BREAKING NEWS

১৩  আষাঢ়  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

দ্বিতীয়বার কন্যাসন্তানের জন্ম, সদ্যোজাতকে ‘খুন’ বাবা-মায়ের

Published by: Sayani Sen |    Posted: October 26, 2018 10:02 am|    Updated: October 26, 2018 10:02 am

Parents kill new born girl child in Jaynagar

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কথায় বলে কুপুত্র যদি বা হয়, কুমাতা কখনও নয়৷ কিন্তু প্রচলিত প্রবাদকেই মিথ্যা প্রমাণিত করল দক্ষিণ বারাসতের কালিকাপুরের এক দম্পতি৷ সদ্যোজাত শিশুকন্যাকে খুন করে দেহ খালের ধারে চাপা দিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল তাদের বিরুদ্ধে৷ যদিও ঘটনার পর থেকে বেপাত্তা অভিযুক্তরা৷

[চুরি করতে দেখে ফেলায় মহিলাকে গণর্ধষণ, মাথায় লোহার রডের আঘাত]

দক্ষিণ বারাসতের কালিকাপুরের ওই দম্পতির বিয়ে হয়েছিল বছর চারেক আগে৷ প্রথমবার কন্যাসন্তানের জন্ম দেয় সঞ্জয় কুমারের স্ত্রী৷ অভিযোগ, কন্যাসন্তান হওয়ায় স্ত্রীকে গঞ্জনাও দিত সে৷ বারবার শারিরীক ও মানসিক অত্যাচারের শিকার হন ওই মহিলা৷ মাসখানেক আগে আবারও এক সন্তানের জন্ম দেয় ওই মহিলা৷ তবে এবারও কন্যাসন্তানের জন্ম দেয় সে৷ এরপর থেকেই বাড়তে থাকে অত্যাচার৷ অভিযোগ, স্ত্রীর পাশাপাশি সদ্যোজাতর উপরেও অত্যাচার করত সঞ্জয়৷ প্রতিবেশীদের দাবি, পুজোর পর থেকে সদ্যোজাতের অসুস্থতা শুরু হয়৷ বারবার জ্বর-সর্দিতে ভুগছিল সে৷ তবে সঞ্জয় কিংবা তার স্ত্রী কেউই নিজের সন্তানকে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যায়নি৷ টাকার অভাবেই চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যেতে পারছে না বলে প্রতিবেশীদের জানায় ওই দম্পতি৷ সরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার কথা বলেন প্রতিবেশীরা৷ অভিযোগ, তাতে পাত্তা দেয়নি নবজাতকের বাবা-মা৷ 

[ছেলেকে জামিন না দিলে আত্মহত্যার হুমকি প্রহৃত বাবার!]

বৃহস্পতিবার দুপুরের পর থেকে সদ্যোজাতের কান্নার শব্দ শুনতে পাননি প্রতিবেশীরা৷ সন্দেহ হওয়ায় সন্ধেবেলা প্রতিবেশীরা নবজাতকের খোঁজে সঞ্জয়ের বাড়িতে যায়৷ শিশুকন্যাকে দেখতে পাননি তাঁরা৷ খোঁজ করলে সঞ্জয়ের স্ত্রী জানায়, সদ্যোজাত দুপুরে মারা গিয়েছে৷ তাই তার দেহ বাড়ি লাগোয়া খালের পাশে পুঁতে দেওয়া হয়েছে৷ প্রতিবেশীদের দাবি, শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে কন্যাসন্তানকে৷ এরপর তাঁরাই খবর দেন জয়নগর থানায়৷ পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মাটি খুঁড়ে শিশুর দেহ উদ্ধার করে৷ আপাতত দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে৷ খুন না অসুস্থতায় মৃত্যু, সে বিষয়ে এখনও কিছুই জানায়নি পুলিশ৷ ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে আসার পরই মৃত্যুর কারণ স্পষ্ট হবে৷ এদিকে, এই ঘটনার পর থেকেই বেপাত্তা অভিযুক্ত বাবা এবং মা৷ পুলিশ তাদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে