BREAKING NEWS

১৪ কার্তিক  ১৪২৭  শনিবার ৩১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

প্রাক্তন বনাম বর্তমান, দলীয় কর্মসূচি ঘিরে ফের প্রকাশ্যে বীরভূমের বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: October 18, 2020 7:54 pm|    Updated: October 18, 2020 7:54 pm

An Images

ভাস্কর মুখোপাধ্যায়, বোলপুর: নব্য বনাম আদি, প্রাক্তন বনাম বর্তমান পদাধিকারী – জেলা বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব এবার প্রকাশ্যে বীরভূমে (Birbhum)। রবিবার বোলপুরে বিজেপির (BJP) একটা বড় অংশ কৃষি আইনের সমর্থনে মিছিল করে। মিছিলে নেতৃত্ব দেন জেলা বিজেপি সভাপতি শ্যামাপদ মণ্ডলের বিরোধী গোষ্ঠীর নেতা, কর্মীরা। এই মিছিল থেকেই জেলা সভাপতি শ্যামাপদ মণ্ডলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন একাধিক নেতা, কর্মী। কিষাণ মোর্চার জেলা সভাপতি সোমনাথ ঘোষ বীরভূম জেলা বিজেপি সভাপতি শ্যামাপদ মণ্ডলকে ‘রাজনীতির টেস্টটিউব বেবি’ বলে কটাক্ষ করেন। পালটা জবাব দিয়েছেন বিজেপি জেলা সভাপতিও। 

রবিবার বোলপুরের রেল ময়দান থেকে বিজেপির এই মিছিলটি বেরয়। নেতৃত্বে ছিলেন প্রাক্তন বিজেপির জেলা সভাপতি দিলীপ ঘোষ, বোলপুরের বিজেপি নেতা রামপ্রসাদ দাস-সহ অন্যান্যরা। আর এই মিছিল থেকে বিজেপির প্রাক্তন জেলা সভাপতি দিলীপ ঘোষ অভিযোগ করেন, “আজ আপনারা এই মিছিলে যাঁদের দেখছেন, তাঁরা সেই সকল নেতা-কর্মী, যাঁদের বিজেপি থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। আগামী নির্বাচনে এর চরম প্রভাব পড়বে বিজেপির উপর।’’ দিলীপ ঘোষ আরও অভিযোগ করেন, দীর্ঘ লড়াই করে বীরভূমে বিজেপির সংগঠন তৈরি হয়েছে। যাঁরা দীর্ঘ লড়াই করে বিজেপিকে বীরভূমের মাটিতে প্রতিষ্ঠা করেছে, তাদের বাইরে রেখে দল পরিচালনা করছেন জেলা সভাপতি। এর ফলে দল যেমন দুর্বল হচ্ছে, তেমনই তৃণমূল এই দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে জেলায় নিজেদের সংগঠন ধরে রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বলে তিনি আশঙ্কাপ্রকাশ করেছেন।

[আরও পড়ুন: লক্ষ্য ২০২১! ঝটিকা সফরে উত্তরবঙ্গ আসছেন জেপি নাড্ডা]

প্রাক্তন জেলা সভাপতির এই অভিযোগের পালটা জবাবও দিয়েছেন বিজেপির বর্তমান জেলা সভাপতি শ্যামপদ মণ্ডল। তিনি বলেন, “বিজেপির বাইরে কেউ নয়। কেউ পদে আছে, কেউ আবার নেই। কিন্তু আমরা সবাই বিজেপির হয়ে লড়াই করছি।’’ আসলে বিজেপির জেলাস্তরের সংগঠনে নব্য-আদি অন্তর্দ্বন্দ্ব দীর্ঘদিনের। এই কারণে অনেক জেলায় গেরুয়া শিবির সেভাবে সংঘবদ্ধ হতে পারছে না, এই অভিযোগ মুরলীধর সেন লেনের মাথাব্যথা বাড়িয়েছে। একুশের লড়াইয়ের আছে সেই দ্বন্দ্ব মিটিয়ে ফেলতে মরিয়া শীর্ষ নেতৃত্ব। কিন্তু আজ বীরভূম বিজেপির এই দ্বন্দ্বের ছবি ফের গেরুয়া শিবিরের অস্বস্তি বাড়াল বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

[আরও পড়ুন: ‘দলে থেকে বিশ্বাসঘাতকতা করলে সহ্য করব না’, কর্মিসভা থেকে হুঁশিয়ারি তৃণমূল সাংসদের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement