৭ মাঘ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২১ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

ধীমান রায়, কাটোয়া: স্বামীর বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক মেনে নিতে পারেননি স্ত্রী। তা নিয়ে নিত্যদিন অশান্তি লেগেই থাকত দম্পতির মধ্যে। অন্যথা হয়নি মঙ্গলবারও। ঘড়ির কাঁটায় দুপুর তখন দু’টো। খাওয়াদাওয়াও হয়নি। পেটে খিদে নিয়ে স্বামীর জন্য অপেক্ষা করছিলেন বধূ। প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করে যখন স্বামী যখন বাড়িতে ঢুকেছেন স্বাভাবিকভাবেই স্ত্রী তখন বেজায় চোটে। দেরি হওয়ার কারণ বুঝতে পেরে স্বামীকে দু-চার কথা শুনিয়েও দেন বধূ। পালটা দেন স্বামীও। সেই অপমান সইতে না পেরেই গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন বধূ। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে বর্ধমানের কাটোয়ায়।

কাটোয়ার মেঝিয়ারি গ্রামের বাসিন্দা ঝুমা বাগ নামে ওই বধূ। স্বামী যামিনী বাগ পেশায় মৃৎ শিল্পী। এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে ওই দম্পতির। জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার মেয়ে আল্পনার শ্বশুরবাড়ি কাটোয়ার চান্ডুলি গ্রামে ছিলেন ওই দম্পতির ছেলে সাহেব। বাড়িতে ছিলেন স্বামী-স্ত্রী। ঝুমা দেবী জানিয়েছেন, এদিন অশান্তির সময় রাগ, অপমানে তিনি স্বামীর সামনেই গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন। চোখের সামনে গোটা ঘটনাটি দেখেও স্ত্রীকে উদ্ধারের চেষ্টাও করেননি যামিনী। উলটে সে বলে, “তুই মর। আমি পালাচ্ছি।” স্বামীর সামনেই পুড়তে থাকেন ঝুমা। এরপর দগ্ধ অবস্থাতেই ঘর থেকে বেড়িয়ে পড়েন ওই বধূ। তাঁকে দেখতে পেয়ে আগুন নেভান স্থানীয়রা। এরপর দগ্ধ অবস্থায় ঝুমাদেবীই গোটা ঘটনার বর্ণনা দেন। প্রতিবেশীরাই দগ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে ভরতি করে তাঁকে। হাসপাতাল সূত্রে খবর, বধূর শরীরের ৮০ শতাংশই পুড়ে গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: ছাত্রী নিরাপত্তায় নয়া উদ্যোগ, দুর্গাপুরে স্কুলেই মার্শাল আর্টের প্রশিক্ষণ শুরুর সিদ্ধান্ত]

ঘটনার কথা জানতে পেরেই বাড়ি ফেরেন মহিলার সন্তানরা। মেয়ে আল্পনা জানান, “মেঝিয়ারি গ্রামের পাশে জামাইপাড়ায় এক বিধবা মহিলার সঙ্গে বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক রয়েছে বাবার। সেটা মা মেনে নিতে পারতেন না। তা নিয়ে প্রায় দিনই অশান্তি হত। বাবা মাকে মারধর করতেন।” পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। মহিলার স্বামী যামিনী বাগ এখনও পলাতক।

দেখুন ভিডিও:

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং