BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল বিজেপি নেতার আপত্তিকর ছবি, অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: December 10, 2019 9:05 pm|    Updated: December 10, 2019 9:15 pm

An Images

বিপ্লবচন্দ্র দত্ত, কৃষ্ণনগর: দলেরই এক মহিলা কর্মীর সঙ্গে সোমবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছিল নবদ্বীপের এক বিজেপি নেতার আপত্তিকর ছবি। যার ফলে বেশ অস্বস্তিতে পড়তে হয়েছিল দলকে। দলের ভাবমূর্তি বজায় রাখতে ঘটনার কয়েকঘণ্টার ব্যবধানে দায়িত্ব থেকে সরলেন অভিযুক্ত নেতা। সূত্রের খবর, দলের তরফে শোকজ চিঠি পাঠাতেই পালটা পদত্যাগ পত্র পাঠিয়ে দেন ওই নেতা। অর্থাৎ চাপের মুখে পদ ছাড়লেন তিনি। যদিও তাঁর দাবি, গোটা ঘটনাটিই চক্রান্ত। দলের তরফে জানানো হয়েছে, ঘটনার তদন্ত হচ্ছে। সত্য শীঘ্রই প্রকাশ্যে আসবে।

সূত্রের খবর, সোমবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছিল নবদ্বীপ দক্ষিণ মণ্ডলের সভাপতি শিবশংকর মণ্ডল ও এক বিজেপি নেত্রীর ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি। সেই ছবি প্রকাশ্যে আসার আধ ঘণ্টার মধ্যেই শোকজ করা হয় শিবশংকর মণ্ডলকে। শোকজের চিঠি পাওয়ার পরই পদত্যাগপত্র জেলা নেতৃত্বের কাছে পাঠিয়ে দেন শিবশংকরবাবু। জেলা বিজেপি নেতৃত্ব সেই চিঠি রাজ্য নেতৃত্বের কাছে পাঠিয়ে দেয়। পাঠানো হয় বিজেপির জেলা নির্বাচনী আধিকারিকের কাছেও। রাজ্য নেতৃত্ব ওই পদত্যাগপত্র গ্রহণও করে নেন। বিজেপির নদিয়ার উত্তর জেলার সাংগঠনিক সভাপতির দায়িত্বে থাকা মহাদেব সরকার জানিয়েছেন, ‘বিষয়টি জানার পরই দলের তরফে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। শিবশংকর মণ্ডলকে শোকজ করা হয়েছে। তিনি পদত্যাগ পত্র পাঠিয়েছেন দলের কাছে, তা গৃহীতও হয়েছে।’  তবে তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাঁকে দলের কোনও দায়িত্ব দেওয়া হবে না এমনটাই সাফ জানিয়েদেন তিনি। জানা গিয়েছে, ওই মহিলা নেত্রীকেও তার দায়িত্ব থেকে আপাতত সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

[আরও পড়ুন: স্বামীর অপমান সহ্য করতে না পেরে গায়ে আগুন, হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই দগ্ধ বধূর]

যদিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া ছবিগুলির কোনও সত্যতা নেই বলেই দাবি শিবশংকরবাবুর। জানা গিয়েছে, তদন্তের জন্য ইতিমধ্যেই কৃষ্ণনগর সাইবার ক্রাইম থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি। শিবশংকরবাবুর কথায়, ‘ আমি দলের কাছে আমার পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে দিয়েছি। ছবির বিষয়টির যথাযথ তদন্তের জন্য কৃষ্ণনগর সাইবার ক্রাইম থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।’ তাঁর অভিযোগ, দলের একাংশই পরিকল্পনামাফিক তাঁকে ফাঁসাচ্ছেন। তবে এই ঘটনায় ওই বিজেপি নেত্রীর কোনও মন্তব্য এখনও পাওয়া যায়নি। বিজেপির একাংশের অভিযোগ, আগামীতে রয়েছে পুরসভার নির্বাচন। সেই নির্বাচনের আগে বিজেপিকে কালিমালিপ্ত করার জন্য তৃণমূল এই ধরনের নোংরা খেলায় নেমেছে। তাঁদের কথায়, এই ঘটনায় যোগ রয়েছে বিজেপির নদিয়া উত্তর সাংগঠনিক জেলার বেশ কয়েকজনের। বিজেপির অভিযোগ উড়িয়েছেন তৃণমূলের জেলা সাধারণ সম্পাদক বিমান সাহা। তিনি বলেন, ‘এটাই বিজেপির সংস্কৃতি। অপরকে দোষারোপ না করে ওরা আগে নিজেদের পাপের প্রায়শ্চিত্ত করুক।’ তবে তদন্তে যদি দলীয় কোন্দলের তত্ত্ব উঠে আসে সেক্ষেত্রে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলেই জানিয়েছেন বিজেপি নেতা মহাদেব সরকার।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement