BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

‘দলই আমাকে হারানোর ছক কষছে, নির্বাচনে লড়ব না’, উদয়ন গুহর মন্তব্যে অস্বস্তিতে তৃণমূল

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: July 7, 2020 3:05 pm|    Updated: July 7, 2020 3:05 pm

An Images

বিক্রম রায়, কোচবিহার: একুশের বিধানসভা নির্বাচনের রণকৌশল কী হবে, ইতিমধ্যেই তা নিয়ে আলাপ-আলোচনা শুরু করেছে রাজনৈতিক দলগুলি। ব্যতিক্রম নয় শাসকদলও। খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) ইতিমধ্যেই বিধায়কদের জিজ্ঞেস করে ফেলেছেন যে, কে কে নির্বাচনী লড়াইয়ে শামিল হতে আগ্রহী। প্রায় সকলেই হাবভাবে বুঝিয়েছিলেন সম্মুখসমরে যেতে প্রস্তুত তাঁরা। কিন্তু অন্যসুর শোনা গেল দিনহাটার তৃণমূল বিধায়ক উদয়ন গুহর (Udayan Guha) গলায়। দলীয় বৈঠকে সহযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে সাফ জানিয়ে দিলেন, আর বিধানসভা নির্বাচনে লড়বেন না তিনি। 

সোমবার দিনহাটার তৃণমূল নেতৃত্বরা একটি রুদ্ধদ্বার বৈঠকে যোগ দিয়েছিলেন। জানা গিয়েছে, সেখানেই দলের বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উগড়ে দেন বিধায়ক। আক্রমণাত্মক সুরে বলেন, দলে তাঁকে হারানোর জন্য চক্রান্ত চলছে। তাই আগামী বিধানসভা নির্বাচনে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন না। যাঁরা তাঁকে হারানোর চেষ্টা করছে তাঁদের উপযুক্ত প্রার্থী খুঁজে নেওয়ার পরামর্শও দেন উদয়ন গুহ। স্থানীয় এক নেতাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, “ওই নেতা আমাকে পরাজিত করতে এককোটি টাকা পর্যন্ত ব্যয় করতে পারে!” এদিনের বৈঠক থেকে কর্মীদের বিঁধে বিধায়ক বলেন, “চাকরি দেওয়ার নামে কোটি কোটি টাকা যাঁরা নিয়েছেন, তাঁরা কেউ বাড়িতে থাকতে পারবেন না।” শুধু তাই নয়, দলের একাধিক অঞ্চল সভাপতির বিরুদ্ধে নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তুলে তৃণমূলের জেলা সভাপতি বিনয়কৃষ্ণ বর্মনের কাছে তাঁদের বদলির আবেদনও করেন উদয়ন বাবু।

[আরও পড়ুন: বাথরুমে ঢুকে নাবালিকার ‘শ্লীলতাহানি’, মারধরের পর অভিযুক্তের চুল কেটে নিল স্থানীয়রা]

তবে বিধায়কের মন্তব্যতে যে গোষ্ঠীকোন্দলেন ছাপ স্পষ্ট, তা মানতে নারাজ তৃণমূলের জেলা সভাপতি বিনয়কৃষ্ণ বর্মন। তাঁর কথায়, “উদয়ন বাবু অভিমানেই হয়তো দাঁড়াবেন না বলে জানিয়েছেন। তবে দল যদি চায় তাঁকে প্রার্থী করতে তিনি নিশ্চয়ই রাজি হবেন।” পাশাপাশি, হারানোর চক্রান্তের বিষয়টি নিতান্ত বিধায়কের ব্যক্তিগত মত বলে মন্তব্য করেছেন জেলা সভাপতি। আলোচনার মধ্য দিয়ে সমস্ত বিষয়টি মিটিয়ে নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি। তবে এদিনের এই ঘটনায় বেজায় অস্বস্তিতে পড়েছে জেলা তৃণমূল নেতত্ব।

[আরও পড়ুন:  হাওড়া-শিয়ালদহ শাখার সব স্টেশনে নাও থামতে পারে লোকাল ট্রেন! বড় সিদ্ধান্ত রেলের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement