BREAKING NEWS

২৭ আষাঢ়  ১৪২৭  রবিবার ১২ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

প্রেমিকের বাড়ির সামনে ধরনায় কিশোরী, টেনেহিঁচড়ে থানায় নিয়ে গেল পুলিশ!

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: July 4, 2019 5:38 pm|    Updated: July 4, 2019 5:38 pm

An Images

শুভদীপ রায়নন্দী, শিলিগুড়ি: বিয়ের দাবি জানিয়ে প্রেমিকের বাড়ির সামনে ধরনায় বসে পুলিশের হাতে আক্রান্ত এক কিশোরী৷ চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে শিলিগুড়ির মাটিগাড়া থানা এলাকায়। নাবালিকাকে বাড়ির সামনে থেকে সরাতে পুলিশের এহেন আচরণ প্রকাশ্যে আসতেই দানা বাঁধছে বিতর্ক। ঘটনার পর থেকেই পলাতক অভিযুক্ত যুবক। 

[আরও পড়ুন: ‘মারের বদলা মার’! দায়িত্ব নিয়েই প্রতিহিংসার দাওয়াই শ্রীরামপুরের বিজেপি সভাপতির]

জানা গিয়েছে, শিলিগুড়ির মাটিগাড়ার বাসিন্দা সন্দীপ সরকারের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরেই প্রণয়ের সম্পর্ক ছিল এলাকারই বছর সতেরোর ওই কিশোরীর। অভিযোগ, তাকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে একাধিকবার সহবাস করে ওই যুবক। কিন্তু অবশেষে বিয়েতে বেঁকে বসে সন্দীপ। প্রেমিকের বিরুদ্ধে পুলিশ, প্রশাসনের দ্বারস্থ হয় ওই কিশোরী ও তাঁর পরিবার। কিন্তু তাতে কোনও ফল মেলেনি। এরপরই ধূপগুড়ির অনন্তের পথে হাঁটার সিদ্ধান্ত নেয় ওই নাবালিকা। বৃহস্পতিবার সকালে প্রেমিকের বাড়ির সামনে ধরনায় বসে সে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় মাটিগাড়া ও এনজেপি থানার পুলিশ। 

অভিযোগ, ঘটনাস্থলে গিয়েই ওই নাবালিকার উপর চড়াও হন মহিলা ও পুরুষ পুলিশ কর্মীরা। মারধরের পর টেনেহিঁচড়ে ওই কিশোরীকে প্রেমিকের বাড়ির সামনে থেকে তুলে এনজেপি থানায় নিয়ে যায় তাঁরা। সেই ঘটনার ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই প্রশ্ন ওঠে পুলিশের ভূমিকা নিয়ে। ভিডিওটিতে দেখা গিয়েছে, পুরুষ ও মহিলা পুলিশ কর্মীরা নাবালিকাকে মারধর করছেন। কিন্তু নাবালিকাকে মারধর আইন বিরুদ্ধ। কীভাবে আইনের বাইরে গিয়ে পুরুষ পুলিশ কর্মীরা আক্রমণ করলেন কিশোরীকে? যারা টেনে হিঁচড়ে নিয়ে গেলেন তাঁদের সকলেই আদৌ পুলিশ কর্মী? এসব নিয়েই উঠছে প্রশ্ন। জানা গিয়েছে, আপাতত এনজেপি থানাতেই রাখা হয়েছে ওই কিশোরী  ও তাঁর অভিভাবককে। তবে ঘটনার পর থেকে পলাতক অভিযুক্ত সন্দীপ সরকার। তবে এ বিষয়ে কিশোরীর কোনও মন্তব্য এখনও পাওয়া যায়নি।         

[আরও পড়ুন: ক্লাস ভাগ নয়, চাপের মুখে সিদ্ধান্ত বদল মালদহের গিরিজাসুন্দরী বিদ্যাপীঠের]

দেখুন ভিডিও:

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement