BREAKING NEWS

১৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বুধবার ১ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

সম্প্রীতির আবহে সূর্য আরাধনা, ছটের আগে সেজে উঠছে দামোদর তীরবর্তী মন্দির

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: October 31, 2019 3:38 pm|    Updated: October 31, 2019 3:39 pm

Communal harmony in Chhat Puja,preparation is going on in Purulia

সুমিত বিশ্বাস, পুরুলিয়া: শুধু অবাঙালি নয়। দামোদরের এপারে কোলিয়ারি এলাকা নিতুড়িয়ায় ছটে শামিল বাঙালিরাও। এমনকী সূর্য দেবতার আরাধনা করছেন সংখ্যাঘু সম্প্রদায়ের মানুষজনও। দামোদর ঘেঁষা নিতুড়িয়া, পারবেলিয়া, শালতোড়, ভামুরিয়ায় ছট এখন সর্বজনীন হয়ে উঠেছে। তাই এই উৎসব ঘিরে মেনে উঠেছে খনি এলাকা।

“ধর্ম যার যার, উৎসব সকলের।”- এই বার্তা দিয়েই বরাবর রাজ্যবাসীকে নানা উৎসবে একসূত্রে গাঁথতে চান মুখ্যমন্ত্রী। এবছর রাজ্যে ছটপুজো উপলক্ষে তিনি তিনদিনের ছুটি দিয়েছেন রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের। মূলত অবাঙালিদের এই উৎসবে বিগত কয়েক বছর ধরেই দামোদরের এপারে কোলিয়ারি নিতুড়িয়ায় ছট যেন সম্প্রীতির মেলবন্ধন হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই নিতুড়িয়া পঞ্চায়েত সমিতি,শালতোড় গ্রাম পঞ্চায়েত ও পারবেলিয়া সূর্য মন্দির ছট পুজো কমিটির তরফে একযোগে এই উৎসব কার্যত মিলন মেলায় পরিণত করেছে।

[ আরও পড়ুন: বিসর্জনের শোভাযাত্রা থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ, প্রতিবেশীর বিকৃতকামের শিকার শিশু]

দামোদরের আটটি ও ভেগাডির একটি, মোট ন’টি ঘাটে সন্ধ্যা অর্ঘ্য হয়। তাই এই ঘাটগুলিতে ভিড় সামলে সুষ্ঠুভাবে ছট পালন করতে ড্রোন ও সিসিটিভির নজরদারি রাখা হয়েছে। নিতুড়িয়া পঞ্চায়েত সমিতির সহ–সভাপতি শান্তিভূষণ প্রসাদ যাদব বুধবার দামোদরের একাধিক ঘাট ঘুরে দেখেন। তিনি বলেন, “এই উৎসব এখন সর্বজনীন। মুসলিমরাও এই উৎসব পালন করছেন। উৎসবের চারদিনই এই এলাকায় যা ভিড় হয়, তাতে আমরা হিমশিম খাই। এবছর ছট সুষ্ঠুভাবে পালন করতে আমরা সবরকম পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি।”
ফি বছরের মত এবারও পারবেলিয়া সূর্য মন্দির ছট পুজো কমিটি দামোদরের তীরকে আলোকমালায় সাজিয়ে তুলেছে। দীপাবলির পরও যেন এখানে আলোর উৎসবের সমাপ্তি নেই। ভামুরিয়ার বাসিন্দা রুপালি মাজির কথায়, “এখানে যেভাবে ছট হয়, তাতে আমরাও শামিল হয়ে গিয়েছি।আসলে উৎসব তো সকলের।” তাই শুধু দামোদরের ঘাট নয়, পারবেলিয়া, আমডাঙা, শালতোড়ের গলিপথেও যেন আলোর বন্যা।
ভামুরিয়ায় তৃণমূল অঞ্চল সভাপতি সাধন মাজি যেমন ছট পুজোয় শামিল হন তেমনই হিজুলির বাবলু মুদি, পারবেলিয়ার মৃদুল সরকার, প্রকাশ সিনহারাও একেবারে নিয়ম মেনে, নিরামিষ খেয়ে বা উপোষ করে এই উৎসবে মেতে ওঠেন।

[ আরও পড়ুন: ডুয়ার্সে ফের খুন একশৃঙ্গ গন্ডার, খড়গ কেটে নিয়ে গেল চোরাশিকারিরা]

এবার অতিবর্ষণে দামোদর ফুঁসছে। তাই পুন্যার্থীদের যাতে কোনও সমস্যা না হয়, তাই ডিভিসির গেটে জল ধরে রাখার কথা জানিয়েছে নিতুড়িয়া পঞ্চায়েত সমিতি। বালি ফেলে ঘাটে যাওয়ার রাস্তা কিছুটা সুগম করা হয়েছে। সবমিলিয়ে, এই বিশেষ দিনে সূর্য দেবতার আশীর্বাদ পেতে ছটের ডালা সাজাচ্ছে কোলিয়ারি এলাকা নিতুড়িয়া।
ছবি: অমিত সিং দেও।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে