BREAKING NEWS

২৮ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

‘করোনার মেয়াদ ১ বছর’, ফের বেলাগাম অনুব্রত, রেশনের ব্যাখ্যা দিয়ে বাড়ালেন দলের অস্বস্তি

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: July 11, 2020 9:59 pm|    Updated: July 11, 2020 10:12 pm

An Images

ভাস্কর মুখোপাধ্যায়, বোলপুর: ”করোনা ভাইরাসের (Coronavirus) দাপট এক বছর থাকবে, তার জন্য রেশনে রাজ্যবাসীর এক বছরের খাবার ফ্রি করে দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সব মানুষ কাজ করতে পারবে না, সেই কথা মাথায় রেখে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।” শনিবার তৃণমূলের কর্মী সম্মেলনে বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের এই মন্তব্য ঘিরে ফের সরগরম রাজনৈতিক মহল। করোনার স্থায়িত্ব নিয়ে তাঁর এই মন্তব্যকে দায়িত্বজ্ঞানহীনতার পরিচয় বলে মনে করছেন অনেকে।

শনিবার লাভপুরে তৃণমূলের বুথভিত্তিক কর্মী সম্মেলন ছিল। সেখানে উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের মেন্টর অভিজিৎ সিংহ, সাংসদ অসিত মাল, লাভপুর ব্লক সভাপতি তরুণ চক্রবর্তী, জেলা কমিটির সদস্য মান্নান হোসেন-সহ দলের নেতা ও কর্মীরা। সেখানে করোনা নিয়ে রাজ্য সরকারের উদ্যোগকে এভাবে ব্যাখ্যা করেছেন অনুব্রত মণ্ডল। এরপর কর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ”আপনারা সতর্ক হয়ে যান। পঞ্চায়েতে বা পঞ্চায়েত সমিতিতে বসে থাকবেন না। নিজের কাজ নিজে করুন। মানুষকে পরিষেবা দিন। সব মানুষ কাজ করতে পারবে না। তাদের পাশে দাঁড়ান।”

[আরও পড়ুন: হরিচাঁদ-গুরুচাঁদ ঠাকুরকে নিয়ে অশ্লীল পোস্ট, দোষীর গ্রেপ্তারির দাবিতে আমরণ অনশনে মতুয়ারা]

এর আগেও দেশে করোনা সংক্রমণ নিয়ে তৃণমূলের এই দোর্দন্ডপ্রতাপ নেতা দায়ী করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে। চলতি বছরের প্রথমদিকে ভারত সফরে এসে তিনিই করোনা সংক্রমণ ছড়িয়েছেন বলে বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন অনুব্রত মণ্ডল। তাঁর সঙ্গে আতিথেয়তা করায় দায় চাপিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উপরেও। এবার করোনার স্থায়িত্ব নিয়ে সময়সীমা বেঁধে দিয়ে ফের বিতর্ক বাড়ালেন তিনি। সেইসঙ্গে যুক্ত করে দিলেন আগামী জুন পর্যন্ত রাজ্যে বিনামূল্যে রেশনের বিষয়টিও। তা শাসকদলের অস্বস্তি কিছুটা বাড়াল বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ। তাদের মত, আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে ফের সংগঠনকে চাঙ্গা করতে মাঠে নেমে পড়েছেন শাসকশিবিরের অত্যন্ত ভরসাযোগ্য সেনাপতি। তাই বিতর্ককে আমল না দিয়ে এমন লাগামহীন মন্তব্য তিনি করে চলেছেন।

[আরও পড়ুন: নতুন করে লকডাউনেও বাগে আসছে না সংক্রমণ, রাজ্যে করোনা আক্রান্ত প্রায় সাড়ে ২৮ হাজার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement