১২ মাঘ  ১৪২৮  বুধবার ২৬ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

খেলার ছলে শিক্ষা, মানবপাচার রুখতে ‘স্পোর্টস থেরাপি’ শিলিগুড়িতে

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 26, 2018 5:39 pm|    Updated: July 26, 2018 5:42 pm

How to evade traffickers? Siliguri civic body to teach children

সংগ্রাম সিংহরায়, শিলিগুড়ি: পাচার রুখতে এবার ‘গেমস অ্যান্ড স্পোর্টস থেরাপি’ জেলা প্রশাসনের৷ অদ্ভুত শোনালেও এই পথেই আটকানো যাবে মানবপাচার৷ এমনটাই মনে করছে লিগাল এড ফোরাম৷

[৩০০ ডেটোনেটর, ১৯৩ জিলেটিন স্টিক-সহ গ্রেপ্তার খাদানকর্মী]

শিলিগুড়ি থেকে সুন্দরবন, মানবপাচারের একদা ‘স্বর্গরাজ্যে’ পড়ুয়াদের খেলার মাধ্যমে নজরদারি বাড়াতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে খবর৷ এ বিষয়ে পথ দেখাচ্ছে শিলিগুড়ি। ইতিমধ্যেই মহকুমার দু’টি ব্লকে সরকারিভাবে শুরু হয়েছে এই স্পোর্টস থেরাপি। এই পথেই উত্তরবঙ্গের পাচার উপদ্রুত এলাকা জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার এবং দক্ষিণবঙ্গের সুন্দরবন ও মেদিনীপুর এলাকার কিছুটা অংশ এর আওতায় আনা হচ্ছে। দার্জিলিং জেলা প্রশাসনের সবুজ সংকেত মিলতেই এই দু’টি ব্লকে শুরু হয়েছে ক্রীড়া প্রশিক্ষণ। আপাতত, এখানে টেবিল টেনিস, ফুটবলের মাধ্যমে উদ্যোগ শুরু হয়েছে। পরবর্তীতে চাহিদা ও আগ্রহ বিচার করে এবং ওই সমস্ত খেলাগুলির প্রশিক্ষকদের সময় অনুযায়ী সেগুলিও চালু করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। বুধবার মাটিগাড়ার বিডিও রুনু রায় তাঁর ব্লকে এই প্রকল্পের সূচনা করেন। এর আগে গত ১৪ জুলাই নকশালবাড়িতেও একইভাবে শুরু হয়েছে স্পোর্টস থেরাপি। বিডিও রুনুদেবী বলেন, “এটা অত্যন্ত ভাল উদ্যোগ। এই পদ্ধতিতে যদি কাজ হয় তবে অন্যান্য জায়গাতেও তা চালু করা যেতে পারে। জেলাশাসক ও ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বলব এ বিষয়ে অনায়াসে চিন্তা-ভাবনা করা যায়।”

[ছাত্র খুনের বিচার না পেলে ব্লেড হাতে গণ আত্মহত্যার হুমকি পড়ুয়াদের]

কী এই স্পোর্টস থেরাপি? কীভাবে এর মাধ্যমে পাচার রোখা যাবে? দার্জিলিং জেলা লিগ্যাল এইড ফোরামের সম্পাদক অমিত সরকার বলেন, “মূলত নজরদারির মাধ্যমে ও ছেলেমেয়েদের মানসিকতার পরিবর্তন ঘটানোর জন্য এই পদ্ধতির পরিকল্পনা।” একটি এলাকায় ছেলেমেয়েরা যখন পছন্দমত খেলায় যোগ দেবে, তার প্রথম সুবিধা হবে সেই এলাকায় কতগুলি ছেলেমেয়ে রয়েছে তার একটা হিসেব মোটামুটি থাকবে। একই বয়সী ছেলেমেয়েদের নজরে রাখা ও তার হিসেব জেলা প্রশাসনের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। কেউ মাঠে অনুপস্থিত থাকলে তার বাড়িতে খোঁজ নেওয়া হবে। বেচাল দেখলে তক্ষুণি ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব। সেই সঙ্গে কেউ যদি সত্যিই ভাল খেলে তাদের জেলা ও রাজ্য স্তরে পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে৷

[ক্লাসে মোবাইলে মগ্ন, কানমোলা খেয়ে শিক্ষককে ঘুসি একাদশ শ্রেণির পড়ুয়ার]

খেলা থেকে কেরিয়ারও যে গড়া যেতে পারে, সেই ভাবনা ঢুকিয়ে দেওয়া হবে ওই সব ছেলে-মেয়েদের মনে। তার ফলে ভাল করে খেললে আর্থিক সংকুলান হওয়ার সম্ভাবনা যে রয়েছে, সেটি বুঝতে পারলে অনেকেই ভুল পথে পা বাড়াতে দু’বার ভাববেন। এই ভাবনা থেকেই তাঁরা জেলা প্রশাসনের কাছে গিয়েছিলেন। সেখানে সবুজ সংকেত মিলতেই পুরোদমে কাজ শুরু করতে নেমেছেন। শিলিগুড়ি মহকুমার বাকি দু’টি ব্লকেও খুব শীঘ্রই এই প্রকল্প চালু করা হবে বলে জানানো হয়েছে৷

শিলিগুড়িকে পথপ্রদর্শক করে এরপরে লিগাল এইড ফোরামের পক্ষ থেকে আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়িকেও শীঘ্রই এর আওতায় আনা হচ্ছে। পরবর্তীতে উপদ্রুত সুন্দরবন মেদিনীপুর জেলাতেও তারা এই স্পোর্টস থেরাপি চালু করতে চলেছেন। সে বিষয়ে ওই সমস্ত জেলার ব্লক স্তরে কথা বলা হবে বলে জানিয়েছেন অমিতবাবু৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে