৫ আশ্বিন  ১৪২৫  শনিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  |  পুজোর বাকি আর ২৪ দিন

মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও রাশিয়ায় মহারণ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

রাজা দাস, বালুরঘাট: স্ত্রী-কে খুনের অভিযোগে অভিযুক্ত আবগারি দপ্তরের আধিকারিক দিবাকর ঘোষকে পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিল আদালত৷ দশ দিনের পুলিশি হেফাজতের আবেদন করা হলেও, বুধবার ছ’দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেন বিচারক৷ গত রবিবার আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার হন অনন্যা রায় ঘোষ৷ হাসপাতালে মৃত্যু হয় তাঁর৷ সোমবার খুনের অভিযোগ দায়ের করেন মৃতার বাবা অমলেন্দু দত্ত ঘোষ৷ তাঁর জামাই তথা আবগারি দপ্তরের আধিকারিক দিবাকর ঘোষকে অন্যতম অভিযুক্ত বলে চিহ্নিত করেন তিনি৷ ঘটনার পর থেকেই পলাতক ছিল অভিযুক্ত৷ মঙ্গলবারই তাকে একটি গোপন আস্তানা থেকে পাকড়াও করে বালুরঘাট থানার পুলিশ৷

[অভুক্তদের মুখে উঠবে খাবার, রাজ্যে এই প্রথম চালু হচ্ছে ‘রুটি ব্যাংক’]

গত রবিবার সকালে পতিরামের নীচা বন্দর এলাকায় বাড়ি লাগোয়া রাস্তার সামনে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার হন অনন্যা রায় ঘোষ। হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়। মৃতার স্বামী তথা আবগারি দপ্তরের আধিকারিক দিবাকর ঘোষের আগেও দু’জন স্ত্রী ছিলেন। দ্বিতীয় স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদের কিছুদিন পর কলকাতার মেয়ে অনন্যা রায়কে (ঘোষ) বিয়ে করে দিবাকর। তাঁদের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। বর্তমানে গঙ্গারামপুর আবগারি দপ্তরে কর্মরত ছিল সে। দিবাকর অনন্যাকে খুন করেছে বলে দাবি মৃতার পরিবারের৷ অবশেষে সোমবার বিকেলে বালুরঘাট থানায় অভিযুক্ত জামাই ও তার মায়ের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন মৃতার বাবা অমলেন্দু রায়। পুলিশি তদন্তে ওই ব্যক্তির বাড়িতে থাকা প্রাইভেট গাড়ির ভিতরে এবং বাগানে রক্তের দাগ পাওয়া যায়। পুলিশের অনুমান, ভারী কিছু দিয়ে মৃতের মাথায় মুখে আঘাত করা হয়েছে।  এদিন বালুরঘাট থেকে অভিযুক্ত দিবাকর ঘোষকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ধৃতকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার দেবাশিস নন্দী, ডিএসপি ট্র‍্যাফিক ধীমান মিত্র, বালুরঘাট থানার আইসি সঞ্জয় ঘোষ-সহ অন্যান্য পুলিশ আধিকারিকরা।

[শ্রমিকের ১০০ দিনের মজুরি হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পঞ্চায়েত সচিবের বিরুদ্ধে]

স্ত্রীকে খুনের পর দু’দিন ধরে আত্মগোপন করেছিল অভিযুক্ত। গত মঙ্গলবার বিকেলে বালুরঘাট শহর থেকেই তাকে গ্রেপ্তার করে বালুরঘাট থানার পুলিশ। গোপন সূত্রে খবর পেয়েই অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করা হয় তাকে৷ তবে অভিযুক্তের মা অর্চনা ঘোষকে এখনও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। উদ্ধার করতে পারেনি মৃতার শিশুকন্যাকেও। ডিএসপি ট্র‍্যাফিক ধীমান মিত্র জানান, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে অভিযুক্তকে শহর থেকেই গ্রেপ্তার করা হয়। ধৃতকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তবে তদন্তের স্বার্থে বেশি কিছু বলতে চায়নি পুলিশ।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং