BREAKING NEWS

১০  আশ্বিন  ১৪২৯  শনিবার ১ অক্টোবর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

একমাস বন্ধ ছিল আদালত, সেই সুযোগে রাজত্ব শুরু রামভক্তদের

Published by: Tanujit Das |    Posted: November 12, 2018 9:18 pm|    Updated: November 12, 2018 10:05 pm

 Katwa Court premises captured by monkeys

ধীমান রায়, কাটোয়া: শারোদৎসব-দীপাবলি-ভ্রাতৃদ্বিতীয়া, টানা প্রায় একমাস ছুটিতে কেটেছে। এই একমাস ধরে বন্ধ ছিল কাটোয়া মহকুমা আদালত। কাজের দিনে যে আদালত চত্বরে তিলধারণের জায়গা থাকে না, আইনজীবী ও মক্কেলদের ছোটাছুটি লেগেই থাকে, গত একমাস ধরে সেখানে বিরাজ করেছে নীরবতা৷ ছিল না পুলিশের আনাগোনা৷ মানুষজনের ভিড়ের চাপে গমগম করে যে আদালত চত্বর, গত একমাস ধরে তা ছিল শুনশান। আর এই ছুটিকেই পুরোদমে কাজে লাগাল রামভক্তরা৷

[মাত্র ৮০ টাকার জন্য মহিলাকে খুনের চেষ্টা, কাঠগড়ায় ব্যবসায়ী]

জানা গিয়েছে, কাটোয়া আদালত চত্বর কার্যত দখলে চলে যায় হনুমান বাহিনীর। কিন্তু তা ঘুণাক্ষরেও টের পাননি আদালতের কর্মীরা। তার ফল হাতেনাতে পাওয়া গেল ছুটি শেষ হতেই৷ সোমবার কাটোয়া মহকুমা আদালত খুলতেই হনুমান বাহিনীর তাণ্ডবের মুখে পড়তে হল আইনজীবী থেকে শুরু করে পুলিশ ও অন্যান্যদের। যেন, আদালতে মানুষের প্রবেশাধিকার নিষিদ্ধ৷ ক্ষিপ্ত রামভক্তরা কাওকে রেয়াত করল না৷ কারও হাত থেকে কেক কেড়ে দৌঁড় দিল তো কাউকে দাঁত খিঁচিয়ে তাড়া করল। পরিস্থিতি এতটাই চরমে পৌঁছায় যে, প্রাণ ভয়ে কেউ কেউ আশ্রয় নিলেন আদালতের ভিতরে বা কোণের ঘরে৷ এমনকী, কেউ প্রাণ বাঁচাতে জড়িয়ে ধরলেন পুলিশ কর্মীদের৷ সোমবার সকাল দশটা থেকে প্রায় ঘণ্টাখানেক ধরে আদালত চত্বরে দাপট দেখায় এই হনুমান বাহিনী৷ যা দেখে ভয়ে সিঁটিয়ে থাকতে হল স্থানীয়দের। শেষে আদালতে যখন মানুষের ভিড় বাড়তে থাকে, তখন পুলিশ তৎপরতায় আদালত চত্বর থেকে বিদায় নেয় রামভক্তরা৷

[বামাখ্যাপার গ্রামে ৫টি মন্দিরে দুঃসাহসিক চুরি, এলাকায় চাঞ্চল্য]

গত ১৩ অক্টোবর থেকে পুজোর কারণে বন্ধ ছিল কাটোয়া মহকুমা আদালত৷ শুধুমাত্র খোলা ছিল বিশেষ আদালত৷ তাতে মাত্র হাতেগোনা কয়েকজন ছাড়া হাজির থাকতেন না কেউই। স্থানীয় সূত্রে খবর, এইদিন সকাল দশটা থেকে আদালত চত্বরে ভিড় জমতে শুরু করে৷ কাটোয়া জেল থেকে প্রায় ৫০ জন আসামীকে এদিন আদালতে হাজির করানো হয়৷ এছাড়া অন্যান্য কাজের জন্যও বহু মানুষের ভিড় জমতে শুরু করে আদালতে৷ তখনই দেখা যায় পিলপিল করে সেখানে হাজির হচ্ছে হনুমান বাহিনী৷ কাটোয়া আদালতের ল-ক্লার্ক অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক অসীমনাথ পাল বলেন, “আদালত চত্বরে মাঝেমধ্যেই দু-চারটি করে হনুমান আসে৷ তবে এত বেশি সংখ্যায় হনুমান কোনওদিনই দেখা যায়নি।”

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে