BREAKING NEWS

৯ কার্তিক  ১৪২৮  বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

স্বাস্থ্যকেন্দ্রের কোয়ার্টারে উদ্ধার মহিলা চিকিৎসকের পচাগলা দেহ, পরকীয়ার জেরেই খুন? তদন্তে পুলিশ

Published by: Suparna Majumder |    Posted: September 18, 2021 9:17 am|    Updated: September 18, 2021 5:37 pm

Doctor's decomposed body found in Purulia | Sangbad Pratidin

সুমিত বিশ্বাস, পুরুলিয়া: বরাবাজার ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের কোয়ার্টার থেকে চিকিৎসকের পচা-গলা দেহ উদ্ধার। ঘটনায় স্বামীকেই সন্দেহ করছে পুলিশ। মনে করা হচ্ছে, স্ত্রীকে খুন করে মেয়েকে নিয়ে পালিয়ে গিয়েছেন ওই ব্যক্তি। পরকীয়া সম্পর্কের জেরেই এই ঘটনা বলে অনুমান পুলিশের।

শুক্রবার সন্ধ্যায় ডা. সুচিত্রা সিংয়ের (৩৮) পচা-গলা দেহ উদ্ধার হয়। ঘটনাকে কেন্দ্র করে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়। বরাবাজার ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের মেডিক্যাল অফিসার ছিলেন সুচিত্রা সিং। জানা গিয়েছে, বেশ কিছুদিন ধরে হাসপাতালে অনুপস্থিত ছিলেন ওই চিকিৎসক। আবাসনের দরজা ছিল তালা বন্ধ। আবাসনে থাকা অন্যান্য সহকর্মীরা ভেবেছিলেন তিনি ছুটিতে গিয়েছেন। শুক্রবার সকাল থেকে ওই আবাসনের পাশ থেকে দুর্গন্ধ ছড়াতে শুরু করে। সন্ধ্যার পর দুর্গন্ধ আরও বেড়ে যায়। তারপরে খবর দেওয়া হয় বরাবাজার থানার পুলিশকে। পরে পুলিশ কোয়ার্টারে তালা ভাঙে। ভিতরে ঢুকে প্লাস্টিকে মোড়া মৃতদেহ দেখতে পান পুলিশকর্মীরা।

[আরও পড়ুন: বহিষ্কৃত ছাত্রকে কুরুচিকর ভাষায় আক্রমণ! বিশ্বভারতীর অধ্যাপকের বিরুদ্ধে থানায় দায়ের অভিযোগ]

চিকিৎসকের মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। বরাবাজার থানার পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, এটি খুনের ঘটনা। বেশ কয়েক বছর ধরে ওই মেডিক্যাল অফিসার তাঁর চার বছরের মেয়েকে নিয়ে ওই আবাসনে থাকতেন। গত রবিবার তাঁর স্বামী ওই আবাসনে আসেন। সেই সময় দু’জনের মধ্যে ঝামেলা হয়। স্বামী-স্ত্রী’র কথা কাটাকাটির আভাস পান প্রতিবেশীরা। বরাবাজার ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রের আধিকারিক রবীন সরেন বলেন, “সোমবার সন্ধ্যায় আমার ওই সহকর্মী ও তাঁর পরিবারকে শেষবারের জন্য কোয়ার্টারে দেখেছিলাম। তারপর আর দেখা হয়নি। ওই দিন দুর্গাপুরে চিকিৎসকের একটি পরীক্ষা ছিল।” মনে করা হচ্ছে, সেদিনই চিকিৎসককে খুন করা হয়েছে। পুলিশ জানতে পেরেছে, ঘনিষ্ঠ মহলে নাকি স্বামীর পরকীয়া নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন সুচিত্রা সিং। এ নিয়ে প্রায়দিনই তাঁর স্বামীর সঙ্গে ঝামেলা হত।

বরাবাজার থানার পুলিশের পাশাপাশি এই ঘটনার তদন্তের এদিন ঘটনাস্থলে আসেন মানবাজার থানার মহকুমা পুলিশ আধিকারিক রাহুল পাণ্ডে। পুলিশের অনুমান, আততায়ী ওই চিকিৎসককে ‘খুন’ করে প্লাস্টিকে মুড়ে রেখে পালিয়ে যায়। সন্দেহের তীর চিকিৎসকের স্বামীর দিকে। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, স্ত্রীকে খুন করে আবাসনে তালা লাগিয়ে স্বামী তার মেয়েকে নিয়ে পালিয়ে গিয়েছে। ফলে তার স্বামীর খোঁজ শুরু করেছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: পরিত্যক্ত গাড়ির ভিতর ঢুকে খেলাই কাল! মুর্শিদাবাদে দমবন্ধ হয়ে মৃত্যু ২ শিশুর]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement