২৭ আশ্বিন  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৫ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

রিন্টু ব্রহ্ম, কালনা: রেশন কার্ড সংশোধনের লাইনে পুলিশ-জনতা খণ্ডযুদ্ধ। অশান্তির জেরে ভাঙল সংশোধন কেন্দ্রের চেয়ার, টেবিল। উত্তপ্ত কালনার পূর্বস্থলীর দু’নম্বর ব্লক। আপাতত ওই কেন্দ্রের সমস্ত কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

[আরও পড়ুন: হাসপাতালে সারপ্রাইজ ভিজিটে বেনিময় হাতেনাতে ধরলেন পুরুলিয়ার জেলাশাসক]

কালনার পূর্বস্থলীতে অধিকাংশই সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বাস। তাই তাঁরা এনআরসি আতঙ্কে প্রায় কাঁটা হয়ে রয়েছেন। প্রায় প্রতিদিনই ভিড় জমাচ্ছেন এলাকার রেশন কার্ড সংশোধন কেন্দ্রগুলিতে। ভিড় এড়াতে ভোররাত থেকে কিষাণ মান্ডির সামনে লাইন দিচ্ছেন কেউ কেউ। মঙ্গলবারও তার অন্যথা হয়নি। বহু মানুষ পূর্বস্থলী ২ নম্বর ব্লকের কিষাণ মান্ডির সামনে ভিড় জমান। অভিযোগ, ১০টা বেজে গেলেও কাজ ঠিকমতো শুরু হয়নি। তাতে বিরক্ত হন স্থানীয়রা। এদিকে, সেই সময় এক পুলিশকর্মী লাইন ঠিক করছিলেন। তাতে আরও বিরক্ত হন ভুক্তভোগীরা। কেন কাজ শুরু হচ্ছে না তা নিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তাঁরা। পরিস্থিতি সামাল দিতে এগিয়ে যান পুলিশকর্মীরা। অভিযোগ, সেই সময় জনতা ও পুলিশের খণ্ডযুদ্ধ বেঁধে যায়। রেশন কার্ড সংশোধনী কেন্দ্রের সামনে থাকা চেয়ার এবং টেবিলে ভাঙচুর চালায় উত্তেজিত জনতা। ইতিমধ্যেই খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। পরিস্থিতি সামাল দেওয়া হয়।

Kalna-Ration-Agitation

এই প্রসঙ্গে বিডিও সৌমিক বাগচি বলেন, “ভিড় সামাল দেওয়ার জন্য পঞ্চায়েত অনুযায়ী আলাদা আলাদা রেশন কার্ড সংশোধনী কেন্দ্র খোলা হয়েছে। তা-ও কেউ কেউ কিছু না বুঝে ভুল কাউন্টারে গিয়ে ভিড় জমাচ্ছেন। তাঁকে নির্দিষ্ট কাউন্টারে গিয়ে দাঁড়াতে বললেই অশান্তি তৈরি হচ্ছে। ভিড় সামাল দিতে পুলিশও মোতায়েন করেছি আমরা। তবে তাতেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা কার্যত অসম্ভব। গন্ডগোলের জেরে কোনও ফর্ম চুরি গিয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখে রিপোর্ট তৈরি করছি।”

[আরও পড়ুন: ফের এনআরসি আতঙ্কে আত্মহত্যা, ময়নাগুড়িতে উদ্ধার ব্যক্তির ঝুলন্ত দেহ]

মঙ্গলবার সকালের এই অশান্তির পর থেকে রেশন কার্ড সংশোধনের নতুন কার্ড বিলির কাজ আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে পূরণ করা ফর্ম জমা নেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

দেখুন ভিডিও:

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং