BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

নুসরত জাহানকে একঝলক দেখতে গিয়ে কেলেঙ্কারি কাণ্ড! ভিড়ের চাপে অসুস্থ ছাত্রী

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: March 11, 2020 8:03 pm|    Updated: March 11, 2020 8:05 pm

An Images

নন্দন দত্ত, সিউড়ি: অভিনেত্রী সাংসদ নুসরত জাহানকে দেখতে গিয়ে কেলেঙ্কারি কাণ্ড। ভিড়ের নিচে চাপা পড়ে অসুস্থ এক ছাত্রী। অন্যদিকে, হুড়োহুড়ির চোটে ভেঙে পড়ল শপিং মলের কাচও।

তৃণমূল সাংসদ তথা নায়িকা নুসরত জাহানকে দেখতে গিয়ে জোর হুড়োহুড়ি পরিস্থিতির সৃষ্টি হল রামপুরহাটে। ভিড়ের চাপে অসুস্থ হলেন এক ছাত্রী। তবুও তার প্রিয় নায়িকাকে দেখার আশা মিটল না। এদিকে জনসংযোগ করতে না পারায় খানিক নিরাশ হয়েই কোম্পানির গাড়িতে ফিরতে হল তৃণমূলের সাংসদকে। যদিও সন্ধ্যার দিকে তিনি পুজো দিলেন তারাপীঠে। 

বুধবার বিকেলে রামপুরহাট শহরের সানঘাটা পাড়ায় একটি শপিং মলের উদ্বোধন করতে এসেছিলেন বসিরহাটের সাংসদ নুসরত জাহান। বিকেলের দিকে ওই মলের উদ্বোধন করার কথা ছিল। কিন্তু উদ্বোধনের সময় বেলা গড়িয়ে সন্ধ্যা হয়ে যায়। ফলে, অভিনেত্রী আসার খবর চাউর হতেই ধীরে ধীরে মানুষের জমায়েত বাড়তে শুরু করে। এক সময় বোলপুর-রাজগ্রাম রাস্তা রীতিমতো অবরোধ হয়ে যাওয়ার মতো অবস্থা হয়। 

[আরও পড়ুন: প্রথমবার বাংলাদেশের ছবিতে দেব, ‘কম্যান্ডো’র শুটিং শুরু কলকাতায়]

সাংসদ-অভিনেত্রী নুসরত মলে ঢুকতেই উপস্থিত লোকজন্ একেবারে হুমড়ি খেয়ে পড়ে। বিশেষ করে মহিলাদের জমায়েত ছিল বেশি। মহিলাদের চাপে শপিং মলের কাচের দেওয়ালও ভেঙে পড়ে যায়। মলের ভিতর হুড়মুড়িয়ে পড়েন মহিলারা। সেসময়েই কয়েকজনের নিচে চাপা পড়ে যান সুপ্রিয়া বন্দ্যোপাধ্যায় নামে ওই ছাত্রী। রামপুরহাট থানার শ্যামপাহাড়ির বাসিন্দা ওই ছাত্রী সিউড়ি বিদ্যাসাগর কলেজের উদ্ভিদবিদ্যার অনার্সের পাঠরতা। 

এই ছাত্রী বলেন, “মঙ্গলবার সিউড়ি থেকে বাড়ি ফিরেছি। এদিন নুসরত জাহানকে এক ঝলক দেখে মাঝখন্ড গ্রামে মাসির বাড়িতে ফেরার কথা আমার। কিন্তু নুসরতকে দেখা হল না। তার আগেই মানুষের চাপে পড়ে লুটিয়ে পড়লাম সোফার মধ্যে। আমার উপর পরলেন আরও কয়েকজন। ফলে, বেশ কিছুক্ষণ অসুস্থ হয়ে পড়েছিলাম। আমার আর ইচ্ছেপূরন হল না। একবার দেখতে পেলে হয়তো অসুস্থ হওয়ার আক্ষেপটা আর থাকত না।” সুপ্রিয়ার অসুস্থ হওয়ার খবরে প্রায় তড়িঘড়ি ব্যবস্থা নেয় সেই শপিং মল কর্তৃপক্ষ। সেই মলের কর্মকর্তারাই সঙ্গে সঙ্গে তাকে শুশ্রূষা করেন। এরপর গাড়িতে চাপিয়ে পৌঁছে দেন মাসির বাড়িতে।

[আরও পড়ুন: নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও মাইক বাজিয়ে মন্ত্রীর নাচ, রিপোর্ট তলব জেলাশাসকের ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement