৭  আশ্বিন  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

নোডাল অফিসারের নিখোঁজ রহস্য, সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখছে পুলিশ

Published by: Tanumoy Ghosal |    Posted: April 19, 2019 7:54 pm|    Updated: April 19, 2019 8:04 pm

Wife Of missing Nodal officer meets DM in Krishnanagar

পলাশ পাত্র, তেহট্ট: চব্বিশ ঘণ্টা পেরিয়ে গিয়েছে। এখনও খোঁজ নেই নদিয়া জেলার নোডাল অফিসার অর্ণব রায়ের। প্রবল উৎকণ্ঠায় স্ত্রী ও পরিবারের সদস্যরা। শুক্রবার জেলাশাসক ও রিটার্নিং অফিসার সুমিত গুপ্তার সঙ্গে দেখা করলেন নিখোঁজ আধিকারিকের স্ত্রী অনিশা যশ। তবে জেলাশাসকের সঙ্গে কী কথাবার্তা হয়েছে, তা নিয়ে অবশ্য কিছু বলতে চাননি তিনি। কোনওমতে কান্না চেপে জানালেন, তিনি শুধু চান, স্বামী যেন দ্রুত ফিরে আসে। এদিকে,নোডাল অর্ণব রায়ের ঘটনায় থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করেছে নদিয়া জেলা প্রশাসন। নিখোঁজ আধিকারিকের গাড়ির চালককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। নির্বাচন কমিশনের বিশেষ পর্যবেক্ষক অজয় নায়েক জানিয়েছেন, অর্ণব রায়ের জায়গায় অন্য এক আধিকারিককে নদিয়া জেলার নোডাল অফিসার পদে নিয়োগ করা হয়েছে।

[ আরও পড়ুন: ‘কোরান-গীতা-বাইবেল পড়েছি, ভেদাভেদ মানি না’, ধর্মনিরপেক্ষতা নিয়ে বার্তা নুসরতের]

চলছে লোকসভা ভোট৷ চতুর্থ দফায় ২৯ এপ্রিল ভোটগ্রহণ নদিয়া জেলার দুটি লোকসভা কেন্দ্রে। জেলায় যখন ভোটের প্রস্তুতি তুঙ্গে, ঠিক তখনই রহস্যজনকভাবে উধাও নদিয়ার নোডাল অফিসার অর্ণব রায়। জানা গিয়েছে, কৃষ্ণনগর ও রানাঘাট লোকসভা কেন্দ্রে ইভিএম ও ভিভিপ্যাট-এর ওসি হিসেবে কাজ করছিলেন অর্ণব। বৃহস্পতিবার দুপুর দু’টো পর্যন্ত কৃষ্ণনগর শহরের বিপ্রদাস পালচৌধুরী কলেজে ছিলেন ওই নির্বাচনী আধিকারিক। তারপর থেকে আর কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না তাঁর।

কৃষ্ণনগরের কোতোয়ালি থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করেছে নদিয়া জেলা প্রশাসন। নোডাল অফিসারের গাড়ির চালককে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। জানা গিয়েছে, একটি সিসিটিভি ফুটেজ হাতে এসেছে পুলিশের। সেই ফুটেজে দেখা যাচ্ছে, বৃহস্পতিবার দুপুর ১টা নাগাদ ফোনে কারও সঙ্গে কথা বলতে বলতে কৃষ্ণনগরের বিপ্রদাস পালচৌধুরী কলেজ থেকে বেরিয়ে যাচ্ছেন নোডাল অফিসার অর্ণব রায়। দুপুর আড়াইটে নাগাদ তাঁর ফোনের টাওয়ার লোকেশন ছিল শান্তিপুর। নদিয়া জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর, কৃষ্ণনগর গভর্নমেন্ট কলেজ, সিএমসি স্কুল ও বিপ্রদাস পালচৌধুরী কলেজে ইভিএম ও ভিভিপ্যাট-এর দায়িত্বে ছিলেন অর্ণব রায়। তাঁর গাড়ির চালক বাপ্পা দেবনাথ জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার সকালে কৃষ্ণনগর গর্ভনমেন্ট কলেজ, সিএমসি স্কুল ঘুরে বিপ্রদাস পালচৌধুরী পলিটেকনিক কলেজে গিয়েছিলেন অর্ণব। কিন্তু, কৃষ্ণনগর থেকে শান্তিপুরে তিনি কেন গেলেন? সেই উত্তর জানতে সবটা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

[ আরও পড়ুন: অনুগামীকে পুলিশি হেনস্তার অভিযোগ, প্রতিবাদে বীজপুর থানায় বিক্ষোভ অর্জুনের]

এদিকে আবার নদিয়া জেলাশাসক ও রিটার্নিং অফিসার সুমিত গুপ্তার সঙ্গে নোডাল অফিসার অর্ণব রায়ের সম্পর্ক ভাল ছিল না বলে শোনা যাচ্ছে। যদিও বিষয়টি অস্বীকার করেছেন জেলাশাসক। তাঁর দাবি, গত দু’দিন জেলার নোডাল অফিসারের সঙ্গে তাঁর কোনও যোগাযোগই ছিল না। কিন্তু, লোকসভা নির্বাচন প্রক্রিয়ায় এত গুরুত্বপূর্ণ পদে যিনি কাজ করছিলেন, তাঁর নিরাপত্তারক্ষী কেন ছিল না? এই প্রশ্নও উঠছে৷ জেলাশাসক সুমিত গুপ্তার বক্তব্য, সাধারণত যাঁরা নোডাল অফিসার হিসেবে কাজ করেন, তাঁদের নিরাপত্তারক্ষী থাকে না। অর্ণববাবু নিজেও নাকি নিরাপত্তারক্ষী চাননি। তবে যা-ই ঘটে থাকুক না কেন, ভোটের আগে জেলার নোডাল অফিসারের নিখোঁজের নেপথ্যে ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছেন নদিয়া জেলার বিরোধী দলের নেতারা।

দেখুন ভিডিও:

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে