BREAKING NEWS

২১ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ৬ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

আমফানের ত্রাণে ‘দুর্নীতি’ রুখতে কড়া পদক্ষেপ শুভেন্দু অধিকারীর, গড়লেন তদন্ত কমিটি

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: July 7, 2020 9:50 am|    Updated: July 7, 2020 9:50 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আমফানের (Amphan) ত্রাণ নিয়ে অভাব-অভিযোগ লেগেই রয়েছে। বারবার তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে স্বজনপোষণের। এ বিষয়ে একাধিকবার দলের নেতাদের সতর্ক করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। কখনও মিষ্টি কথায় বুঝিয়েছেন, কখনও কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারিও দিয়েছেন। কিন্তু তা সত্ত্বেও পরিস্থিতি যেন বদলাচ্ছেই না। তাই এবার ত্রাণে দুর্নীতি রুখতে ময়দানে নামলেন নন্দীগ্রামের বিধায়ক তথা মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari)।

আমফানের ত্রাণে দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে  প্রথম থেকেই বেজায় ক্ষুব্ধ পরিবহণমন্ত্রী। কারণ, এতে ক্ষতিগ্রস্তরা যেমন ভুগছেন, তেমনই  দলের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে। তাই এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) পথে হেঁটে দুর্নীতি রুখতে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করলেন শুভেন্দু অধিকারী। জানা গিয়েছে, ওই কমিটির সদস্যরা নন্দীগ্রামের ভেকুটিয়া ও কেন্দ্রেমারী-সহ আমফানে ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করবেন। কথা বলবেন ক্ষতিগ্রস্তদের সঙ্গে। চিহ্নিত করবেন প্রকৃত দুর্গতদের। এরপর ওই কমিটি খতিয়ে দেখবে যে, প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তরা ত্রাণ পেয়েছে কি না। যদি না পেয়ে থাকে সেক্ষেত্রে আবেদনে কোনও ত্রুটি ছিল কি না, প্রথমে তা খতিয়ে দেখা হবে। আবেদনে ত্রুটিপূর্ণ না হওয়া সত্ত্বেও যদি কেউ ত্রাণ পাননি বলে প্রমাণিত হয়, সেক্ষেত্রে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

[আরও পড়ুন: ৩ জামাইবাবুর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ, চারদিনের সন্তানকে নিয়ে পুলিশের দ্বারস্থ নাবালিকা]

এ প্রসঙ্গে পরিবহণমন্ত্রী জানিয়েছে, “আমফানের ত্রাণ বিলিতে দুর্নীতির সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে শাস্তি দেওয়া হবে। কেউ অন্যায়ভাবে টাকা আত্মসাত করেছে বলে প্রমাণিত হলে, তাঁকে টাকা ফেরত দিতে হবে।” তদন্ত কমিটির প্রতিনিধিদের কথায়, “বিধায়ক তথা মন্ত্রীর নির্দেশ মোতাবেক আমরা কাজ শুরু করেছি। দ্রুতই রিপোর্ট জমা দেব।” শুভেন্দু অধিকারীর এই উদ্যোগে খুশি ক্ষতিগ্রস্তরা। তাঁদের বিশ্বাস, এবার হয়তো প্রাপ্য জুটবে। প্রসঙ্গত, সোমবারই নবান্ন থেকে ত্রাণে দুর্নীতির ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। বলেছিলেন, দ্রুত টাকা ও অন্যান্য সামগ্রী পাঠানোর কারণেই বেশ কিছু সমস্যা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ, কলকাতা-সহ রাজ্যের একাধিক জেলায় ফের কড়া হচ্ছে লকডাউন]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement