Advertisement
Advertisement
Murder

বকেয়া থাকায় চা দিতে অস্বীকার দোকানির, রাগের মাথায় কুপিয়ে খুন! গ্রেপ্তার ক্রেতা

আগেও স্ত্রীর উপর হামলা করায় কারাবাসের সাজা ভোগ করেছিল যুবক, জানাচ্ছেন মা।

Man allegedly killed tea seller over dues at Tamluk, arrested | Sangbad Pratidin

ছবি: প্রতীকী

Published by: Sucheta Sengupta
  • Posted:April 23, 2023 8:10 pm
  • Updated:April 23, 2023 8:10 pm

সৈকত মাইতি, তমলুক: চায়ের দোকানে বকেয়া ছিল ৩০ টাকা। দীর্ঘদিনের বকেয়া টাকা চাইতে গিয়ে হুমকির মুখে পড়েছিলেন পাড়ার দোকানদার। খুব একটা তোয়াক্কা করেননি। তবে পরে যখন ক্রেতা নতুন করে গরম চা (Tea)বানানোর ‘হুকুম’ করেন, তখন বিক্রেতা তা দিতে অস্বীকার করে দোকানের ঝাঁপ ফেলেছিলেন। আর সেটাই হল কাল। চা চেয়েও না পেয়ে ক্রেতার মেজাজ এতটাই গরম হয়ে যায় যে কয়েক মিনিটের মধ্যে বাড়ি থেকে ধারাল অস্ত্র নিয়ে এসে কুপিয়ে দোকানিকে খুনই (Murder) করে সে! তমলুকের খারুই শংকরখালি এলাকায় অভিযোগ অন্তত তেমনই। পালাতে গিয়ে স্থানীয়দের হাতে ধরা পড়লে গণপিটুনিও (Lynching) দেওয়া হয় তাকে। পরে পুলিশ গিয়ে উদ্ধার করে এবং মৃতের স্ত্রীর অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, তমলুকের শহিদ মাতঙ্গিনী ব্লকের রূপনারায়ণের নদীবাঁধের পাশেই খারুই শংকর খালি এলাকায় স্থানীয় একটি গ্রাম্য বাজার। যেখানে বেশ কয়েকটি খাবারের দোকানের পাশাপাশি চায়ের দোকান রয়েছে ওই এলাকারই বাসিন্দা কুশধ্বজ সামন্তর। স্ত্রী মল্লিকাকে নিয়েই ছোট্ট ওই চায়ের দোকান চালান তিনি। যা রোজগার হতো, তাতেই কোনও রকমে সংসার চলত তাঁদের। এদিকে অভিযুক্ত যুবক পেশায় নির্মাণ শ্রমিক সীমান্ত পাল। তার কাছেই চায়ের বকেয়া হয়েছিল প্রায় ৩০ টাকা। নতুন করে আর ধার দিতে রাজি ছিলেন না চা দোকানি কুশধজ। আর তাতেই কয়েকদিন ধরে ওই চায়ের দোকানের উপর ক্ষুব্ধ ছিল সীমান্ত।

Advertisement

[আরও পড়ুন: একদিনে প্রণামী পড়ল ‘মোটে’ ২.৮৫ কোটি, গরিব হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে ধনী মন্দির!]

এই অবস্থায় এদিন প্রায় সকাল সাড়ে দশটা নাগাদ তাড়াহুড়োর মাঝে যখন চায়ের দোকান বন্ধ করেছিলেন কুশধ্বজ, তখনই দোকানে এসে এক কাপ গরম চায়ের আবদার জানায় অভিযুক্ত যুবক। কিন্তু দোকান লাগিয়ে দেওয়ার সময় নতুন করে আর চা বানিয়ে দেওয়া সম্ভব নয় বলে সাফ জানায় কুশধ্বজ। ফলে রীতিমতো ক্ষেপে গিয়ে ওই চায়ের দোকানিকে খুনের হুমকি দেয় সে। কিন্তু তার কথায় তেমন একটা তোয়াক্কা না করেই ফের দোকান বন্ধের তোড়জোড় করছিলেন কুশ। অভিযোগ, তারই মধ্যে ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে দৌড়ে গিয়ে বাড়ি থেকে একটি ধারালো ছুরি (Sharp Weapon) এনে সোজাসুজি দোকানির পেটে বসিয়ে দেয় অভিযুক্ত। রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়েন কুশ। আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয়দের চেষ্টায় তাঁকে কোলাঘাটের খড়িচক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে চিকিৎসকদের পরামর্শমতো কোলাঘাট ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

Advertisement

[আরও পড়ুন: কপ্টারের ব্লেডে ধর থেকে আলাদা মুন্ডু, সেলফি তুলতে গিয়ে ভয়ানক মৃত্যু সরকারি আধিকারিকের]

এদিকে গ্রামের এই যুবকের এহেন কর্মকাণ্ডে আতঙ্কের পরিবেশের মধ্যেও তীব্র উত্তেজনা ছড়ায় এলাকা জুড়ে। ততক্ষণে অবশ্য পালাতে গিয়ে স্থানীয়দের হাতে ধরা পড়েছে অভিযুক্ত সীমান্ত। বেধড়ক মারধর শুরু হয় অভিযুক্ত সীমান্তকে ঘিরে। বাসিন্দাদের অভিযোগ, এর আগেও অভিযুক্তকে খুনের হুমকি দিতে দেখা যায়। তবে ওই যে সত্যিকারের এমন কাণ্ড ঘটাবে, তা কেউ ভাবতে পারেনি। খোদ অভিযুক্তের মা পদ্মা দেবী কান্নায় ভেঙে পড়ে জানান, এর আগেও নিজের স্ত্রীর উপর ধারাল বটি নিয়ে হামলা চালিয়েছিল ছেলে। স্ত্রীকে খুনের চেষ্টার অভিযোগে বছর খানেক সে জেলও খেটেছিল। কিন্তু ফের জেল থেকে বেরিয়ে পুনরায় বেপরোয়া হয়ে ওঠে। তাই আইন অনুযায়ী ওর সাজা হোক। তমলুকের মহকুমা পুলিশ আধিকারিক সাকিব আহমেদ বলেন, চা দোকানিকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে খুনের অভিযোগে স্থানীয় এক যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। খুনে ব্যবহৃত ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করে ঘটনার তদন্ত চলছে।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ