১৪ মাঘ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২৮ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

কল্যাণ চন্দ্র, বহরমপুর: মুর্শিদাবাদে ফের স্ক্রাব টাইফাসে প্রাণহানি। এবার মৃত্যু হল দশম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীর। বৃহস্পতিবার সকালে বহরমপুরের এক বেসরকারি হাসপাতালেই মারা যায় কিশোরী। তাঁর পরিবারের অভিযোগ, চিকিৎসার গাফিলতিতে এমন ঘটনা ঘটল। নার্সিংহোমের সামনে বিক্ষোভও দেখান নিহত কিশোরীর পরিজনেরা। যদিও পরে বহরমপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

তামান্না ফিরদৌসি নামে ওই ছাত্রী দশম শ্রেণিতে পড়াশোনা করে। বেশ কয়েকদিন ধরে জ্বরে ভুগছিল সে। স্থানীয় চিকিৎসকের পরামর্শে চিকিৎসা চলছিল তার। গত দু’দিনে ছাত্রীর শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হয়। চিকিৎসক তাকে হাসপাতালে ভরতির পরামর্শ দেন। পরিজনেরা ওই কিশোরীকে বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি করেন। বুধবার থেকে তার অবস্থা আরও আশঙ্কাজনক হয়ে যায়। চিকিৎসকেরা তামান্নাকে আইসিইউতে রেখে চিকিৎসা শুরু করেন। তবে বৃহস্পতিবার সকালে পরিজনদের ওই নার্সিংহোমের তরফে জানানো হয় মারা গিয়েছে ওই কিশোরী। তার ডেথ সার্টিফিকেটে মৃত্যুর কারণ হিসাবে স্ক্রাব টাইফাসের কথা উল্লেখ রয়েছে।

[আরও পড়ুন: হায়দরাবাদ কাণ্ডের ছায়া মালদহে, গণধর্ষণের পর পুড়িয়ে খুন তরুণীকে]

মৃত্যু সংবাদ শুনেই ক্ষিপ্ত হয়ে যান তাঁর পরিজনেরা। তাঁদের দাবি, ওই বেসরকারি হাসপাতালের গাফিলতিতেই মৃত্যু হয়েছে তামান্নার। বিল বাড়ানোর জন্য ইচ্ছা করে মৃত্যুর কথা পরিজনদের জানানো হয়নি বলেও অভিযোগ মৃতার মায়ের। এমনই একগুচ্ছ অভিযোগে নার্সিংহোমে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তাঁরা। পরে বহরমপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এর আগে বহরমপুরে স্ক্রাব টাইফাসের বলি হয়ে মৃত্যু হয়েছে দু’জনের। তামান্না ফিরদৌসিকে নিয়ে এখনও পর্যন্ত মুর্শিদাবাদে এই ধরনের জ্বরে মৃত্যু হল তিনজনের।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং