BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

হাই কোর্টে বড় জয়, কেন্দ্রের গরিব কল্যাণ রোজগার অভিযানে পুরুলিয়ার নাম অন্তর্ভুক্তির নির্দেশ

Published by: Sulaya Singha |    Posted: September 7, 2020 9:57 pm|    Updated: September 7, 2020 9:57 pm

An Images

ফাইল ছবি

সুমিত বিশ্বাস, পুরুলিয়া: গরিব কল্যাণ রোজগার অভিযানে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে পুরুলিয়ার নাম। জেলাশাসককে গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রকে রিপোর্ট পাঠানোর নির্দেশ দিল কলকাতা হাই কোর্ট।

পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য কেন্দ্র সরকারের গরিব কল্যাণ রোজগার অভিযানে পুরুলিয়া-সহ রাজ্যের কোনও জেলারই নাম নেই। তাই গত ৯ জুলাই কেন্দ্রের এই বঞ্চনার বিরুদ্ধে পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রকের বিরুদ্ধে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেন পুরুলিয়া জেলা কংগ্রেস সভাপতি তথা বাঘমুন্ডির বিধায়ক, বিধানসভার ডেপুটি লিডার নেপাল মাহাতো। সেই মামলাতেই গত বৃহস্পতিবার রায় দেয় হাই কোর্ট। সোমবার বিধায়ক নেপাল মাহাতোর আইনজীবী সৌগত মিত্র বলেন, “এই প্রকল্পে পুরুলিয়া তালিকাভুক্ত হওয়ার যোগ্য। এই কথাই মনে করে আদালত। রায়ের ২১ দিনের মধ্যে কেন্দ্রের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রকে এই বিষয়ে জেলাশাসককে নিজের বক্তব্য-সহ রিপোর্ট পাঠাতে হবে। সেই সঙ্গে রায়ের সাতদিনের মধ্যে ওই পিটিশনকারীকে জেলাশাসকের কাছে তাঁর আবেদনপত্র জমা করতে হবে। এই মামলায় অ্যাডিশনাল সলিসিটর জেনারেল ওয়াই জে দস্তুর হাই কোর্টে এই বিষয়ে সহমত প্রকাশ করেন।”

[আরও পড়ুন: ‘রাজ্য সরকারের নীতি হিংসা, অথচ পুলিশ নির্বিকার’, ফের উর্দিধারীদের তোপ দিলীপের]

আদালতের রায়েই প্রায় স্পষ্ট, পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য কেন্দ্রের ওই প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত হতে চলেছে পুরুলিয়ার নাম। এই প্রকল্পের প্রধান মাপকাঠিই ছিল, যে জেলায় ২৫ হাজারের বেশি পরিযায়ী শ্রমিক রয়েছেন, সেই জেলা এই প্রকল্পের সুবিধা পাবে। কিন্তু গত ৩০ জুন পর্যন্ত ৩৯ হাজারের বেশি পরিযায়ী শ্রমিক এই জেলায় ভিন রাজ্য থেকে আসেন। কিন্তু তারপরেও পুরুলিয়া ওই প্রকল্প থেকে বাদ যায়। এদিন বিধায়ক নেপাল মাহাতো বলেন, “এই রায়ে পুরুলিয়ার পরিযায়ী শ্রমিকদের জয়। হাইকোর্ট বলেছে এই পিটিশনের যৌক্তিকতা রয়েছে। তাই আমি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) চিঠি লিখে জানিয়েছি, অন্যান্য জেলার জেলাশাসকরাও কেন্দ্রের কাছে তথ্য পাঠাক। তাহলে ২৫ হাজারের বেশি পরিযায়ী শ্রমিক যে জেলায় রয়েছেন, তারা এই প্রকল্পের সুবিধা পাবেন।” পাশাপাশি বিধায়ক প্রশ্ন তোলেন, কেন বাংলার জেলাগুলি বাদ গেল? সোমবার রাতে পুরুলিয়ার জেলাশাসক রাহুল মজুমদার বলেন, “হাই কোর্টের রায়ের বিষয়ে রাজ্য সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে পদক্ষেপ গ্রহণ করব।”

উল্লেখ্য, পরিয়ায়ী শ্রমিকদের জন্য কেন্দ্র সরকার এই প্রকল্প ঘোষণা করে ২০ জুন। এই জেলায় মোট পরিযায়ী শ্রমিকের সংখ্যা ৬৭,০৩২। তার মধ্যে ভিন রাজ্য থেকে আসা পরিযায়ী রয়েছেন ৪১,৩৪৮। রাজ্যের বিভিন্ন জেলা থেকে আসার সংখ্যা ২৫,৬৮৪। তবে পুরুলিয়া ছাড়াও বাংলার আরও কয়েকটি জেলায় ২৫ হাজারের বেশি পরিযায়ী শ্রমিক ফিরে এসেছেন। কিন্তু সেই জেলাগুলিরও নাম নেই এই প্রকল্পে। সারা দেশের নিরিখে মোট ১১৬টি জেলার নাম রয়েছে। ওই জেলাগুলির পরিযায়ীদের আপাতত রেল, বনদপ্তর-সহ একাধিক বিভাগে মোট ২৫ রকমের কাজ পাওয়ার বিধি আছে। আপাতত ১২৫ দিন করে তারা কাজ পাবেন প্রায় ৩০০ টাকা।

[আরও পড়ুন: কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের পথেই হাঁটল যাদবপুর, বাড়িতে বসে বই দেখে পরীক্ষা দেবেন পড়ুয়ারা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement