Advertisement
Advertisement
ভাঙড়

ভাঙড়ে উলটপুরাণ! শাসকদলকে চাপে ফেলে বুথ দখলে জমিরক্ষা কমিটি

দলের এজেন্টকে খুনের হুমকি দেওয়া হয়েছে, দাবি তৃণমূলের।

Jami Raksha Committe allegedly capture a booth in Bhangar
Published by: Tanumoy Ghosal
  • Posted:May 19, 2019 5:17 pm
  • Updated:May 19, 2019 5:35 pm

কৃষ্ণকুমার দাস, ভাঙড়: সপ্তম দফা লোকসভা ভোটে রাজ্যে বিক্ষিপ্ত অশান্তি। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে যখন শাসকদলের দিকেই অভিযোগ আঙুল তুলেছে বিরোধীরা, তখন উলটো ছবি যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রের ভাঙড়ে। পোলেরহাট দুই নম্বর পঞ্চায়েতের একটি বুথ দখলের অভিযোগ উঠেছে জমিরক্ষা কমিটির বিরুদ্ধে। তৃণমূল কংগ্রেসের দাবি, ওই ভোটে তাদের পোলিং এজেন্টকে খুনের হুমকিও দেওয়া হয়েছে। ঘটনাস্থলে গেলে পুলিশের সঙ্গেও জমিরক্ষা কমিটির সদস্যদের বচসা হয়৷

[আরও পড়ুন:শেষবেলায় বেনজির অশান্তি ভাটপাড়ায়, মদন মিত্রর গাড়ি লক্ষ্য করে বোমাবাজি]

এলাকার বিদ্যুতের সমস্যা মেটাতে ভাঙড়ের জমিতে পাওয়া গ্রিড বসাতে চেয়েছিল রাজ্য সরকার। এলাকায় পাওয়ার গ্রিড বসানোর বিরোধিতা করে জমিরক্ষা কমিটি গড়ে আন্দোলনে নামেন ভাঙড়ের বাসিন্দাদের একাংশ। ভাঙড়ে পাওয়ার গ্রিড বিরোধী আন্দোলনকে সমর্থন দিয়েছিল বাম, অতি বাম সংগঠনগুলি। আন্দোলনের চাপে শেষপর্যন্ত সিদ্ধান্ত বদল করে সরকার। কিন্তু ঘটনা হল, ভাঙড়ে এখনও জমিরক্ষা কমিটির প্রভাব যথেষ্টই। গত পঞ্চায়েতে বেশ কয়েকটি আসনে প্রার্থীও দিয়েছিল জমিরক্ষা কমিটি। আর এবার লোকসভা ভোটে বুথ দখলের অভিযোগ উঠল কমিটির সদস্যদের বিরুদ্ধে। তৃণমূল কংগ্রেসের অভিযোগ, ভোট চলাকালীন পোলেরহাট ২ নম্বর পঞ্চায়েতের টোনা মাছিভাঙা অবৈতনিক বিদ্যালয়ের বুথটি দখল করে নেন জমিরক্ষা কমিটির সদস্যরা। এমনকী, ওই বুথে তৃণমূল প্রার্থী মিমি চক্রবর্তীর যিনি এজেন্ট ছিলেন, তাঁকে ভোটের পর খুনের হুমকিও দেওয়া হয়। এলাকায় তুমুল উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পুলিশ যখন ঘটনাস্থলে পৌঁছায়, তখন পুলিশকর্মীদের সঙ্গে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন জমিরক্ষা কমিটির সদস্যরা। তৃণমূল নেতা আরাবুল ইসলাম ও তাঁর সঙ্গীদের বিরুদ্ধে পালটা বুথ দখল করে ছাপ্পা ভোটের অভিযোগে তোলেন তাঁরা।

Advertisement

অতীতে রাজনৈতিক সংঘর্ষে বারবার খবরের শিরোনামে উঠে এসেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার ভাঙড়। স্পর্শকাতর এলাকাটি যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে পড়ে। রবিবার সপ্তম দফায় লোকসভা ভোটে অবশ্য ভাঙড়ে অবশ্য তেমন কোনও বড় অশান্তির খবর নেই। তবে সকালে রানিগাছি অবৈতনিক বিদ্যালয়ের বুথ থেকে সিপিএম এজেন্টকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল। বুথে এজেন্ট বসাতে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয় যাদবপুরের সিপিএম প্রার্থী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যকে।  

Advertisement

দেখুন ভিডিও:

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ