২২ চৈত্র  ১৪২৬  রবিবার ৫ এপ্রিল ২০২০ 

Advertisement

পরীক্ষার্থী দেখলেই বাসে তুলে গন্তব্যে পৌঁছে দিতে হবে, মাধ্যমিক নিয়ে নির্দেশ শুভেন্দুর

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: February 18, 2020 10:15 am|    Updated: February 18, 2020 10:15 am

An Images

ফাইল ছবি

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আজ থেকে শুরু মাধ্যমিক পরীক্ষা। তা নির্বিঘ্ন করতে রাজ্য প্রশাসন সবরকমভাবে প্রস্তুত। এই পরিস্থিতিতে পরীক্ষার্থীদের সাহায্যার্থে এগিয়ে এসেছে পরিবহণ দপ্তর। মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী স্পষ্ট নির্দেশ দিয়েছেন, রাস্তায় পরীক্ষার্থী দেখলেই থামাতে হবে বাস। তা সরকারি হোক বা বেসরকারি, ওই পরীক্ষার্থীকে তুলে নিয়ে নির্দিষ্ট স্কুলে পৌঁছে দিতে হবে। সোমবার বিধানসভায় এই সরকারি সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।

একইসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, পরীক্ষার্থীদের নিয়ে যেসব বাস যাবে তাদের স্পিড গভর্নর পরীক্ষা করে নিতে হবে। পরীক্ষার আগে দপ্তরের আধিকারিক, পুলিশ প্রশাসন ও জেলাশাসকদের সঙ্গে দ্রুত বৈঠক করে এই সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়েছে। মন্ত্রীর কথায়, “ছাত্রছাত্রী, অভিভাবকরা রাস্তায় যেখানেই থাকবেন সরকার ও বেসরকারি বাস তাদের তুলে নেবে। অননুমোদিত রুট না হলেও কোনও বাস চলবে। পরীক্ষার সময় যাতে সামগ্রিকভাবে পরিবহণ ব্যবস্থা স্বাভাবিক এবং মসৃণ থাকে, তার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।”

[আরও পড়ুন: নির্ভেজাল ভালবাসা, অ্যাসিড আক্রান্ত বাঙালি যুবতীকে বিয়ে উত্তরাখণ্ডের যুবকের]

বিধানসভায় দাঁড়িয়ে মন্ত্রী আরও বলেন, “পরীক্ষার্থীদের নিয়ে যে গাড়িগুলি যাবে তাদের স্পিড গভর্নর পরীক্ষা করে নিতে হবে। সেগুলি ঠিকমতো রাখা বাধ্যতামূলক।” রাস্তায় বসানো হয়েছে স্পিড লেজার গানও। গাড়ির গতি নিয়ন্ত্রণকারী এই যন্ত্র পরীক্ষার্থী-সহ সমস্ত যাত্রীর নিরাপত্তার কথা ভেবে ২০ কিলোমিটার অন্তর বসানো হচ্ছে বিভিন্ন সড়কে।

পরীক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের পাশে দাঁড়াতে এবার দলকে মাঠে নামাচ্ছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ঠিক হয়েছে, নিজের নিজের এলাকার পরীক্ষাকেন্দ্র ভিজিট করবেন মন্ত্রী, বিধায়করা। অভিভাবকদের সঙ্গে কথা বলবেন। পরীক্ষা চলাকালীন চাইলে বসে আড্ডাও দিতে পারেন। এমনিতেই প্রতি বছর মাধ্যমিক পরীক্ষার সময় বিভিন্ন পরীক্ষা কেন্দ্রের বাইরে তৃণমূলের তরফে ক্যাম্প করা হয়। অপেক্ষারত অভিভাবকদের বসার ব্যবস্থা পড়ুয়াদের জন্য জল-বাতাসা, গ্লুকোজ এবং প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়। সেই আয়োজন এবার বহরে আরও বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। মাস ঘুরলেই পুরভোটের দামামা বেজে যাবে। তার আগে এই পরীক্ষাকে হাতিয়ার করে যে শেষ মুহূর্তের জনসংযোগ তৃণমূল দক্ষতার সঙ্গে সেরে রাখতে চাইছে, তা বলাই বাহুল্য।

[আরও পড়ুন: ‘ছেলেকে সঙ্গে আনাই কাল হল’, আক্ষেপ ফরাক্কার দুর্ঘটনায় নিহত ইঞ্জিনিয়ারের বাবার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement