BREAKING NEWS

২৩ চৈত্র  ১৪২৬  সোমবার ৬ এপ্রিল ২০২০ 

Advertisement

ছোট গাড়ির সঙ্গে ডাম্পারের ধাক্কা, ভয়াবহ পথ দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল ৫ জনের

Published by: Sayani Sen |    Posted: February 21, 2020 11:17 am|    Updated: February 21, 2020 11:22 am

An Images

রাজ কুমার, আলিপুরদুয়ার: ভয়াবহ পথ দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল পাঁচজনের। গুরুতর আহত হয়েছেন আরও একজন। বৃহস্পতিবার রাতে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে আলিপুরদুয়ার জেলার বীরপাড়া থানার ডিমডিমা চা বাগানের কাছে ৪৮ নম্বর এশিয়ান হাইওয়েতে। জখম ব্যক্তি শিলিগুড়ির এক হাসপাতালে ভরতি। তাঁর অবস্থা অত্যন্ত আশঙ্কাজনক। বীরপাড়া থানার পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন‍্য আলিপুরদুয়ার হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

বৃহস্পতিবার গভীর রাতে একটি ছোট গাড়িতে করে ছ’জন শিলিগুড়ি যাচ্ছিলেন। গাড়িতে ছিলেন বীরপাড়া ক্ষুদিরাম পল্লির বাসিন্দা পেশায় মাছ ব্যবসায়ী আশরাফ আলি, ক্ষুদিরাম পল্লির বাসিন্দা পেশায় সাইকেল দোকানের কর্মী বরুণ সরকার, বিরবিটি কলোনির বাসিন্দা পেশায় মাছ ব্যবসায়ী মনোজ শাহ, শান্তিনগর কলোনির বাসিন্দা পেশায় গ্রিলের দোকানের কর্মী মিঠুন দাস, শান্তিনগর কলোনির বাসিন্দা পেশায় গ্রিলের দোকানের কর্মী সঞ্জয় বিশ্বাস এবং শান্তিনগর কলোনির বাসিন্দা শিবু মণ্ডল।

আলিপুরদুয়ারের বীরপাড়া থানার ডিমডিমা চা বাগানের কাছে ৪৮ নম্বর এশিয়ান হাইওয়েতে আচমকাই ছোট গাড়িটির সঙ্গে একটি ডাম্পারের ধাক্কা লাগে। ঘটনাস্থলে প্রায় ভেঙে চুরমার হয়ে যায় ওই ছোট গাড়িটি।

Accident

ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় আশরাফ আলি, বরুণ সরকার, মনোজ শাহ, মিঠুন দাস এবং সঞ্জয় বিশ্বাসের। শিবু মণ্ডলকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। প্রথমে বীরপাড়া রাজ্য সাধারণ হাসপাতালে ভরতি করা হয় তাঁকে। তবে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় শিবুকে রাতেই শিলিগুড়ির এক নার্সিংহোমে স্থানান্তরিত করা হয়। সেখানেই আপাতত চিকিৎসা চলছে শিবুর। পুলিশ নিহত ওই পাঁচজনের মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। দুর্ঘটনাগ্রস্ত ওই গাড়িটিকেও বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: বন্ধ শ্যামনগরের ওয়েভারলি জুটমিল, কারখানায় ভাঙচুর চালাল ক্ষুব্ধ শ্রমিকরা]

দুর্ঘটনা রুখতে ‘সেফ ড্রাইভ, সেভ লাইফ’ কর্মসূচি নিয়েছে রাজ্য সরকার। যানবাহনের গতি নিয়ন্ত্রণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তবে তা সত্ত্বেও রাত বাড়লেই জাতীয় সড়কে বাড়তে থাকে গাতির গতিবেগ। যার ফলে ঘটছে একের পর এক দুর্ঘটনা। বাড়ছে প্রাণহানি। রাজ্য সরকারের তরফে কর্মসূচি নেওয়া হলেও, সাধারণ মানুষের সচেতনতা বাড়ানো যে সম্ভব হচ্ছে না তাই যেন আরও একবার বীরপাড়ার ঘটনায় প্রমাণিত হল।

Advertisement

Advertisement

Advertisement