BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘মোদি পাকিস্তানের এজেন্ট’, মহুয়ার প্রচারসভায় তোপ ফিরহাদের

Published by: Sayani Sen |    Posted: April 26, 2019 9:26 pm|    Updated: April 26, 2019 9:26 pm

An Images

পলাশ পাত্র, তেহট্ট: তাপমাত্রার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চড়ছে নির্বাচনী উত্তাপ৷ কৃষ্ণনগরের তৃণমূল প্রার্থী মহুয়া মৈত্রর সমর্থনে নাকাশিপাড়ার পাটপুকুরে সভা করেন ফিরহাদ হাকিম৷ সভামঞ্চ থেকে নরেন্দ্র মোদিকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন তিনি৷ মোদিকে পাকিস্তানের এজেন্ট এবং অমিত শাহকে মোটা ভাই বলে কটাক্ষ তৃণমূল নেতার৷

[ আরও পড়ুন: ‘শের মারতে শের পাঠিয়েছে’, ভাটপাড়ায় প্রার্থী হয়েই বিরোধীকে হুঙ্কার মদনের]

তিনি বলেন, ‘‘পাকিস্তানের সঙ্গে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে মোদি অ্যাইসা মারা ওইসা মারা বলে আর্মি সিক্রেট পাবলিক করে দিল। পাকিস্তান স্ট্র‍্যাটেজি জেনে নিল। নরেন্দ্র মোদির কাছ থেকে পাকিস্তান সব থেকে বেশি সুবিধা পেয়েছে। নরেন্দ্র মোদি পাকিস্তানের এজেন্ট নয় কেন?’’ এর রেশ ধরে তিনি আরও বলেন, ‘‘পাশেই ছিল সিরাজদৌল্লা। তার পিছনে মীরজাফর ছুরি মারে৷ নরেন্দ্র মোদি ভারতের প্রধানমন্ত্রী হতেও আসেননি। মোদি ভারতকে শেষ করে দিতে এসেছে। ৪৫ শতাংশ বেকারত্ব বেড়েছে। মূল্যবৃদ্ধি হয়েছে।’’ প্রধানমন্ত্রীদের ইতিহাসে মোদি কী কাজের জন্য বিখ্যাত, এই প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন পুরমন্ত্রী৷ তিনি বলেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রীদের কথা বলতে গেলে জওহরলাল নেহেরু, ইন্দিরা গান্ধী, রাজীব গান্ধী বা বাজপেয়ীর নাম নেন সকলে। কিন্তু মোদির নাম মানুষ কেন মনে রাখবে?’’ একইসঙ্গে জিএসটি, নোটবন্দি নিয়েও কটাক্ষ করেন ফিরহাদ হাকিম। তিনি বলেন, ‘‘দেশকে যদি ভালবাসি, ঘৃণা করতে হবে মোদিকে। না হলে দেশ থাকবে না।’’ ইডি, সিবিআইয়ের প্রসঙ্গ তুলে তাঁর বক্তব্য,‘‘নরেন্দ্র মোদি আপনার কাছে সবাই মাথানত করবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় করবেন না। লড়াই করবেন।’’

[ আরও পড়ুন: ‘কেন্দ্রীয় বাহিনী বুথে ঢুকলে ভোট বন্ধ করে দিন’, নিদান অনুব্রতর]

বিজেপি নেতা অমিত শাহকে ‘মোটা ভাই’ বলে কটাক্ষ করেন  রাজ্যের মন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘‘যত মস্তানি করেছো করো। এখানে এনআরসি করতে আসলে মানুষ ঠ্যাং ভেঙে পাঠিয়ে দেবে।’’ কংগ্রেস-সিপিএমকে ভোট না দেওয়ার জন্য আবেদন করে তিনি বলেন, ‘‘ওদের ভোট দেওয়া মানে বিজেপির হাত শক্ত করা।’’ রাজ্যের উন্নয়নের ধারাকে বজায় রাখতে তৃণমূলকে ভোট দেওয়ার আরজি জানান তিনি৷ পাটপুকুরের পর থেকে তেহট্টের বিনোদনগরেও সভা করেন তিনি৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement