৩১ ভাদ্র  ১৪২৬  বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

পলাশ পাত্র, তেহট্ট: ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করার অভিযোগে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করল নদিয়ার হোগলবেড়িয়া থানার পুলিশ। ধৃতদের বৃহস্পতিবার কৃষ্ণনগর সিজেএম আদালতে তোলা হয়। তাদের মধ্যে তিনজনকে আপাতত পাঁচদিনের পুলিশ হেফাজতে থাকতে হবে। বাকিদের জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

[আরও পড়ুন: পর্যটনের পাশাপাশি পরিবেশ রক্ষার পাঠ, জলদাপাড়া ভ্রমণে বদলের ভাবনা বনদপ্তরের]

নদিয়ার হোগলবেড়িয়া থানা এলাকার বাসিন্দা সতীনাথ সিংহ রায়ের বড় ছেলে সমীরণ কর্মসূত্রে অন্যত্র থাকে। দিনকয়েক আগে ছুটিতে এ রাজ্যে আসে সে। অভিযোগ, সেই সময় মুসলমান ধর্ম এবং ধর্মাবলম্বীদের নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় কুরুচিকর পোস্ট করে সে। সেই পোস্টটি তার বাবা সতীনাথ, ছোট ভাই দীপঙ্কর এবং এলাকার যুবক তীর্থঙ্কর সরকার, তীর্থ বিশ্বাস, বিমান ঘোষাল শেয়ারও করে। ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত হানা পোস্টটি ভাইরাল হতে বেশি সময় নেয়নি। বিদ্যুতের গতিতে ছড়িয়ে পড়া ওই পোস্টটি নজরে আসে স্থানীয় বাসিন্দা আসরাফুল খান-সহ দু’জনের। তাতেই প্রায় আগুন জ্বলে ওঠে। সঙ্গে সঙ্গে হোগলবেড়িয়া থানায় যান তাঁরা। প্রমাণস্বরূপ পুলিশকে ওই পোস্টটি দেখিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ তৎপরতার সঙ্গে তদন্ত শুরু করে। দিনকয়েকের মধ্যেই সতীনাথ সিংহ রায়, দীপঙ্কর সিংহ রায়, তীর্থঙ্কর সরকার, তীর্থ বিশ্বাস, বিমান ঘোষাল নামে ওই পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে। ধৃতদের মধ্যে তীর্থঙ্কর সরকার, তীর্থ বিশ্বাস, বিমান ঘোষাল ফেসবুকে বিতর্কিত পোস্টের কথা পুলিশি জেরায় স্বীকার করে নেয়। তবে ধৃত ৭২ বছর বয়সি সতীনাথ সিংহ রায়ের দাবি, তার নিজের এবং ছেলে দীপঙ্করের কোনও ফেসবুক প্রোফাইল নেই। তাই পোস্ট শেয়ার করার অভিযোগ ভিত্তিহীন। যদিও পুলিশ বিষয়টি খতিয়ে দেখছে।

[আরও পড়ুন: ফের ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনি, অন্ডালে পুলিশের তৎপরতায় উদ্ধার যুবক]

ধৃতদের বৃহস্পতিবার কৃষ্ণনগর সিজেএম আদালতে তোলা হয়। ধৃতদের মধ্যে সতীনাথ সিংহ রায়, দীপঙ্কর সিংহ রায়কে বিচারক ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন। তীর্থঙ্কর সরকার, তীর্থ বিশ্বাস, বিমান ঘোষালকে ৫ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন। ধৃতেরা বিজেপির সঙ্গে যুক্ত বলেই দাবি স্থানীয়দের। তাই স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনায় লেগেছে রাজনীতির রং। এই প্রসঙ্গে নদিয়া জেলা বিজেপি সভাপতি (উত্তর) মহাদেব সরকার বলেন, “ফেসবুক প্রোফাইল না থাকা সত্ত্বেও ৭২ বছর বয়সি একজনকে পুলিশ সোশ্যাল মিডিয়ায় ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের অভিযোগে গ্রেপ্তার করেছে। বোঝা যাচ্ছে পুলিশ কত কাজ করে।” যদিও এ বিষয়ে তৃণমূলের তরফে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং