৮ ভাদ্র  ১৪২৬  সোমবার ২৬ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

অরূপ বসাক, মালবাজার:  গরমে টানা দু’মাসের ছুটি। অবিলম্বে স্কুল খোলার দাবিতে ডুয়ার্সের নাগরাকাটায় আন্দোলনে নামল পড়ুয়ারাই। সোমবার বিডিও থেকে অফিস থেকে মিছিল করে শহর পরিক্রমা করল তারা।

[আরও পড়ুন: ঘরে বসে এভাবেই জেনে নিন মাধ্যমিকের ফল, রইল খুঁটিনাটি]

স্কুল ছুটি ভারী মজা…ব্যাপারটা কিন্তু মোটেই তেমন নয়। বরং শিক্ষক বা অভিভাবকরা তো বটেই, গরমে টানা দু’মাস রাজ্যের সরকারি স্কুল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়ে ক্ষোভ বাড়ছে পড়ুয়াদের মধ্যেও। অবিলম্বে স্কুল খোলার দাবিতে ডুয়ার্সের নাগরাকাটায় গত সোমবার ও শুক্রবার বিডিও-র কাছে স্মারকলিপি দিয়েছিল বিভিন্ন স্কুলের পড়ুয়ারা। এর আগেও একই দাবিতে দু’বার বিডিও অফিসে অবস্থান বিক্ষোভ করেছে তারা। কিন্তু স্কুল খোলেনি।

শেষপর্যন্ত এক সপ্তাহ পর ফের সোমবার নাগরাকাটা শহরে বিডিও অফিসের সামনে জমায়েত করে মিছিল বের করল বিভিন্ন স্কুলের পড়ুয়ারা। মিছিলে যারা হাঁটল, তাদের সকলেরই পরনে ছিল স্কুল ইউনিফর্ম। মিছিল করে গোটা নাগরাকাটা শহর পরিক্রমা করে ছাত্রছাত্রীরা। পড়ুয়াদের বক্তব্য, গরমে যদি টানা দু’মাস স্কুল বন্ধ থাকে, তাহলে পড়াশোনার ক্ষতি হবে। সিলেবাসও শেষ হবে না। তাই অবিলম্বে স্কুল খুলতে হবে। যদি তাদের দাবি না মানা হয়, তাহলে আরও বড় আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়েছে পড়ুয়ারা।

চলতি মাসের গোড়ার দিকের কথা। ঘুর্ণিঝড় ফণীর আতঙ্কে তখন কাঁপছে রাজ্যের উপকূলবর্তী এলাকা। আবহবিদের পূর্বাভাস ছিল, ঝড়ের তাণ্ডব থেকে রেহাই পাবে না কলকাতাও। নিরাপত্তার কথা চিন্তা করেই রাজ্যের সরকারি ও সরকারি অনুমোদিত স্কুলগুলিতে গরমের ছুটি এগিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নেয় শিক্ষাদপ্তর। নির্দেশিকা জারি করে জানানো হয়, ৬ মে থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত সরকার ও সরকারি অনুমোদিত স্কুলে বন্ধ থাকবে পঠনপাঠন। প্রয়োজনের ছুটির মেয়াদ কমানো হতে পারে বলেও জানা গিয়েছিল। কিন্তু কলকাতা তো দূর অস্ত, ঘুর্ণিঝড় ফণীতে রাজ্যের উপকূলবর্তী এলাকায়ই তেমন ক্ষয়ক্ষতি না হলেও, স্কুলে ছুটির মেয়াদ কমানো হয়নি।

দেখুন ভিডিও:

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং