৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বাংলার JEE-NEET পরীক্ষার্থীদের জন্য ট্রেন চালানোর আবেদন করা হয়নি, দাবি রেলের

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: September 2, 2020 5:44 pm|    Updated: September 2, 2020 5:44 pm

An Images

ফাইল ছবি

সুব্রত বিশ্বাস: NEET-JEE ইস্যুতে কেন্দ্রের শাসকদল ও বিরোধীদের মধ্যে শুরু হয়েছে তীব্র বিবাদ। মোদি সরকারকে তুলোধোনা করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। করোনা আবহে যান চলাচল ব্যহত হওয়ায় ছাত্রদের পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছনো ও সংক্রমণের আশঙ্কায় সরব হয়েছেন তিনি। তবে অনেকেই মনে করছেন, পরীক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য বা স্বার্থের চাইতেও এক্ষেত্রে শাসক-বিরোধী উভয়ের কাছেই প্রাধান্য পাচ্ছে রাজনৈতিক সমীকরণ। এহেন অবস্থায় এবার রেল জানিয়েছে, পরীক্ষার্থীদের সুবিধার জন্য বিশেষ ট্রেন চালানোর ক্ষেত্রে রাজ্যের তরফে কোনও আবেদন তারা পায়নি।

[আরও পড়ুন: ‘পরীক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ নষ্ট করার অধিকার কে দিয়েছে?’, NEET-JEE ইস্যুতে কেন্দ্রকে তোপ মমতার]

পূর্ব রেলের জনৈক কমার্শিয়াল ম্যানেজার এই বিষয়ে জানিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে এমনকী ব্যক্তিগতভাবেও কেউ আবেদন না করায় JEE-NEET পরীক্ষার্থীদের জন্য ট্রেন চালানোর বিষয়টি তাদের গোচরে আসেনি। পাশাপাশি তিনি আরও জানান, মুম্বইতে জরুরি কাজে যুক্তদের লোকাল ট্রেনে চড়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। যা এরাজ্যে কার্যকর হয়নি। ফলে কম লোকাল ট্রেন চলছে, এবং তা শুধুমাত্র রেলকর্মীদের জন্য। উল্লেখ্য, ১ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হওয়া JEE পরীক্ষার জন্য পরীক্ষার্থীদের আবেদনে স্পেশ্যাল লোকাল ট্রেনগুলিতে তাঁদের চড়ার ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে মুম্বইতে। এডমিট কার্ড দেখিয়ে পরীক্ষার্থীরা ও তাঁদের অবিভাবকরা ট্রেনে উঠতে পারবেন। একইভাবে প্রবেশিকা পরীক্ষাগুলির কথা মাথায় রেখে ২ থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিহারে ২০ জোড়া বিশেষ ট্রেন চালানো হচ্ছে। এর ফলে উপকৃত হয়েছেন হাজার হাজার পরীক্ষার্থী। কিন্তু এ রাজ্যে তেমন কোনও ব্যবস্থা করা হয়নি। এদিকে, আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত স্পেশ্যাল ট্রেন ছাড়া বাড়তি কোনও যাত্রীবাহী ট্রেন চলবে না রাজ্যে। খড়গপুর ডিভিশন নির্দিষ্ট বিভাগগুলিকে এই নির্দেশ দিয়েছে। রেলবোর্ডের এই নির্দেশ দেশজুড়ে হওয়ায় হাওড়া, শিয়ালদহে লোকাল ট্রেন চলবে না নির্ধারিত তারিখ পর্যন্ত।

প্রসঙ্গত, NEET-JEE কবে হবে তা নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই টানাপোড়েন চলছিল। লকডাউনের মাঝে একাধিকবার পরীক্ষার দিন পরিবর্তন করার পর স্থির হয় যে, ১ থেকে ৬ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে JEE Main। ১৩ সেপ্টেম্বর হবে NEET। কিন্তু বাংলা-সহ বেশ কয়েকটি রাজ্য কেন্দ্রের কাছে পরীক্ষা পিছনোর আরজি জানিয়েছিল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রীকে একাধিকবার চিঠিও দিয়েছিলেন। কিন্তু তাতেও লাভ হয়নি। পরবর্তীতে ৬ টি রাজ্য পরীক্ষা পিছনোর দাবিতে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থও করেছিলেন। কারণ, বর্তমান পরিস্থিতিতে পরীক্ষা দিতে যাওয়া পড়ুয়াদের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ বলেই মনে করা করেছিল তাঁরা।

[আরও পড়ুন: ‘পরীক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ নষ্ট করার অধিকার কে দিয়েছে?’, NEET-JEE ইস্যুতে কেন্দ্রকে তোপ মমতার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement