২৮ ভাদ্র  ১৪২৬  রবিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

ধীমান রায়, কাটোয়া: পূর্ব বর্ধমান জেলায় তৃণমূল ছাত্র পরিষদের নতুন কমিটি গঠন হল। আর এই নবনির্বাচিত কমিটি তালিকা প্রকাশ করার পরেই দলের অন্দরে শুরু হয়েছে ক্ষোভ বিক্ষোভ। সোশ্যাল মিডিয়াতে কার্যত ঝড় উঠেছে। কড়া ভাষায় কমিটি নিয়ে ফেসবুকে ক্ষোভপ্রকাশ করেছেন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের কর্মীদের অনেকে। অভিযোগ, যারা পরিশ্রম করে সংগঠন করে এসেছেন তাঁদের যোগ্য সন্মান দেওয়া হয়নি। অথচ একেবারে নতুন অনভিজ্ঞদের কমিটির গুরুত্বপূর্ণ পদে বসিয়ে দেওয়া হয়েছে। নতুন কমিটি নিয়ে ক্ষোভবিক্ষোভ চেপে রাখতে না পেরেই ফেসবুকে কার্যত বিদ্রোহ ঘোষণা শুরু করে দিয়েছে দলেরই একাংশ।

পূর্ব বর্ধমান জেলায় তৃণমূ্‌ল ছাত্র পরিষদের নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে। জেলা তৃণমূল কার্যলয় থেকে সোমবার কমিটির তালিকা আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করা হয়। তৃণমূল ছাত্র পরিষদের পূর্ব বর্ধমান জেলা কমিটির সভাপতি মহম্মদ সাদ্দাম হোসেন এই নতুন কমিটির তালিকা প্রকাশ করেন। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে সংগঠনের রাজ্য সভাপতি তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্যের সম্মতিতে জেলা সভাপতি এই তালিকা প্রকাশ করেছেন। দেখা যায় কমিটিতে নিয়ে আসা হয়েছে বেশকিছু নতুন মুখ। চারজনকে সহ-সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তাঁরা হলেন শেখ নইম আলি, সারওয়ার্দি হাসান, মিঠু মাজি এবং মুকেশ শর্মা। সাধারণ সম্পাদক মণ্ডলীতে রয়েছেন মোট ১২ জন। সম্পাদকমণ্ডলীতে রয়েছেন ১১ জন। এছাড়া উপদেষ্টা কমিটিতে ৩ জনকে রাখা হয়েছে। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, নতুন এই কমিটির মধ্যে সিংহভাগই প্রায় নতুন মুখ।

[ আরও পড়ুন: অনুরাগীদের আবদারে পার্লারে মেকওভার, রাণাঘাটের সেই রাণুকে এখন চেনাই দায় ]

জেলা কমিটির পক্ষ থেকে নতুন কমিটি তালিকা প্রকাশের পরেই তৃণমূল ছাত্র পরিষদের কর্মীদের মধ্যে অনেকেই এই কমিটিকে মানতে চাইছেন না। অনেকে ফেসবুকে পোষ্ট করে তার প্রতিবাদ জানিয়েছেন। কেউ লিখেছেন, “পূর্ব বর্ধমান জেলায় যে কমিটি গঠন করা হয়েছে তা ভাঙা হোক। না হলে প্রতিবাদের ঝড় উঠবে।” কেউ ফেসবুকে পোস্ট করে লিখেছেন, “যে ১১ বছর ধরে দলের জন্য মার খেল, কেস খেল, যে সারাজীবনটাই দলের জন্য দিল, তাকে কি অপমান করা হল না?” বিক্ষুব্ধরা প্রশ্ন তুলেছেন, “আসলে এই কমিটি কি সবাইকে নিয়ে মিটিং করে হয়েছে, নাকি কারও অঙ্গুলিহেলনে করা হয়েছে?”

tmcp

নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক তৃণমূল ছাত্র পরিষদের জেলা কমিটির এক সদস্য বলেন, “কিছু কিছু বিষয় নিয়ে নতুন কমিটিকে মানতে পারছেন না সংগঠনের সাধারণ সদস্যরা। যেমন সহ-সভাপতির পদে এমন একজনকে বসানো হয়েছে যার বিরুদ্ধে কয়েকমাস আগে কলেজে হামলা ও অধ্যক্ষকে হেনস্তার অভিযোগ রয়েছে। আবার এমন কয়েকজন সক্রিয়কর্মী রয়েছেন যারা আগের কমিটিতে গুরুত্বপূর্ণ পদে ছিলেন। দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্বপালনও করেছিলেন তাদের গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। তাই দলের মধ্যে অনেকে নতুন কমিটি নিয়ে ক্ষোভপ্রকাশ করছেন।” দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে পূর্ব বর্ধমান জেলায় তৃণমূল ছাত্র পরিষদের নতুন পরিচালন কমিটি নিয়ে ইতিমধ্যেই সংগঠনের রাজ্য নেতৃত্বের কাছে অভিযোগ জানানো হয়েছে।

[ আরও পড়ুন: স্কুলের প্রশ্নপত্রেও জয় শ্রীরাম-কাটমানি, বিতর্কে পড়ে ক্ষমাপ্রার্থী শিক্ষক ]

যদিও সংগঠনের পূর্ব বর্ধমান জেলা কমিটির সভাপতি মহম্মদ সাদ্দাম হোসেন বলেন, “ক্ষোভ বিক্ষোভের কথা আমার কিছু জানা নেই। আমাদের নজরে আসেনি। খোঁজ নিয়ে দেখছি।” পাশাপাশি সাদ্দাম হোসেন বলেন, “নতুন ও পুরনো উভয়কে নিয়েই কমিটি গঠন করা হয়েছে। দল সকলকে নিয়েই কমিটি করতে নির্দেশ দিয়েছে। সেটাই করা হয়েছে।”

যদিও পূর্ব বর্ধমান জেলায় নতুন কমিটি নিয়ে ক্ষোভবিক্ষোভের বিষয়টিকে গুরুত্ব নিতে নারাজ তৃণমূল ছাত্র পরিষদের রাজ্য সভাপতি তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্য। তিনি বলেন, দলের নেতৃত্বদের অনুমোদন নিয়েই কমিটি গঠন করা হয়েছে। সবাইকে তো কমিটিতে জায়গা দেওয়া সম্ভব হয় না। তাই সাময়িক ক্ষোভবিক্ষোভ থাকতেই পারে। সেটা মিটে যাবে।” রাজ্য সভাপতি জানিয়েছেন “আগামী ২৮ আগস্ট সংগঠনের প্রতিষ্ঠাদিবস। ওদিন সংগঠনের সমাবেশে সাংগঠনিক পর্যলোচনা হবে। যারা দলের হয়ে ভাল কাজ করেন তারা নিশ্চয়ই দলের কাছে মূল্য পাবেন।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং