BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

এখনও নিখোঁজ নোডাল অফিসার, তদন্তের দাবিতে জেলাশাসকের দপ্তরে সুজন

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: April 24, 2019 4:31 pm|    Updated: April 24, 2019 5:08 pm

An Images

পলাশ পাত্র, তেহট্ট: ৭ দিন কেটে গিয়েছে। এখনও খোঁজ মেলেনি নোডাল অফিসার অর্ণব রায়ের। নিখোঁজ অফিসারের সন্ধানে পর্যাপ্ত তদন্তের দাবি জানিয়ে বুধবার নদিয়ার জেলাশাসকের সঙ্গে দেখা করলেন সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী। তাঁর প্রশ্ন, যেখানে নির্বাচনের এত গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকা এক অফিসারের নিরাপত্তা দিতে পারছে না প্রশাসন, সেখানে সাধারণ ভোটার, ভোটকর্মীদের নিরাপত্তা কোথায়? তাঁর দাবি, নদিয়ার দুটি আসনের ভোটের আগেই খুঁজে বের করা হোক অর্ণব রায়কে।

[আরও পড়ুন: নির্বাচনে কালো টাকা খরচ করছে বিজেপি, শ্রীরামপুরের সভায় বিস্ফোরক মুখ্যমন্ত্রী]

১৮ এপ্রিল বাড়ি থেকে শেষবার বাড়ি থেকে বেড়িয়েছিলেন অর্ণব রায়৷ স্ত্রীর সঙ্গে ফোনে কথাও হয়েছিল সেদিনই৷ ১৮ এপ্রিল দুপুরের পর থেকে উধাও নোডাল অফিসার৷ এ বিষয়ে নিখোঁজ ডায়েরি করা হয়েছে পরিবারের তরফে৷ তাতেও সুরাহা হয়নি৷ তদন্ত এগোচ্ছে বলেই দাবি জেলা প্রশাসনের৷ তবে, সেই আশ্বাসে সন্তুষ্ট নন কেউ। নিখোঁজ অফিসারের খোঁজে তদন্তের দাবিতে সরব হয়েছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল। নিখোঁজ অফিসারের খোঁজে পর্যাপ্ত তদন্তের দাবি জানিয়ে বুধবার বেলা ১২টায় নদিয়ার জেলাশাসকের সঙ্গে দেখা করেন সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী ও জেলার বাম নেতৃত্ব। দীর্ঘক্ষণ জেলাশাসকের সঙ্গে কথা বলেন তাঁরা। সেখান থেকেই ভোটকর্মীদের নিরাপত্তা প্রসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও নরেন্দ্র মোদিকে কটাক্ষ করেন তিনি। বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রী  হেলিকপ্টারে করে সভা করছেন। দিদি প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন। কিন্তু ভোটের ইভিএম এবং ভিভিপ্যাটের দায়িত্বে থাকা আধিকারিকের নিরাপত্তা দিতে পারছেন না কেউ। তাহলে সাধারণের নিরাপত্তা কোথায়? পাশাপাশি তিনি একথাও বলেন, প্রশাসন নিরাপত্তা দিতে না পারলেও যে কোনও উপায়ে মানুষে তাঁর ভোটাধিকার প্রয়োগ করবে। 

[আরও পড়ুন: জোড়া ফুল চিহ্নে ভোটের আবেদন জানাচ্ছেন কংগ্রেস বিধায়ক!]

নোডাল অফিসার নিখোঁজ হওয়ার পর প্রথমেই পারিবারিক অশান্তির বিষয় প্রকাশ্যে আসে। যদিও প্রথম থেকে তাঁর পরিবারের তরফে বলা হয়েছে, লুকিয়ে রাখা হয়েছে অর্ণব রায়কে। নোডাল অফিসারের পরিবারের বক্তব্যকে সমর্থন করেই এদিন সুজন চক্রবর্তী বলেন, ‘পুলিশ পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নিচ্ছে না। পুলিশ চাইলে ঠিকই খোঁজ মিলবে ওই আধিকারিকের।’ পাশাপাশি তিনি বলেন, ২৯ এপ্রিল অর্থাৎ নদিয়ার দুটি আসনে ভোটের আগেই খুঁজে বের করা হোক ওই আধিকারিককে। সেইসঙ্গে, সাধারণের নিরাপত্তা নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করে সিপিএম নেতৃত্ব। প্রশাসন সক্রিয় ভূমিকা নিলে অর্ণব রায়ের খোঁজ মিলবে বলেই আশাবাদী রায় পরিবার।  

দেখুন ভিডিও:

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement