BREAKING NEWS

৩০ বৈশাখ  ১৪২৮  শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

স্নাতক-স্নাতকোত্তরে চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা হবে না, রাজ্যের সিদ্ধান্তেই সায় উপাচার্য পরিষদের

Published by: Paramita Paul |    Posted: July 10, 2020 8:05 pm|    Updated: July 10, 2020 8:07 pm

no exam for college and universitiy's students amid pandemic

ছবি: প্রতীকী

দীপঙ্কর মণ্ডল: করোনা আবহের মধ্যেই কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা নিতে হবে বলে ফরমান জারি করেছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (UGC)। কেন্দ্রীয় সরকারের সেই ফরমানের বিরোধিতা করে ইতিমধ্যে রাজ্য সরকার দিল্লিকে চিঠি পাঠিয়েছে। শুক্রবার রাজ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের সংগঠন একযোগে জানিয়ে দিল, এই পরিস্থিতিতে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয়। প্রত্যেকটি বিশ্ববিদ্যালয় আলাদা আলাদা করে ইউজিসিকে এ বিষয়ে চিঠি দেবে। রাজ্য সরকারের সুপারিশ মেনে পরীক্ষা ছাড়াই চলতি মাসে স্নাতক ও স্নাতকোত্তরের চূড়ান্ত বর্ষের ফল প্রকাশিত হবে। অন্যদিকে রাজ্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলির আচার্য তথা রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় এদিন টুইট বার্তায় জানিয়েছেন, “মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ঘরোয়া ভাবে কথা হয়েছে। ১৫ জুলাই উপাচার্যদের সঙ্গে বৈঠকের পর যৌথভাবে আমরা ইউজিসির সঙ্গে কথা বলব। বিদ্যার্থীরা আমার হৃদয়ের খুব কাছে রয়েছেন। তাঁরাই আমার অগ্রাধিকার।”

ইউজিসি ৬ জুলাই নির্দেশ দেয় সেপ্টেম্বরের মধ্যে চূড়ান্ত সেমিস্টারের কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষা সম্পন্ন করতে হবে। ২৯ এপ্রিল জারি করা গাইডলাইনে ইউজিসি বলেছিল করোনাজনিত উদ্বেগজনক পরিস্থিতি দ্রুত স্বাভাবিক না হলে ইন্টারনাল অ্যাসেসমেন্ট ও পূর্ববর্তী সেমিস্টারের নম্বরের ভিত্তিতে ছাত্রদের রেজাল্ট বের করে দিতে। অধ্যাপকদের বিভিন্ন সংগঠনের মতে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়নি, আরও উদ্বেগজনক হয়েছে। আবুটার সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক গৌতম মাইতি এ প্রসঙ্গে বলেন, “ভবিষ্যতে পরিস্থিতি যে আরো উদ্বেগজনক হবে তা বুঝতে বিশেষ বুদ্ধির দরকার পড়ে না। কিন্তু ইউজিসির মত একটি কেন্দ্রীয় সংস্থা যার উপর সারা দেশের উচ্চশিক্ষার ভার ন্যস্ত, তার এমন তুঘলকি সিদ্ধান্তে সারা দেশের শিক্ষার্থীদের ত্রাহি-ত্রাহি অবস্থা। এই নির্দেশিকা অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।”

[আরও পড়ুন : রাজ্যে ফের করোনা সংক্রমণে রেকর্ড, গত ২৪ ঘণ্টায় ভাইরাস আক্রান্ত বারোশো ছুঁইছুঁই]

ইউজিসি একদিকে বলছে করোনা জনিত কারণে পরবর্তী শিক্ষাবর্ষ পিছবে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পরবর্তী শিক্ষাবর্ষ কবে থেকে শুরু হবে তা তারা জানাবে। এরপরও সেপ্টেম্বরের মধ্যে পরীক্ষা সম্পন্ন করার নির্দেশ পেয়ে এ রাজ্যের উপাচার্যরা বিস্মিত। এদিন উপাচার্য পরিষদের বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে সেপ্টেম্বরের মধ্যে পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত তাঁরা মানবেন না। আগের পরীক্ষায় পাওয়া নম্বরের ভিত্তিতে আশি শতাংশ ও ইন্টার্নাল অ্যাসেসমেন্টের উপর কুড়ি শতাংশ নম্বর দেওয়ার সুপারিশ করেছে এ রাজ্যের সরকার। তা মান্যতা দেওয়া হবে বলে এদিন জানিয়ে দিয়েছে উপাচার্য পরিষদ।

[আরও পড়ুন : আজানের বিরুদ্ধে আদালতে যাওয়ার জের, অর্জুনের বিরুদ্ধে মামলার হুমকি আরএসএসের শাখা সংগঠনের]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement