২ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২০ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২০ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়: কেন আচমকা উধাও হয়ে গেলেন নোডাল অফিসার? দীর্ঘক্ষণের জেরায় সেই জল্পনার অবসান করলেন অর্ণব রায়৷ সিআইডি আধিকারিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি জানান, অতিরিক্ত কাজের চাপেই বিরক্ত হয়ে গিয়েছিলেন তিনি৷ তাই বাধ্য হয়েই অফিস থেকে বেরিয়ে যান৷ সুইচড অফ করে দেন দু’টি মোবাইল নম্বর৷ কৃষ্ণনগর থেকে হাওড়া স্টেশনে চলে আসেন অর্ণব রায়৷ সেখানেই দিনসাতেক ছিলেন তিনি৷ খাওয়াদাওয়া করেন স্টেশন চত্বরেই৷ বৃহস্পতিবার সকালে মোবাইলের সুইচ অন করেন নোডাল অফিসার৷ এরপরই মোবাইল নম্বর ট্র্যাক করে হাওড়া স্টেশন থেকেই পাওয়া যায় তাঁকে৷ যদিও সিআইডি আধিকারিকরা জানান অর্ণব রায়ের বয়ান আদৌ সত্য কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷ এদিকে, এদিন দুপুরে তাঁর শ্বশুর দাবি করেছিলেন অপহরণ করা হয়েছিল ওই নোডাল অফিসারকে৷ সেই দাবির নেপথ্যে কোনও রহস্য রয়েছে কিনা, তা তলিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা৷    

[ আরও পড়ুন: ‘১২০টির বেশি আসন পেলে রাজনীতি ছেড়ে দেব’, বিজেপিকে চ্যালেঞ্জ অনুব্রতর]

কৃষ্ণনগরের ইভিএম এবং ভিভিপ্যাট দেখভালের দায়িত্বে ছিলেন অর্ণব রায়৷ ১৮ এপ্রিল দুপুরের পর থেকে নিখোঁজ হয়ে যান তিনি৷ দু’টি মোবাইল নম্বর সুইচড অফ৷ গাড়িও রেখে যান অফিসেই৷ তাই তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি৷ ওইদিন রাতেই দায়ের করা হয় নিখোঁজ ডায়েরি৷ শুরু হয় খোঁজাখুঁজি৷ তবে তাতেও কোনও লাভ হয়নি৷ পাওয়া যায়নি অর্ণব রায়কে৷ উদ্বেগ,উৎকণ্ঠায় দিন গুনতে শুরু করেন নোডাল অফিসারের স্ত্রী অনিশা যশ, বাবা, মা, শ্বশুর-সহ অন্যান্য পরিজনেরা৷ কেউ কেউ দাবি করেন, অর্ণব রায়ের নিখোঁজ হওয়ার নেপথ্যে রয়েছে মানসিক অবসাদ৷ যদিও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টের মাধ্যমে আগেই এই দাবি নস্যাৎ করেছিলেন নিখোঁজ আধিকারিকের স্ত্রী৷ স্বামীর সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক খুবই ভাল ছিল বলেও জানিয়েছিলেন তিনি৷ পরিবর্তে তাঁর স্বামী নিখোঁজের নেপথ্যে কোনও ষড়যন্ত্র রয়েছে বলেও অভিযোগ করেছিলেন অনিশা৷

[ আরও পড়ুন: অর্জুনের গড় ভাটপাড়ায় তৃণমূলের বাজি মদন মিত্র, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর]

ধোঁয়াশার মাঝেই বৃহস্পতিবার সকালে হাওড়া স্টেশনে খোঁজ মেলে নোডাল অফিসারের৷ আপাতত তাঁকে জেরা করছেন সিআইডি আধিকারিক৷ আচমকা তাঁর গায়েব হয়ে যাওয়ার নেপথ্য কাহিনি ঠিক কী, তা জানার চেষ্টা করছেন তদন্তকারীরা৷ এসবের মাঝে মুখ খুললেন অর্ণবের শ্বশুর৷ নবান্নের খুব কাছে একটি বহুতলেই বাস নোডাল অফিসারের শ্বশুর নির্মল যশের৷ দীর্ঘক্ষণ ধরে পুলিশের চাকরি করছেন তিনি৷ আপাতত দক্ষিণ ২৪ পরগনার একটি থানায় আইসি পদে কর্মরত নির্মল যশ৷ তাঁর দাবি, অপহরণ করা হয়েছিল অর্ণবকে৷ বৃহস্পতিবার সকালে অপহরণকারীরা তাঁকে ছেড়ে দিয়ে গিয়েছে৷ অপহরণকারীদের খপ্পর থেকে ছাড়া পেয়েই তাই শ্বশুরবাড়িতে চলে গিয়েছিলেন অর্ণব৷  এরই মাঝে যদিও সমস্ত জল্পনাতেই জল ঢালেন অর্ণব রায়৷ সিআইডির মুখোমুখি তিনি স্পষ্ট জানান কাজের চাপে কৃষ্ণনগর ছেড়ে হাওড়া চলে গিয়েছিলেন তিনি৷ ওই নোডাল অফিসারের দাবি সত্যতা আছে কিনা, তা খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা৷ 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং