BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনার প্রভাব দাম্পত্যেও! দার্জিলিং ফেরত স্বামীকে কাছে ঘেঁষতে দিলেন না স্ত্রী

Published by: Sayani Sen |    Posted: March 18, 2020 11:13 am|    Updated: March 18, 2020 11:51 am

An Images

ধীমান রায়, কাটোয়া: করোনা আতঙ্কের মাঝে চারদিন ধরে একঘরে কাটোয়ার ব্যবসায়ী অরুণ মণ্ডল। তিনি বেড়াতে গিয়েছিলেন দার্জিলিংয়ে। গত শুক্রবার তিনি বাড়ি ফিরে আসেন। তারপরেই স্ত্রীর চাপে তাঁকে শনিবার ছুটতে হয় কলকাতার বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে। সেখানে করোনা ভাইরাসের পরীক্ষা করান। তারপর বাড়ি ফিরেও তাঁকে থাকতে হচ্ছে আলাদা ঘরে। যদিও বাড়ির স্বাভাবিক কাজকর্ম ও ব্যবসা সামলাচ্ছেন তিনি। কিন্তু স্ত্রী কল্পনা মণ্ডল তাঁকে জানিয়ে দিয়েছেন বাড়ির আলাদা ঘরে আরও সাতদিন থাকতে হবে। অরুণ মণ্ডল যদিও বলেন,”আমার শারীরীক কোনও সমস্যা নেই। কলকাতায় স্বাস্থ্যপরীক্ষা করিয়েও কিছু ধরা পড়েনি। কিন্তু স্ত্রীর কথা রাখতে ও নিজেও সতর্কতার জন্য আমি আলাদা ঘরে শুচ্ছি। চিকিৎসকেরাও বলেছেন মনে সন্দেহ থাকলে আলাদা ঘরে থাকতে।”

কাটোয়ার স্টেডিয়ামপাড়ার বাসিন্দা অরুণবাবু লেডিজ টেলারিংয়ের ব্যবসা। বাড়িতে রয়েছেন স্ত্রী, এক ছেলে, পুত্রবধূ ও আড়াই বছরের নাতি। ছেলে শিক্ষকতা করেন। অরুণবাবু জানিয়েছেন, তিনি গত ৬ মার্চ একাই দার্জিলিংয়ে বেড়াতে গিয়েছিলেন। শুক্রবার বাড়ি ফেরেন। অরুণবাবু বলেন, ” বাইরে থেকে আসার পর আমার স্ত্রী ভয় করছিলেন করোনার জন্য। স্ত্রী আমাকে কলকাতায় গিয়ে পরীক্ষা করাতে বলেন। পরেরদিন আমি কলকাতায় বেলেঘাটায় দেখিয়ে ফিরে আসি।। তারপর থেকে সতর্কবাবে রয়েছি।’’ জানা গিয়েছে ছেলে রাকেশ শিক্ষকতা করেন। স্কুলে ছুটি থাকায় তিনি শ্বশুরাবড়িতে সস্ত্রীক বেড়াতে গিয়েছেন। কয়েকদিন পর তাদের ফেরার কথা।”

[আরও পড়ুন: সুন্দরবনে মিলল কালো বাঘের অস্তিত্ব! মৎস্যজীবীদের দাবি খতিয়ে দেখছে বনদপ্তর]

অন্যদিকে করোনা আতঙ্কের জেরে ভাতারের এক প্রাক্তন বিজেপি নেতার শ্রাদ্ধানুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে। এ নিয়ে স্থানীয় এলাকায় ব্যনার ঝুলিয়ে প্রচার করেছেন তাঁর পরিবারের সদস্যরা। ভাতারের কুলচন্ডা গ্রামের বাসিন্দা ধাত্রীপজ কোঁয়ার(৮৭) গত ৬ মার্চ মারা যান। তিনি ভাতার ব্লকের বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি ও ২০১১ সালে বিজেপির প্রার্থী ছিলেন। বুধবার তাঁর শ্রাদ্ধানুষ্ঠান ও বৃহস্পতিবার অতিথি আপ্যায়ন করার কথা ছিল। ধাত্রীপদবাবুর ছেলে গৌড়মোহন কোঁয়ার বলেন, “প্রশাসনের তরফে লোকজন বেশি নিমন্ত্রণ করতে নিষেধ থাকায় বাবার শ্রাদ্ধানুষ্ঠান বাতিল করে দিয়েছি। তবে অনেককে নিমন্ত্রণ করা ছিল। তাদের জানাতে কাগজে বিজ্ঞাপন দিয়েছি ও ব্যনার টাঙিয়ে দিয়েছি ভাতার বাজারে।” বর্তমান পরিস্থিতিতে করোনা আতঙ্কে প্রয়োজন ছাড়া বাড়ি থেকে বেরোচ্ছেন না কেউই। জনমানবশূন্য ভাতার বাজার।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement