে লাইফ জ্যাকেট দিয়ে উদ্ধার করে নিজেদের জাহাজে তুলে নেয়। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় বন্দর থানার পুলিশ। গোটা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: এপ্রিল থেকেই নিজের জেলার স্কুলে পড়াবেন শিক্ষকরা, মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে শুরু প্রক্রিয়া]

দেখুন ভিডিও:

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ