১৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  সোমবার ৩০ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

রেশন বিলি করেও ৭ মাস ধরে কমিশন পাচ্ছেন না, মুখ্যমন্ত্রীর দপ্তরে চিঠি রেশন ডিলারদের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: October 27, 2020 8:33 pm|    Updated: October 27, 2020 8:35 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

ধ্রুবজ্যোতি বন্দ্যোপাধ্যায়: এপ্রিল মাস থেকে বিনামূল্যে রেশন (Free Ration) বিলির কথা ঘোষণা করেছিল কেন্দ্র ও রাজ্য দুই সরকারই। সেই হিসেবে টানা সাত মাস বিনামূল্যে রেশন দেওয়া হয়েছে। প্রতি মাসে বিলিবণ্টন করে ডিলারদের পাওয়ার কথা কুইন্টাল প্রতি ৭০ টাকা করে। চাল, গম, ডাল, ছোলা – সব কিছুর ক্ষেত্রেই এই এক হিসেব। কিন্তু গত সাত মাসে বিনামূল্যে শস্য বিলি করে এক কানাকড়িও মেলেনি বলে এবার অভিযোগ তুললেন ডিলাররা। অভিযোগ জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর দপ্তরে তাঁরা চিঠি পাঠালেন।

গত ৭ মাস ধরে রেশন ডিলাররা কোনও কমিশন না পাওয়ার জন্য একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংককে দায়ী করেছেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) দপ্তর থেকে শুরু করে খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের কাছেও নালিশ জানিয়েছে ডিলারদের সংগঠন অল ইন্ডিয়া ফেয়ার প্রাইস শপ ডিলারস ফেডারেশন। তাদের বক্তব্য, খাদ্য দপ্তর তাদের কমিশন বাবদ নির্দিষ্ট টাকা ব্যাংকে যথা সময়েই জমা করে দিয়েছে। সেই টাকা ব্যাংক তুলেও নিয়েছে। কিন্তু তার একাংশও তারা ডিলারদের দেয়নি বলে অভিযোগ। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বিশ্বম্ভর বসুর কথায়, “আমরা দপ্তর থেকেই খবর পেয়েছি যে, আমাদের কমিশনের টাকা ঠিক সময়ে ব্যাংকে জমা হয়েছে। কিন্তু ব্যাংক সেই টাকা দিতে চাইছে না।” তাঁর আরও অভিযোগ, “এই টাকা ব্যাংক বাজারে সুদে খাটাচ্ছে। সেই কারণেই ডিলাররা তাঁদের প্রাপ্য পাচ্ছেন না।”

[আরও পড়ুন: প্রতিমা নিরঞ্জন নিয়ে ব্যাপক সংঘর্ষ তৃণমূল ও বিজেপির, ফের উত্তপ্ত রাজারহাট]

এই মুহূর্তে রাজ্যে রেশন ডিলারের সংখ্যা ২০ হাজার ৭৮০। তাঁদের মধ্যে অবশ্য কেউই এই টাকা পাননি, তেমনটা বলছেন না সংগঠনের কর্তারা। তাঁদের হিসাবে মাত্র ২৫ শতাংশ এই টাকা পেয়েছে। বাকিদের ভাঁড়ার শূন্য। এরপরেই মুখ্যমন্ত্রীর দপ্তর থেকে খাদ্যমন্ত্রী – সকলের কাছে বিষয়টি জানিয়ে দ্রুত বিহিত চেয়েছেন ডিলাররা। এর মধ্যেই খবর, আগামী নভেম্বর মাসে বিনামূল্যের রেশন পাঠাবে না কেন্দ্র। এ নিয়ে তাদের অভিযোগ রাজ্যের বিরুদ্ধে।

[আরও পড়ুন:  উৎসবের মরশুমে সেঞ্চুরি হাঁকানোর পথে পিঁয়াজ, মাথায় হাত আমবাঙালির]

কেন্দ্রের তরফে চিঠি দিয়ে জানানো হয়েছে, গত সেপ্টেম্বর মাসের বিলি বণ্টনের হিসেব রাজ্যকে আগস্টের মধ্যেই অগ্রিম সেরে রাখতে বলেছিল কেন্দ্র। অভিযোগ, বারবার বলার পরও তাতে গুরুত্ব দেয়নি এ রাজ্যের সরকার। কেন্দ্রের নির্দিষ্ট পোর্টালের বদলে ই পস মেশিনে সেই হিসাব তারা দাখিল করে সেপ্টেম্বরের শেষে। তাতেই ক্ষোভ জানিয়ে খাদ্য মন্ত্রক সাফ ঘোষণা করে দিয়েছে, আগামী নভেম্বরের বিনামূল্যের বরাদ্দ তারা পাঠাতে পারবে না। এর ফলে আগামী মাসে ৯৫২ মেট্রিক টন শস্য ঘাটতি হবে বলে খবর খাদ্য দপ্তর সূত্রে। যার জেরে অন্ত্যদয় অন্ন যোজনা, পিএইচএইচ, এসপিপিএইচএইচ- এর আওতায় যাঁরা বিনামূল্যের রেশন পেতেন, তাঁরা বঞ্চিতই হবেন।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement