২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

খেলতে গিয়ে গলায় কয়েন আটকে প্রাণ সংশয়, খুদেকে বাঁচাল বালুরঘাট হাসপাতালের চিকিৎসকরা

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: August 9, 2020 10:20 pm|    Updated: August 9, 2020 10:40 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী।

রাজা দাস, বালুরঘাট: যন্ত্রের মাধ্যমে পাঁচ বছরের শিশুর গলার নলিতে আটকে থাকা পাঁচ টাকার কয়েন বের করে নজির গড়লেন বালুরঘাট সদর বা দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা হাসপাতালের এক চিকিৎসক। ইতিমধ্যেই সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছে খুদে। ওই শিশুকে সুস্থ করতে পেরে খুশি বালুরঘাট হাসপাতাল কর্তৃপক্ষও।

বালুরঘাট (Balurghat) সদর হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, গঙ্গারামপুর ব্লকের সর্বমঙ্গলার মুশিপুকুর এলাকার বাসিন্দা মনিউর রহমান মোল্লার সন্তান সামিউল সরকার নামে ওই খুদে। খেলতে গিয়ে গত ৭ আগস্ট তার গলায় একটি পাঁচ টাকার কয়েন আটকে যায়। সঙ্গে সঙ্গে শিশুটিকে গঙ্গারামপুর হাসপাতালে নিয়ে যায় পরিবারের সদস্যরা। জটিল পরিস্থিতি দেখে সেখান থেকে ওই শিশুকে বালুরঘাট সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়। ওইদিন বিকেলে শিশুটি হাসপাতালে ভরতি হলেও প্রথমে তার গলা থেকে কয়েনটি উদ্ধার করতে পারেননি চিকিৎসকরা। শেষে ৮ আগস্ট অ্যানাসথেসিস্ট অর্ঘ্যজ্যোতি হালদারের সহযোগিতায় শিশুটিকে সংজ্ঞাহীন করা হয়। এরপর চিকিৎসক দেবাশিস অধিকারী যন্ত্রের মাধ্যমে কয়েনটি গলা থেকে বের করেন অন্য চিকিৎসক ও নার্সদের সহযোগীতায়। পুরোপুরি সুস্থ হওয়ায় পর রবিবার ছুটি দেওয়া হয়েছে শিশুটিকে।

[আরও পড়ুন: রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্ত প্রায় ৯৬ হাজার, ২৪ ঘণ্টায় লাফিয়ে বাড়ল অ্যাকটিভ কেস]

এবিষয়ে চিকিৎসক দেবাশিস অধিকারী বলেন, “শিশুর জীবন রক্ষা করতে পেরে ভাল লাগছে।” বালুরঘাট সদর হাসপাতাল সুপার তপন বিশ্বাস জানান, “করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন চিকিৎসক থেকে স্বাস্থ্যকর্মীরা। আমাদের হাসপাতালেও তিন-চারজন চিকিৎসক ও এক নার্স আক্রান্ত হয়েছেন। এরপরও নিজের জীবন বাজি রেখে চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা যেভাবে পরিষেবা দিচ্ছেন তা প্রশংসনীয়। আমি তাঁদের প্রতি কৃতজ্ঞ। এই হাসপাতালে সব পরিষেবা স্বাভাবিক রয়েছে। এখানে স্বাস্থ্য পরিষেবা নিয়ে অহেতুক মানুষের উদ্বেগের কারণ নেই।” 

[আরও পড়ুন: নয়া শিক্ষানীতির বিরোধিতা রাষ্ট্রপতির দরবারে, রাইসিনায় চিঠি পাঠাচ্ছে ‘সেভ এডুকেশন কমিটি’]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement